ঠাকুরগাঁওয়ে এবারও আমের বাম্পার ফলন

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

ঠাকুরগাঁওয়ে এবারও আমের বাম্পার ফলন

এশিয়ার বৃহত্তম আম গাছ ও ঠাকুরগাঁও জেলায় এবারও আমের বাম্পার ফলন হয়েছে। আবহাওয়া এখনো পর্যন্ত অনুকূলে থাকায় আমের গুণগত মান ভালো রয়েছে। 

এলাকার বিস্তীর্ণ মাঠের আম বাগানগুলোতে শোভা পাচ্ছে নানান জাতের আম। যদি কোনও প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হয় তাহলে ভালো ফলন পাওয়া যাবে এবং দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পাঠানো হবে ঠাকুরগাঁও জেলার সুর্যাপুরী আমসহ অন্য প্রজাতির আম। স্থানীয় আমবাগান চাষিরা এমনটাই আশা করছেন।

অপরদিকে জেলা কৃষি অফিস আশা করছে কৃষি প্রধান জেলা ঠাকুরগাঁওয়ে গত বছরের তুলনায় এ বছর আমের আবাদ বেড়েছে। এবার যে ফলন হয়েছে তাতে তাদের লক্ষমাত্রা অর্জিত হয়ে আরো বেশি ফলন পাবা তারা।

জেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাযায়, ঠাকুরগাঁও জেলায় ৫ হাজার ৪শত ৪০ হেক্টর জমিতে সুর্যাপুরী, আম্রপালি, হাড়িভাঙ্গা, গোপালভোগ, ল্যাংড়া, হিমসাগর, আশ্বিনা, বাড়ি-৪ সহ বিভিন্ন প্রজাতির আমের বাগান রয়েছে। এর মধ্যে সুর্যাপুরী ও আম্রপালি আমের বাগান বেশি। এবার ৭৫ হাজার মেট্রিকটন আমের ফলন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:


মহাখালীর সাততলা বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে, সহস্রাধিক ঘর ভস্মীভূত

 যার জন্য বিয়ে করা ফরজ

 মহেশখালীতে পাহাড় ধসে প্রাণ গেল আড়াই বছরের শিশুর

 ঢাকার যেসব মার্কেট বন্ধ আজ


 

জেলার বালিয়াডাঙ্গি উপজেলার হরিণমারী গ্রামে অবস্থিত এশিয়ার সবচেয়ে বৃহৎ ঐতিহ্যবাহী সুর্যাপুরী আম গাছ। ওই গাছের মালিক নুর ইসলাম জানান, তিনটি মৌসুমের জন্য তার সুর্যাপুরী আম গাছটির আমগুলো বিক্রি করেছেন তিন লাখ টাকায়।

সদর উপজেলার মোহাম্মদপুর এলাকার আম বাগান মালিক জামাল উদ্দিন বলেন, আষাঢ় মাসের মাঝামাঝিতে এ জাতের আম পাকা শুরু হবে। আমের শেষ সিজন পর্যন্ত এ গাছের আম থাকে। ১২টি আমগাছে প্রায় ২০ মণ আমের আশা করছেন তিনি।

সদর গিলাবাড়ি এলাকায় ২ একর জমিতে আম্রপালি আমবাগান করেছেন শাহজান-ই-হাবিব। তিনি বলেন, গত বছর অতিরিক্ত বৃষ্টির জন্য আমের ফলন ও দাম পায়নি। তবে চলতি বছর আমের ফলন ভালো হয়েছে। বাগানে প্রায় ৩৫০ মণ আম হবে। যার প্রতি মণ আমের দাম মৌসুমের শুরু থেকেই দুই হাজার পাঁচশত টাকা থেকে তিন হাজার টাকা বিক্রির সম্ভাবনা রয়েছে।

আম ব্যবসায়ীরা জানান, স্থানীয় বাজারে সুর্যাপূরী আম ৫০-১০০ টাকা কেজি, আম্রপালি ৭০-১০০ টাকা কেজি, হাড়িভাটা ৮০-১৫০ টাকা, ল্যাংড়া ১০০-২০০ টাকা, হিমসাগর ৮০-১৫০ টাকা, আশ্বিনা ৫০-১৫০ টাকা এবং বাড়ি-৪ আম ১০০-২৫০ টাকা কেজি দরে প্রতি বছর বিক্রি হয়। তবে গতবারের তুলনায় এবার আমের বাজারজাতকরণ সুবিধা ভালো আছে। আমের দাম আরও বাড়তে পারে।

