কালবৈশাখীর দাপটে লণ্ডভণ্ড পশ্চিমবঙ্গ
কালবৈশাখীর দাপটে লণ্ডভণ্ড পশ্চিমবঙ্গ

সংগৃহীত ছবি

কালবৈশাখীর দাপটে লণ্ডভণ্ড পশ্চিমবঙ্গ

অনলাইন ডেস্ক

পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা শহরে শনিবার (২১ মে) বিকেলে মুষলধারে বৃষ্টি নামে। সেই সঙ্গে তীব্র বেগে কালবৈশাখী ঝড় ও একনাগাড়ে বজ্রপাত হয়েছে। ঝড়ে অনেক জায়গায় গাছ ভেঙে পড়েছে।  শুধু কলকাতা নয়, শহর সংলগ্ন দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলি জেলাসহ দক্ষিণের কয়েকটি জেলায় বৃষ্টি হয়েছে।

 
 
কলকাতা শহরে দিনের শুরু থেকে দুপুরের পর পর্যন্ত তীব্র গরম ছিল। রোদের তেজও ছিল প্রখর। এদিন সূর্যের এতটাই তেজ ছিল যে, পথে বের হওয়া দায় হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তবে কালোমেঘের জেরে শহর কলকাতায় ভর বিকেলে নেমেছিল অকাল সন্ধ্যা।

স্থানীয় সময় বিকেল ৪টার দিকে কলকাতা ও তার সংলগ্ন অঞ্চলের আকাশ কালো হয়ে আসে। বিদ্যুৎ চমকাতে থাকে। তারপরই শুরু হয় ঝড়ো হাওয়া। ধুলোয় ঢেকে যায় চারদিক। মুহুর্তে নামে বৃষ্টি। সঙ্গে দমকা হাওয়া।

কলকাতা আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস ছিল যে, শনিবার বিকেলে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। সঙ্গে দমকা হাওয়া বইবে। যার বেগ হবে ঘণ্টায় ৫০-৬০ কিলোমিটার। সেই পূর্বাভাসেরও বেশি মাত্রায় বয়ে গেল হাওয়া। আবহাওয়া দফতরের তথ্য অনুযায়ী, কলকাতায় ঝড়ের সর্বোচ্চ গতি ছিল ঘণ্টায় ৯০ কিলোমিটার।  

এদিকে, ঝড়-বৃষ্টির দাপটে বিমান চলাচল ব্যহত হয়েছে কলকাতা বিমানবন্দরে। এছাড়াও কলকাতা মেট্রোর লাইনে গাছ পড়ে উত্তমকুমার (টালিগঞ্জ) থেকে গড়িয়াগামী মেট্রোরেল চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। যদিও দ্রুততার সঙ্গে সেই গাছ সরানোর ব্যবস্থা করছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। মূলত, টালিগঞ্জ থেকে গড়িয়া স্টেশন অব্দি মেট্রোরেল সুরঙ্গ দিয়ে চলে না।  

ঝড়ের কারণে অনেক জায়গায় গাছ ভেঙে পড়েছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কলকাতায় বৃষ্টি থামেনি।

news24bd.tv/কামরুল