বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানার নামে প্রচার করা ছবি ডা. শামীমার

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানার নামে প্রচার করা ছবি ডা. শামীমার

ঢাকা মেডিকেল কলেজের চিকিৎসক শামীমা আক্তারের টিকা গ্রহণের ছবি বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানার নামে প্রচার করা হচ্ছে। রুমিন ফারহানার বলে দাবি করে অনেকে স্ট্যাটাসও দিয়েছেন।

ডা. শামীমা বৃহস্পতিবার নিজ কর্মস্থল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেই করোনার টিকা নেন।

দুজন পেছন থেকে ধরে রাখে একজন ধারাল অস্ত্র দিয়ে বুকে আঘাত করে

উন্নত মগজ মানুষের তাই সবচেয়ে হিংস্র-দয়ালু-আবেগী

এ ঘটনায় বিব্রত ডা. শামীমা বলেন, ‘রুমিন ফারহানা দাবি করে অনেক মানুষ আমার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করছে। আজ বিকেল ৫টার দিকে বিষয়টি আমার নজরে আসে। আমি আজ সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা মেডিকেলে করোনা ভ্যাকসিন নিয়েছি। এরপর থেকেই নিজের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ি। হঠাৎ বিকেলের দিকে দেখি আমার ছবি রুমিন ফারহানার হিসেবে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। আমি অবাক হয়ে গেছি দেখে।

ট্রাম্পকে অপ্রাপ্ত বয়স্ক রুশ মেয়ে পাঠানো হতো, ‘ভিডিও ধারণ’!

এ ব্যাপারে রুমিন ফারহানাকে ফোন করা হলেও তিনি ধরেননি।

সূত্রে জানা গেছে, সকালে ঢাকা মেডিকেলে যখন টিকাদান চলছিল, তখন সংসদ অধিবেশনে ছিলেন বিএনপির এই এমপি।

রুমিন ফারহানা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

তিনি লেখেন, একজন নারীর টিকা নেবার ছবি দিয়ে আমি টিকা নিচ্ছি বলে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে যে প্রচারণা চালানো হচ্ছে তার জবাবে বলছি… আমি করোনার টিকা নেইনি।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, আমাকে আরও অনেক সাংবাদিক কৌতূহলবশত নক করেছেন, জানতে চেয়েছেন। আমি নিজে কনফার্ম ছিলাম যে তিনি টিকা নেননি। তারপরেও উনার সাথে যোগাযোগ করেছি সাংবাদিকদের কথায়।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

লিচুগাছে ধরা সেই আম ছিঁড়ে পালাল মোটরসাইকেলে আসা ৩ তরুণ

অনলাইন ডেস্ক

লিচুগাছে ধরা সেই আম ছিঁড়ে পালাল মোটরসাইকেলে আসা ৩ তরুণ

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার লিচুগাছে ধরা আমের খবরটি গোটা দেশে সাড়া ফেলেছে। কিন্তু আজ মঙ্গলবার ছিঁড়ে ফেলেছেন একদল তরুণ।

বিচিত্র এই ঘটনা দেখতে গিয়ে ঝামেলা ও বিতণ্ডার জের ধরে একদল তরুণ আমটি ছিঁড়ে পালিয়ে যান বলে অভিযোগ করেন সিঙ্গিয়া কলোনিপাড়া গ্রামের ওই গাছের মালিক আবদুর রহমান।

ফলে এই ঘটনার বিজ্ঞানভিত্তিক ব্যাখ্যা পাওয়ার কোনো সুযোগ থাকল না।

গাছের মালিক আবদুর রহমানের অভিযোগ, লিচুর থোকায় একটি আম ধরেছে—এই খবরে বহু মানুষ তা দেখতে আবদুর রহমানের বাড়িতে ভিড় জমান। আজ বেলা ১১টার দিকে মোটরসাইকেলে করে তিন তরুণ সেখানে গিয়ে আমটি ছিঁড়ে পালিয়ে যান।

আবদুর রহমান বলেন, গত শনিবার গাছে লিচুর থোকার পাশে আম দেখতে পাওয়ার কথাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এরপর লিচুগাছটি পাহারা দিতে শুরু করেন তিনি। আজ সকালেও লিচুগাছটি দেখতে এলাকায় ভিড় করেন অনেকে। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য সফিকুল ইসলামের ভাতিজা সোহেল রানা মোটরসাইকেলে করে আমটি দেখতে যান। ফেরার পথে আরেকটি মোটরসাইকেলের সঙ্গে সোহেল রানার মোটরসাইকেলের ধাক্কা লাগে। এতে সোহেল রানা আঘাত পান।

আবদুর রহমানের ভাষ্য, ঘটনাটি ইউপি সদস্য সফিকুল ইসলাম জানার পর তিনি তাঁর (আবদুর রহমান) বোনকে ডেকে বলেন, এই আমের কারণে এখানে সমস্যা হচ্ছে। আমটি তিনি ছিঁড়ে ফেলবেন। এর ঘণ্টাখানেক পর তাঁর বাড়িতে আসেন সফিকুল ইসলাম। তাঁর পেছনে একটি মোটরসাইকেলে করে তিন তরুণও আসেন। লোকসমাগম ও লিচুগাছটি পাহারা নিয়ে সফিকুলের সঙ্গে আবদুর রহমানের বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে তরুণেরা গাছ থেকে আমটি ছিঁড়ে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যান। লোকজন তরুণদের পেছনে ধাওয়া করেও তাঁদের ধরতে পারেননি।

বালিয়া ইউপির সদস্য সফিকুল ইসলামের ভাষ্য, ‘আমি সেখানে গিয়ে আবদুর রহমানকে বলেছি, এখন করোনার প্রকোপ বেশি। এখানে যাতে লোকজনের ভিড় কম হয়। এ কথা শুনে তিনি পাল্টা বলেন, আপনারা মেম্বার-চেয়ারম্যানরা কী করেন? এসব আপনারা সামলাতে পারেন না? এ নিয়ে তাঁর সঙ্গে তর্ক হওয়ার একপর্যায়ে কে আমটি ছিঁড়েছে, আমি তা বলতে পারছি না।’ তাঁর পেছনে মোটরসাইকেল নিয়ে আসা তরুণদের তিনি চেনেন না বলে দাবি করেন।

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচী, পুলিশি বাধায় পণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচী, পুলিশি বাধায় পণ্ড

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরকাঁকড়া ইউনিয়নের নতুনবাজার এলাকায় আওয়ামীলীগের দুপক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পণ্ড করে দিয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় সেখানে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দিয়েছিল বিবাদমান দুই পক্ষ।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি কর্মসূচি পণ্ড করার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিবাদমান দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ায় কাউকেই কোনো সভা-সমাবেশ করতে দেওয়া হয়নি। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

চরকাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান আরিফ বলেন, কাদের মির্জার সহযোগীদের হামলায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী এবং শিক্ষা ও সংস্কৃতি সম্পাদক নুরুজ্জামান স্বপন আহত হওয়ার প্রতিবাদে ওই কর্মসূচি ডাকা হয়েছিল। কিন্তু উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতিতে প্রশাসনের অনুরোধে সেই বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদসভার কর্মসূচি স্থগিত করতে হয়। আওয়ামী লীগ নেতা নুরনবী চৌধুরীর সুস্থতায় সবার কাছে দোয়া কামনা করেন আরিফ।


আরও পড়ুনঃ


বাঙ্গি: বিনা দোষে রোষের শিকার যে ফল

গালি ভেবে গ্রামের নাম মুছে দিলো ফেসবুক

'টিকায় কিছু হবে না, লাভ যা হওয়ার মদেই হবে'

রাস্তা-ঘাট থেকে শুরু করে শ্বশুড় বাড়িতেও পদ-পদবীর দাপট


অন্যদিকে প্রশাসনের বাধার মুখে প্রতিবাদসভা ডেকেও তা করতে পারেননি বলে জানিয়েছেন কাদের মির্জার অনুগত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কথিত সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন বাদল।

এদিকে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে কোম্পানীগঞ্জে। এলাকায় অতিরিক্ত র‍্যাব-পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নরসিংদীর বেলাবতে সড়কের বেহাল দশা, ভোগান্তিতে এলাকাবাসী

হৃদয় খান, নরসিংদী

নরসিংদীর বেলাবতে সড়কের বেহাল দশা, ভোগান্তিতে এলাকাবাসী

নরসিংদীর বেলাবতে আঞ্চলিক সড়ক নির্মাণের পর দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করায় বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে নারায়ণপুর-বটিবন্দ-দুলালকান্দি সড়ক। এ সড়কে এক সময় পাইকারী সবজী বিক্রেতার যাতায়াতে মুখরিত ছিল নারায়নপুরের পাইকারী সবজির বাজার। খানাখন্দের সৃষ্টি হওয়ায় যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দুর্ভোগ লাগবে সড়কটি সংস্কারের দাবি এলাকাবাসীর।

সাড়ে ৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের নরসিংদীর বেলাব উপজেলার নারায়ণপুর-বটিবন্দ-দুলালকান্দির এই আঞ্চলিক সড়কটির দুই প্রান্তে দুটি বড় হাটবাজার। নারায়ণপুর ইউনিয়নসহ পাশ্ববর্তী সল্লাবাদ ইউনিয়ন ও আশেপাশের এলাকার হাজারো জনসাধারণের চলাচলের গুরুত্বপূর্ণ ১২ ফিট এই সড়কটি ২০০০ সালে নির্মাণ করে সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

নির্মাণের কয়েক বছর পর থেকেই খানাখন্দ ও গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় বেহাল দশায় পরিণত হয় সড়কটি। সড়কের বেশিরভাগ অংশের পিচ ওঠে গিয়ে সৃষ্ট বড় বড় গর্তের কারণে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন। এতে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটায় চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে স্থানীয়দের। সড়ক চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় সড়কের দুই প্রান্তে অবস্থিত নারায়ণপুর বাজার ও দুলালকান্দি বাজারে যাতায়াত ও কৃষিপণ্য পরিবহনে বেড়েছে ভোগান্তি। ফলে বাধ্য হয়ে ১২ কিলোমিটার ঘুরে বিকল্প সড়কে চলাচল করতে হচ্ছে এলাকাবাসীর। দুর্ভোগ লাগবে সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবি তাদের।

আরও পড়ুন


হুইপ শামসুলের অরাজকতা, এখনো ধরা পড়েনি ব্যাংকার আত্মহত্যায় জড়িতরা

মান্নার উঠে আসার গল্প নিয়ে ইমরানের কণ্ঠে নতুন গান (ভিডিও)

আলেম-ওলামা নয়, তাণ্ডবের সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে: কাদের

করোনা মুক্ত আবুল হায়াত পুরোপুরি সুস্থ্য


সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোফাজ্জল হায়দার বলছেন, চলতি অর্থবছরে দেড় কিলোমিটার রাস্তা সংস্কার করা হয়েছে। বাকি কাজও দ্রুত সংস্কার করা হবে বলেও জানান তিনি।

বেলাব উপজেলার পূর্বাঞ্চলীয় দুই ইউনিয়নবাসীর জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি দ্রুত সংস্কার করার পাশাপাশি প্রশস্থকরণের দাবি এলাকাবাসীর।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাস্ক না পরায় যুবকের সাথে ধস্তাধস্তির ঘটনা, এসআই ক্লোজড (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

মাস্ক না পরায় যুবকের সাথে ধস্তাধস্তির ঘটনা, এসআই ক্লোজড (ভিডিও)

রিকশা থেকে যুবককে শার্টের কলার ধরে নামানোর পর তার সাথে একাধিকবার ধস্তাধস্তির ঘটনায় পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) যশোমন্ত মজুমদারকে প্রত্যাহার (ক্লোজড) করা হয়েছে। সোমবার (১৯ এপ্রিল) রাতে তাকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ফেনীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আতোয়ার রহমান জানান, ওই যুবক মানসিকভাবে অসুস্থ। কিন্তু তার সঙ্গে দায়িত্বশীল আচরণ না করায় এসআই যশোমন্ত মজুমদারকে ফেনী মডেল থানা থেকে ক্লোজড করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।


আরও পড়ুনঃ


বাঙ্গি: বিনা দোষে রোষের শিকার যে ফল

গালি ভেবে গ্রামের নাম মুছে দিলো ফেসবুক

'টিকায় কিছু হবে না, লাভ যা হওয়ার মদেই হবে'

রাস্তা-ঘাট থেকে শুরু করে শ্বশুড় বাড়িতেও পদ-পদবীর দাপট


একই সঙ্গে ওই ঘটনার সাথে জড়িত অপর দুই পুলিশ সদস্যকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।

গত রোববার (১৮ এপ্রিল) দুপুরে ফেনী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের গেটের সামনে এক যুবকের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মামুনুল হককে নিয়ে ফেসবুকে জিহাদের আহ্বান করায় যুবক গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

মামুনুল হককে নিয়ে ফেসবুকে জিহাদের আহ্বান করায় যুবক গ্রেপ্তার

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারি মামুনুল হককে গ্রেপ্তারের পর ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে জিহাদের আহ্বান করায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলা থেকে শাহীন বিপ্লব (২১) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১৯ এপ্রিল) দিবাগত রাতে উপজেলার বালিদিয়া ইউনিয়নের বড়রিয়া গ্রামের পশ্চিমপাড়ায় নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে ওইদিন সন্ধ্যায় মহম্মদপুর থানায় শাহীনের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করে।

গ্রেপ্তার শাহীন বড়রিয়া গ্রামের শাহজাহান সর্দারের ছেলে। তিনি ফরিদপুর সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ছাত্র ও ছাত্রদলের একজন কর্মী বলে জানা গেছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হককে গ্রেপ্তারের বিরোধিতা করে নিজের ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন শাহীন বিপ্লব। স্ট্যাটাসে বিপ্লব লেখেন -  ‘আল্লামা মামুনুল হককে গ্রেপ্তার করো নাই, হৃদয়ে আঘাত করেছো। আর ছাড় দেওয়া হবে না, এতো বড় দুঃসাহস তোমাদের কে দিয়েছে? এখন শুধু একটি জিহাদের ঘোষণার অপেক্ষায় আছি।’ 

আরও পড়ুন


দেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করলো আইইউবি

নলকূপের পাইপ দিয়ে অনবরত বের হচ্ছে গ্যাস

মামুনুল করলে সমস্যা নেই, বললেই বিরাট সমস্যা: মোজাফ্ফর হোসেন

রাস্তা-ঘাট থেকে শুরু করে শ্বশুড় বাড়িতেও পদ-পদবীর দাপট


পুলিশের ভাষ্যমতে, শাহীন বিপ্লব ১৯ এপ্রিল রাত ৯টা ৪৯ মিনিটে ফেসবুকে জিহাদের আহ্বান প্রকাশ ও প্রচার করেন। তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে কয়েক হাজার উচ্ছৃঙ্খল লোকজন জমায়েত হয়। পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কা ও উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে ফেসবুকের মাধ্যমে মিথ্যাচার করেছেন শাহীন। এজন্য তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়েছে।

মহম্মদপুর থানার পরিদর্শক (ওসি) তারক বিশ্বাস গণমাধ্যমকে বলেন, পুলিশের দায়ের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় শাহীনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর