মাথাভাঙ্গা নদী মরা খালে পরিণত, খননের দাবি এলাকাবাসীর
মাথাভাঙ্গা নদী মরা খালে পরিণত, খননের দাবি এলাকাবাসীর

মরা কাল মাথাভাঙ্গা নদী

মাথাভাঙ্গা নদী মরা খালে পরিণত, খননের দাবি এলাকাবাসীর

জাহিদুজ্জামান, কুষ্টিয়া

উৎসমুখসহ বিভিন্ন স্থানে পলি জমে ভরাট হয়ে গেছে এক সময়ের খরস্রোতা মাথাভাঙ্গা নদী। শুষ্ক মৌসুমে এই নদী একবারে শুকিয়ে খালে পরিণত হয়। এতে করে নদীর অববাহিকা কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর জেলায় কৃষিকাজ ব্যাহত হচ্ছে। নষ্ট হচ্ছে জীববৈচিত্র্য।

খননের মাধ্যমে আবার প্রবাহ ফিরিয়ে আনার দাবি জানিয়েছেন নদীপাড়ের কৃষকরা।

১২১ কিলোমিটার দৈর্ঘের মাথাভাঙ্গা নদী দক্ষিণ-পশ্চিমের কুষ্টিয়া, মেহেরপুর ও চুয়াডাঙ্গা জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। পদ্মা নদীর কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের মুন্সিগঞ্জ এলাকায় যেখান থেকে মাথাভাঙ্গার উৎপত্তি সেখানে পলি জমে ভরাট হয়ে গেছে। নদীর বুকে চলছে কৃষিকাজ। এ কারণেই শুকিয়ে একেবারে নালার মতো হয়ে গেছে পরবর্তী প্রবাহ। নদীকেন্দ্রীক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন ভারত     সীমান্তবর্তী এ এলাকার কৃষকরা।

নদী খননের দাবি জানিয়েছেন, এলাকার জনপ্রতিনিধিরা। প্রাগপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আশরাফুজ্জামান মুকুল সরকার বলছেন, এই নদীটি একসময় খরস্রোতা নদী ছিল। কিন্তু এখন মরা খাল। তাই দ্রুত নদীটি খননের দাবি জানাচ্ছি। এতে ব্যবসা বাণিজ্যে প্রচার ঘটবে।

উৎসমুখ খুলে দিতে উদ্যোগ নেয়ার কথা বলছেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের উপ-পরিচালক ড. খ ম কবিরুল ইসলাম।

আরও পড়ুন


এবার করণ জোহরের সিনেমায় রাশমিকা!

news24bd.tv এসএম

;