ঘূর্ণিঝড়ের নাম বিতর্ক: যশ, ইয়াশ না ইয়াস?
ঘূর্ণিঝড়ের নাম বিতর্ক: যশ, ইয়াশ না ইয়াস?

ঘূর্ণিঝড়ের নাম বিতর্ক: যশ, ইয়াশ না ইয়াস?

Other

প্রতিবারের মতো এবারও মহাসাগরে একটি ঘূর্ণিঝড় পাকিয়ে উঠেছে। প্রশ্ন হচ্ছে- এর নাম কী? যশ, ইয়াশ না ইয়াস? আমফান নিয়েও এমনাটি হয়েছিলো।  

কেউ আমপান, কেউ আম্ফান লিখেছিলেন। আসলে শুদ্ধ উচ্চারণ হলো, আমফান।

ইংরেজি বানান Amphan। ph-এর উচ্চারণ ফ, তাই আমফানই সঠিক। কিন্তু আমরা একক বানান নিয়ে একমত হতে পারিনি।  

কেউ কেউ বলবেন, তাতে কী? আমপান বা আম্পান বলেন আর আমফান যা-ই বলেন, ঘূর্ণিঝড় তো ঘূর্ণিঝড়ই। কেনো ভাই, শুদ্ধাশুদ্ধির বিষয়টা কি এতোই হেলাফেলার? 

সম্ভব হওয়া সত্ত্বেও শুদ্ধ বানান বা উচ্চারণ না করা বা এ ব্যাপারে একমত না হয়ে অনর্থক ভিন্নতা লালন করা এক গভীর অসুখের নাম। এর ভোগান্তি ছোটখাট না হয়ে বড়ও হয়। যাক সে কথা। এবারের ঘূর্ণিঝড়টির নাম রেখেছে ওমান।  

স্বাভাবিকভাবেই শব্দটি আরবি। ইংরেজি বানানে লেখা হচ্ছে Yaas/Yass। Yas-ও লেখা যায়। কারণ আরবি ياس। আরবি ইয়া-র উচ্চারণ বাংলায় ইয়া-ই। তাই সংস্কৃত, হিন্দি বা অন্য ভাষার কিছু শব্দের মতো ‘য’ হবে না। আর সিন-এর উচ্চারণ ইংরেজি এস-এর মতো। বাংলায় এটি সবক্ষেত্রে ‘স’ লেখাই নিয়ম। সুতরা্ং ইয়াস ছাড়া আর কিছু হতেই পারে না। এখানে তালব্য শ আসতে পারে না।

আরও পড়ুন:

 পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে ক্ষেপে গেলেন সিএনএন’র সাংবাদিক

 কবিরা গুনাহের পরিচয় ও পরিণতি

 ২৩ মে, ইতিহাসের এই দিনে

 

এবার আসি ইয়াস শব্দের অর্থের প্রসঙ্গে। অনেকে এর অর্থ লিখেছেন, হতাশা, মরিয়া ইত্যাদি। মনে রাখতে হবে এটা ঝড়ের নাম। তাই এর অর্থ ইংরেজি Desperate। বাংলায় হবে বেপরোয়া, উদ্দাম, দুরন্ত, দুর্দম, অদম্য, দুর্বার, দুর্নিবার ইত্যাদি।

(মত ভিন্ন মত বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়। )

লেখক : হারুন আল নাসিফ : কবি, ছড়াকার, সাংবাদিক।  (ফেসবুক থেকে নেয়া)

news24bd.tv নাজিম