পঞ্চাশোর্ধ জেলায় করোনার উচ্চ সংক্রমণ, ১৪ দিনের ‘শাটডাউন’

অনলাইন ডেস্ক

পঞ্চাশোর্ধ জেলায় করোনার উচ্চ সংক্রমণ, ১৪ দিনের ‘শাটডাউন’

বিশ্বব্যাপী তাণ্ডব চালানো প্রাণঘাতী ভাইরাস করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সারাদেশে ১৪ দিনের ‘শাটডাউন’ দেওয়ার সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) কোভিড-১৯ কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মােহাম্মদ সহিদুল্লাহ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, কোভিড-১৯ রোগের বিশেষ ডেলটা প্রজাতির সামাজিক সংক্রমণ চিহ্নিত হয়েছে ও দেশে ইতোমধ্যেই তার প্রকোপ অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। এ প্রজাতির জীবাণুর সংক্রমণ ক্ষমতা তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণে সারা দেশেই উচ্চ সংক্রমণ ও পঞ্চাশোর্ধ জেলায় অতি উচ্চ সংক্রমণ লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

সভায় আরও বলা হয়, রোগ প্রতিরোধের জন্য খণ্ড খণ্ড ভাবে গৃহীত কর্মসূচির উপযোগিতা প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। অন্যান্য দেশ, বিশেষত পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের অভিজ্ঞতা থেকে জানা যায় কঠোর ব্যবস্থা ছাড়া এ প্রজাতির বিস্তৃতি প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। ভারতের শীর্ষস্থানীয় বিশেষজ্ঞের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের মতামত অনুযায়ী যে সব স্থানে পূর্ণ ‘শাটডাউন’ করা হয়েছে সেখানে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে রোগের বিস্তার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়া ও জনগণের জীবনের ক্ষতি প্রতিরোধ করার জন্য কমিটি সর্বসম্মতিক্রমে সারা দেশে কমপক্ষে ১৪ দিন সম্পূর্ণ ‘শাটডাউন’ দেওয়ার সুপারিশ করছে।

সুপারিশে বলা হয়, শাটডাউন চলা অবস্থায় জরুরি সেবা ছাড়া যানবাহন, অফিস-আদালতসহ সবকিছু বন্ধ রাখা প্রয়োজন। এ ব্যবস্থা কঠোরভাবে পালন করতে না পারলে আমাদের যত প্রস্তুতিই থাকুক না কেনো, সংক্রমণ এভাবে বাড়তে থাকলে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অপ্রতুল হয়ে পড়বে।

সভায় ভ্যাকসিন সংগ্রহের জন্য সর্বাত্মক উদ্যোগ নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হয়। একই সঙ্গে এ রোগ থেকে পূর্ণ মুক্তির জন্য দেশের মোট জনসংখ্যার ৮০ শতাংশের ঊর্ধ্বে ভ্যাকসিনের আওতায় আনা প্রয়োজন বলেও কমিটি মতামত দিয়েছে। এ লক্ষ্যে বিদেশ থেকে টিকা সংগ্রহ, লাইসেন্সের মাধ্যমে দেশে টিকা উৎপাদন করা ও নিজস্ব টিকা তৈরির জন্য সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে গবেষণা করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টার প্রতি কমিটি পূর্ণ সমর্থন জানায়।

কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লাহ বলেন, আমাদের দেশে করোনা সংক্রমণ বেড়ে গেছে। বিশেষ করে পঞ্চাশের অধিক জেলায় ডেলটা ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ অত্যন্ত বেড়ে গেছে। আর এ সংক্রমণ সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

তিনি বলেন, সংক্রমণের পাশাপাশি হাসপাতালে আক্রান্তদের ভর্তি হওয়া ও মৃত্যুর হারও বেড়ে গেছে।

অধ্যাপক সহিদুল্লাহ বলেন, আমরা যদি ভারতের সেই বিপর্যস্ত অবস্থার কথা চিন্তা করি, সেখান থেকে তারা কঠোর লকডাউনের মাধ্যমে ধীরে ধীরে উন্নতির দিকে যাচ্ছে। বিশেষ করে দিল্লি বা মুম্বাইয়ের কথা বলি, যেখানে প্রতিদিন ২৮ হাজারের উপরে মানুষ সংক্রামিত হয়েছে। হাজার হাজার মৃত্যু ঘটেছে। এরপর তারা যখন কঠোর লকডাউনের দিকে গেল বিশেষ করে দিল্লিতে, এখন সেখানে সংক্রমণের হার কোনো কোনো দিন একশর নিচে। কোনো কোনো দিন মৃত্যুও নেই।

এদিকে দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সারাদেশে সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ চলছে। চলতি বছর করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় গত ৫ এপ্রিল থেকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত ঢিলেঢালা লকডাউন হলেও সংক্রমণ আরও বেড়ে যাওয়ায় ১৪ এপ্রিল থেকে ‘কঠোর লকডাউন‘ ঘোষণা দেয় সরকার। পরে সিটি করপোরেশন এলাকায় গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়। তবে দূরপাল্লার বাস, লঞ্চ এবং ট্রেন চলাচল রোজার ঈদ পর্যন্ত বন্ধ ছিল। পরে ২৪ মে থেকে গণপরিবহন চলার অনুমতি দেওয়া হয়। একই সঙ্গে হোটেল-রেস্তোরাঁগুলো আসন সংখ্যার অর্ধেক বসিয়ে খোলা রাখার অনুমতি দেওয়া হয়।

তবে করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সারাদেশে বিধিনিষেধ কয়েক দফা বাড়ানো হয়। সর্বশেষ গত ১৬ জুন বিধিনিষেধ এক মাস বাড়িয়েছে সরকার, যা ১৫ জুলাই পর্যন্ত চলবে।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মোদীর উপহারের ৩০ অ্যাম্বুলেন্স ঢাকা পৌঁছার অপেক্ষায়

অনলাইন ডেস্ক

মোদীর উপহারের ৩০ অ্যাম্বুলেন্স ঢাকা পৌঁছার অপেক্ষায়

স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নে, বিশেষ করে কোভিড-১৯ মোকাবিলার যৌথ প্রচেষ্টায় বাংলাদেশকে ১০৯টি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স উপহার দেওয়ার কথা ছিল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর।

এর মধ্যে ৩০টি অ্যাম্বুলেন্স ইতিমধ্যে পেট্রাপোলে পৌঁছেছে। বেনাপোল স্থল শুল্ক চেকপোস্টে ছাড়পত্র পাওয়ার পর এগুলো শীঘ্রই ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবে।

বাকি অ্যাম্বুলেন্স সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে পৌঁছাবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এই অ্যাম্বুলেন্স কোভিড মহামারী মোকাবিলায় বাংলাদেশ সরকারের ব্যাপক প্রচেষ্টাকে সমর্থন করার উদ্দেশ্যে প্রদান করা হয়েছে।

এই উপহার বাংলাদেশের ভ্রাতৃত্বপূর্ণ জনগণের সহায়তার জন্য ভারতের অব্যাহত এবং দীর্ঘমেয়াদী অঙ্গীকারের প্রতিফলন করে।

পরবর্তী খবর

গাজীপুরে ২৪ ঘণ্টায় ৯ জনের মৃত্যু

মোহাম্মদ আল-আমীন, গাজীপুর

গাজীপুরে ২৪ ঘণ্টায় ৯ জনের মৃত্যু

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে শিল্পাঞ্চলখ্যাত গাজীপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর নতুন করে ২১০ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

৯ জনসহ জেলায় এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৬৪ জনে।

নতুন ২১০ জনসহ আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৬৩৪ জনে।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. খায়রুজ্জামান।

তিনি জানান, ২৪ ঘণ্টায় ৪৬৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। সংগ্রহ করা নমুনা পরীক্ষায় ২১০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে গাজীপুর সদরে ৯০ জন, কালীগঞ্জে ২৫ জন, কালিয়াকৈরে ১৫ জন, কাপাসিয়ায় ৪৮ জন ও শ্রীপুরে ৩২ জন রয়েছেন।

তিনি আরও জানান, এ পর্যন্ত গাজীপুর জেলায় ১লাখ ৮ হাজার ৪১৮ নমুনা পরীক্ষায় ১৯ হাজার ৬৩৪ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে গাজীপুর সদরে ১১ হাজার ৯৫২ জন, কালীগঞ্জে ১৪৪৩ জন, কালিয়াকৈরে ১৯৯৭, কাপাসিয়ায় ১৭০৪ ও শ্রীপুরে ২৫৩৮ জন রয়েছেন।

ডা. মো. খাইরুজ্জামান জানান, নতুন ৯ জনসহ এ পর্যন্ত জেলায় ৩৬৪ জন মৃত্যুবরণ করলেও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৫ হাজার ১৭৫ জন।

আরও পড়ুন:


পরীমনি কাণ্ডে থমথমে ‘সুনসান এফডিসি’

প্রজ্ঞাপন জারি, রোববার ব্যাংক বন্ধ


news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

১ মাসের মধ্যে ১ কোটির বেশি টিকা আসবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

১ মাসের মধ্যে ১ কোটির বেশি টিকা আসবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চলতি মাসেই কোভ্যাক্সের আওতায় ৩৪ লাখ সিনোফার্ম ও ১০ লাখ অ্যাস্ট্রাজেনেকা টিকা আসবে। আর আগামী সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ৬০ লাখ ফাইজার টিকা আসবে। সব মিলে আগামী ১ মাসের মধ্যে ১ কোটি ৪ লাখ টিকা আসবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

আজ বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি এ তথ্য জানান।

আরও পড়ুন:


পরীমনি কাণ্ডে থমথমে ‘সুনসান এফডিসি’

প্রজ্ঞাপন জারি, রোববার ব্যাংক বন্ধ


 

ড. মোমেন বলেন, যেকোনো সময় চীনের সঙ্গে টিকার যৌথ উৎপাদনে এমওইউ সই হবে। সিনোফার্মের কাছে আমরা ৭৫ মিলিয়ন টিকার অর্ডার দিয়েছি। এর মধ্যে ১৫ মিলিয়নের টাকা আমরা দিয়ে দিয়েছি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

মশা নিধনে সামাজিক আন্দোলন গড়তে হবে: আতিকুল

অনলাইন ডেস্ক

মশা নিধনে সামাজিক আন্দোলন গড়তে হবে: আতিকুল

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, সুস্থতার জন্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার মাধ্যমে এডিস মশা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধ করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সকালে রাজধানীর আশকোনা হাজী ক্যাম্প, দক্ষিণখান এলাকায় এডিস মশা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধের লক্ষ্যে মশক নিধনে চিরুনী অভিযান ও জনসচেতনতামূলক কার্যক্রমে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, সুস্থতার জন্য সুস্থ পরিবেশের কোনো বিকল্প নাই, আর সুস্থ পরিবেশ নিশ্চিত করতে হলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম সংক্রান্ত সামাজিক আন্দোলনে সমাজের সর্বস্তরের জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে।

মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, সকলের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে ‌‘দশটায় ১০ মিনিট প্রতি শনিবার, নিজ নিজ বাসাবাড়ি করি পরিষ্কার’ এই স্লোগানটিকে বাস্তবায়ন করতে হবে।

তিনি বলেন, ব্যক্তিগত, সরকারি কিংবা বেসরকারি যেকোনো ভবনেই এডিসের লার্ভার উপস্থিতি পাওয়া গেলে জরিমানাসহ প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত রয়েছে।

নিজেদের বাসাবাড়িতে ফুলের টব, অব্যবহৃত টায়ার, ডাবের খোসা, চিপসের খোলা প্যাকেট, বিভিন্ন ধরনের খোলা পাত্র, ছাদ কিংবা অন্য কোথাও যাতে তিন দিনের বেশি পানি জমে না থাকে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানান মেয়র।

‘নগরবাসীর জন্য ডিএনসিসির ৪৬টি নগর সাস্থ্যকেন্দ্রে বিনামূল্যে ডেঙ্গু জ্বরের পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে’ বলেন মেয়র আতিকুল।

তিনি বলেন, আগামী ৭ই আগস্ট থেকে ১২ আগস্ট পর্যন্ত ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৫৪টি ওয়ার্ডের নির্ধারিত ৫৪টি কেন্দ্রেই বিনামূল্যে কোভিড-১৯ এর টিকা প্রদান করা হবে।

ডিএনসিস মেয়র বলেন, বর্ধিত মহানগরীর নতুন ১৮টি ওয়ার্ডের সড়ক, অবকাঠামো এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থা নির্মাণ ও উন্নয়নের জন্য প্রায় ৪ হাজার ২৬ কোটি টাকার প্রকল্প ইতোমধ্যে একনেকে অনুমোদিত হয়েছে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন এবং দূষণ নিয়ন্ত্রণে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘মাস্ক আমার, সুরক্ষা সবার’, কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধকল্পে আমাদের প্রত্যেককেই সঠিকভাবে মাস্ক পরিধানসহ সরকারি নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যবিধিসমূহ যথাযথভাবে মেনে চলতে হবে।

আরও পড়ুন:


পরীমনি কাণ্ডে থমথমে ‘সুনসান এফডিসি’

প্রজ্ঞাপন জারি, রোববার ব্যাংক বন্ধ


news24bd.tv তৌহিদ       

পরবর্তী খবর

ডিএনসিসি এলাকায় এডিস মশা বিস্তার রোধকল্পে ১০টি মামলা

অনলাইন ডেস্ক

ডিএনসিসি এলাকায় এডিস মশা বিস্তার রোধকল্পে  ১০টি মামলা

এডিস মশা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া বিস্তার রোধকল্পে মোবাইল কোর্টে ১০টি মামলায় ৬ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায়।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় এডিস মশা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া বিস্তার রোধকল্পে মোবাইল কোর্টে ১০টি মামলায় সর্বমোট ৬ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

আজ বৃহ:স্পতিবার ডিএনসিসির ৩ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তৌফিকুর রহমান পরিচালিত মোবাইল কোর্টে ১টি মামলায় ২০ হাজার টাকা, ৪ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সালেহা বিনতে সিরাজ পরিচালিত মোবাইল কোর্টে ৪টি মামলায় ১৮ হাজার টাকা, ৫ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাসুদ হোসেন ও যতন মার্মা পরিচালিত মোবাইল কোর্টে ১টি মামলায় ১ লক্ষ টাকা, ৭ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোতাকাব্বীর আহমেদ পরিচালিত মোবাইল কোর্টে ১টি মামলায় ৫ লক্ষ টাকা এবং ১০ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ শহিদুল ইসলাম পরিচালিত মোবাইল কোর্টে ৩টি মামলায় ১৭ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এভাবে মোট ১০টি মামলায় আদায়কৃত জরিমানার সর্বমোট পরিমাণ ৬ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা।

এসময় মাইকিং করে জনসচেতনতামূলক বার্তা প্রচার করা হয় এবং সকলকে এডিস মশা এবং ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে ডিএনসিসি মেয়রের আহবান 'তিন দিনে এক দিন, জমা পানি ফেলে দিন' এই নীতি  মানার পাশাপাশি ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশনাসহ স্বাস্থ্যবিধিসমূহ যথাযথভাবে মেনে চলার পরামর্শ দেয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ


১১ আগস্ট থেকে খোলা থাকবে সবকিছু

পরীমণি নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য বিভিন্ন অশ্লীল ভিডিও তৈরি করতো : র‌্যাব

পরীমনি ও প্রযোজক রাজের বিরুদ্ধে হচ্ছে ৩ মামলা

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে ট্রেন: টিকিট বিক্রি অনলাইনে


news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর