মিয়ানমারে মার্কিন সাংবাদিকের ১১ বছরের কারাদণ্ড
মিয়ানমারে মার্কিন সাংবাদিকের ১১ বছরের কারাদণ্ড

মিয়ানমারে মার্কিন সাংবাদিকের ১১ বছরের কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

অভিবাসন আইন লঙ্ঘন, বেআইনি যোগাযোগ ও সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে ভিন্নমতকে উৎসাহিত করার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে মার্কিন সাংবাদিক ড্যানি ফেনস্টারকে ১১ বছরের কারদণ্ড দিয়েছে মিয়ানমারের একটি সামরিক আদালত। খবর বিবিসির।

তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ ও সন্ত্রাসবাদের আরও দুইটি অভিযোগ আনা হয়েছে। এই দুটি অপরাধ প্রমাণিত হলে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হতে পারে।

আগামী ১৬ নভেম্বর এই দুটি অভিযোগের বিচার শুরু হবে।

অভিযুক্ত সাংবাদিক ড্যানি ফেনস্টার অনলাইন সাইট ফ্রন্টিয়ার মিয়ানমারের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ছিলেন। গত মে মাসে ইয়াঙ্গুন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট থেকে তাকে আটক করা হয়।  

মিয়ানমারে সামরিক বাহিনীর অভ্যুত্থানের সময় প্রায় এক ডজন বিদেশি সাংবাদিককে আটক করা হয়।

ড্যানি ফেনস্টার তাদের মধ্যেই একজন ছিলেন।

ফ্রন্টিয়ারের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, ফেনস্টার এর আগে মিয়ানমার নাউ পত্রিকায় কাজ করতেন। এটি একটি স্বাধীন সংবাদমাধ্যম ছিল যা মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর অভ্যুত্থানের বিপক্ষে অবস্থান নেয়।

ফ্রন্টিয়ার জানায়, "নিষিদ্ধ সংবাদমাধ্যম মিয়ানমার নাউ-এ কাজ করার সময় ড্যানির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। ২০২০ সালের জুলাইয়ে ড্যানি সেখান থেকে চলে আসেন এবং এরপর থেকে ফ্রন্টিয়ারেই কাজ করছেন। "

কাজেই ড্যানির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে অভিযোগ করে পত্রিকাটি।

এছাড়া ড্যানিকে ছাড়াতে যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমারের সামরিক সরকারের ওপর ধারাবাহিক চাপ দিয়ে যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, এর একমাস আগে মিয়ানমারে জাপানী একজন ফ্রিল্যান্স সাংবাদিককে ভুয়া খবর ছড়ানোর দায়ে গ্রেপ্তার করা হয়।

আরও পড়ুন:

মানসিক ক্লান্তি কাটিয়ে উঠবেন যেভাবে


news24bd.tv/ নকিব