অন্যদিকে, এশিয়ার বৃহত্তম আম গাছটির আম আগাম কেনার জন্য অনেকেই দুইশত টাকা কেজি দরে গাছের মালিককে দিয়ে রেখেছেন। এই আম গাছটি প্রায় দুইশত বছর পুরনো। প্রায় ১ বিঘা জমি জুড়ে রয়েছে এই আম গাছ।

ঠাকুরগাঁও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক কৃষিবিদ আবু হোসেন বলেন, আমের মুকুল আসার পরে মাঝে কয়েকদিন খরা গিয়েছিল। তখন আমরা মনে করেছিলাম ফলন কম হবে। সেই সমস্যা থেকে উত্তরণের জন্য আমরা কৃষককে পরামর্শ দিয়েছিলাম। এখন বর্তমান যে অবস্থায় রয়েছে তাতে আমরা আশা করছি আমাদের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েও আমরা বেশি ফলন পাবো।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কামরুজ্জামান সেলিম বলেন, বাজারে ভোক্তারা যেন বিষমুক্ত আম খেতে পারে এ জন্য আমরা আমচাষি ও ব্যবসায়ীদের সাথে একাধিকবার মত বিনিময় করেছি। এছাড়াও প্রশাসন সবসময় বাজার মনিটরিং করতেছে যেন ফরমালিন যুক্ত আম বিক্রয় বা বাজারজাত করা না হয়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আম কুড়াতে গিয়ে নারীর মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

আম কুড়াতে গিয়ে নারীর মৃত্যু

রাজশাহীর চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে আম কুড়াতে গিয়ে সাপের কামড়ে সেফালী বেগম (৪০) নামে এক নারীরমৃত্যু হয়েছে।

আজ শনিবার দুপুরে উপজেলার শ্যামপুর ইউনিয়নের একটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৃত সেফালী উপজেলার ওই ইউনিয়নের চামাভান্ডার গ্রামের সরিকুল ইসলামের স্ত্রী।

সরিকুল ইসলাম বলেন, সেফালী ভোরে আম কুড়াতে গেছিলেন। এ সময় একটি বিষাক্ত সাপে তাকে কামড় দিলে স্বজনরা কবিরাজের কাছে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার আরও গুরুতর হলে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

প্রতি উপজেলায় মডেল মন্দির নির্মাণের দাবি

অনলাইন ডেস্ক

প্রতি উপজেলায় মডেল মন্দির নির্মাণের দাবি

দেশের প্রতিটি উপজেলায় মডেল মসজিদের মতো প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মডেল মন্দির নির্মাণের দাবি জানিয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট। শনিবার (১৯ জুন) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) সংবাদ সম্মেলন করে এমন দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

মহাজোটের মহাসচিব গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক বলেন, ‘২০২১-২২ অর্থবছরে হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য জনসংখ্যা অনুপাতে ২ হাজার ২৫৮ কোটি ১০ লাখ টাকা বরাদ্দ করতে হবে এবং অতিরিক্ত ৫ হাজার কোটি টাকার থোক বরাদ্দ দিতে হবে, যা দিয়ে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মডেল মন্দির নির্মাণ করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জন্য চলমান প্রকল্প ও অন্যান্য খাতে ১৫ হাজার ৫৪ কোটি ৩ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। যার মধ্যে সংখ্যালঘুদের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে মাত্র ২৯০ কোটি ৮ লাখ টাকা, যা মোট প্রকল্প বরাদ্দের ১ দশমিক ৯৩ শতাংশ। সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী বাংলাদেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাস দেখানো হয়েছে ১১ দশমিক ৮ শতাংশ। সেই হিসাবে বরাদ্দ থাকার কথা ছিল ১ হাজার ৭৭৬ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।’

অন্যান্য দাবির পাশাপাশি জাতীয় হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক বলেন, রথযাত্রায় এক দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করতে হবে। এছাড়া, হিন্দু ধর্মীয় বিধিবিধানের কোনো ধরনের পরিবর্তন করা যাবে না, করতে দেয়া হবেও না।

সংবাদ সম্মেলনে ‘মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন’ ও ‘বাঁচতে শেখা’ নামে দুটি এনজিওকে হিন্দু ধর্ম ও সমাজবিরোধী আখ্যা দিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও দাবি তোলা হয়।


আরও পড়ুনঃ

চীনের রাস্তায়-গলিতে সরকারদলীয় প্রচারণামূলক বিলবোর্ড

‘নিখিলকে আগেই বলেছিলাম, নুসরাত তোমাকে ঠকাবে’

বিয়ের পিঁড়িতে বসার আগ মূহুর্তে যে কারণে বিয়ে ভেঙে দিয়েছিলেন সালমান

চুরির দায়ে জেলে গেলেন ‘ক্রাইম পেট্রলের’ ২ অভিনেত্রী


এছাড়া, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে জাতীয় সংসদে ৬০টি সংরক্ষিত আসন ও পৃথক নির্বাচন ব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। সংবাদ সম্মেলনে একটি সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠা এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায় থেকে একজনকে পূর্ণ মন্ত্রী নিয়োগের দাবি জানানো হয়।

আগামী ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে এসব দাবি বাস্তবায়নের সুস্পষ্ট ঘোষণা না দিলে হিন্দু সম্প্রদায় সারাদেশের প্রত্যেক জেলা-উপজেলায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলেও ঘোষণা দেন সংগঠনটির মহাসচিব।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

খুলনায় এক সপ্তাহের কঠোর লকডাউন

অনলাইন ডেস্ক

খুলনায় এক সপ্তাহের কঠোর লকডাউন

খুলনা জেলা ও মহানগরীতে আগামী মঙ্গলবার থেকে এক সপ্তাহের জন্য কঠোর লকডাউন ঘোষণা দিয়েছে জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি। শনিবার দুপুরে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সভা শেষে কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মো. হেলাল হোসেন জানান, সম্প্রতি করোনা সংক্রমণের হার ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ায় এ লকডাউন দেওয়া হয়েছে। লকডাউন চলাকালে নিম্নআয়ের মানুষকে প্রয়োজন অনুযায়ী সহযোগিতা করা হবে।

সভায় প্রশাসনের কর্মকর্তা, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাসহ কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

কুষ্টিয়া করোনা পরিস্থিতির অবনতি, ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪

জাহিদুজ্জামান, কুষ্টিয়া:

কুষ্টিয়া করোনা পরিস্থিতির অবনতি, ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪

কুষ্টিয়ায় ভয়াবহ পরিস্থিতির দিকে যাচ্ছে করোনা পরিস্থিতি। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৮৮ নমুনায় রেকর্ডসংখ্যক ১৫৬ জনে করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনার বিপরীতে শনাক্তের হার ৪০ শতাংশ। এই ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের।

করোনা নিয়ন্ত্রণে লকডাউনের আদলে কুষ্টিয়া পৌর এলাকা ও মিরপুর পৌর এলাকায় কঠোর বিধি নিষেধ রয়েছে। কিন্তু মানুষের মধ্যে তা মানার প্রবণতা নেই, প্রশাসনেরও মাণ্য করানোর তৎপরতাও ঢিলেঢালা। কুষ্টিয়ার মানুষ এ ব্যাপারে আরও কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান। 

আরও পড়ুন:


দুর্লভ আবাসিক পাখি ‘জল ময়ূর’

কাপুরুষোচিত হামলা চালিয়ে ইসরাইলি সেনাদের মনোবল চাঙ্গা হবে না: হামাস

বিবস্ত্র করা ছবি তুলে ফাঁদে ফেলে প্রবাসীর স্ত্রী, মামলায় আ.লীগ নেতাও আসামি

‘নিখিলকে আগেই বলেছিলাম, নুসরাত তোমাকে ঠকাবে’


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

কিছুটা নিয়ন্ত্রণে নাটোরের করোনা পরিস্থিতি

নাটোর প্রতিনিধি

কিছুটা নিয়ন্ত্রণে নাটোরের করোনা পরিস্থিতি

কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে নাটোরের করোনা আক্রান্তের হার। করোনার উপসর্গ নিয়ে সদর হাসপাতালে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে গত আক্রান্তের হার ২৩ দশমিক ৫৫ ভাগ। গত ২৪ ঘন্টায় ২৭৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন ৬৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। 

নাটোর সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে নতুন করে ভর্তি হয়েছে আরো ১২জন রোগী। এ নিয়ে সেখানে ৪২ জন করোনা রোগী চিকিৎসা নিচ্ছে। এছাড়া উপসর্গ নিয়ে নাটোর সদর হাসপাতালের ইয়োলো জোনে চিকিৎসাধীন ২২ জনের মধ্যে ২ জন গতরাতে মারা গেছেন। 

দ্বিতীয় দফায় ৭ দিনের বিশেষ লকডাউনের তৃতীয় দিনে বৈরী আবহাওয়ার মাঝেও মানুষের অপ্রয়োজনিয় চলাচল নিয়ন্ত্রণে নাটোর ও সিংড়া পৌর এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে দায়িত্ব পালন করছে পুলিশ।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর