খুলনা মাউশির উপ-পরিচালকের স্বামী খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক

খুলনা মাউশির উপ-পরিচালকের স্বামী খুন

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) খুলনা অঞ্চলের উপ-পরিচালক নীভা রানি পাঠকের স্বামী অরুন কুমার রায়কে (৭২) গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মৃত অরুন কুমার রায় অবসরপ্রাপ্ত বেসরকারি কলেজের শিক্ষক ছিলেন।

নড়াইল সদর উপজেলার বেনাহাটি গ্রামে নিজ বাড়িতে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে হত্যার বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

গ্রামবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, অবসরপ্রাপ্ত কলেজশিক্ষক অরুন সদর উপজেলার তুলারামপুর ইউনিয়নের বেনাহাটি গ্রামে একা বসবাস করতেন।

তার এক ছেলে প্রকৌশলী এবং এক মেয়ে চিকিৎসক। চাকরির সুবাদে স্ত্রী ও ছেলে-মেয়ে জেলার বাইরে অবস্থান করতেন। তারা মাঝেমধ্যে ছুটিতে বাড়ি আসতেন।

শুক্রবার সারাদিন অরুনের কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে সন্ধ্যার পর নীভা রানি পাঠক ও তার ছেলে ইন্দ্রজিৎ রায় বাড়িতে এসে মই বেয়ে দোতলা ভবনের দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করেন।পরে তিনি চেয়ারের ওপর গলা কাটা অবস্থায় অরুনের মরদেহ দেখতে পায়।

স্থানীয়রা জানান, খুলনা মাউশির উপ-পরিচালক নীভা রানি পাঠকের স্বামী অরুনকে দিনভর খুঁজে না পেয়ে সন্ধ্যা ৭টার পর নড়াইল কোতোয়ালি থানায় জানায় স্থানীয়রা।


আরও পড়ুন: ব্যারিস্টার রফিকুল হক আর নেই


শুক্রবার রাত আনুমানিক ৮টার দিকে পুলিশ এসে বন্ধ ঘরের দরজা ভেঙে ঘরের মেঝে থেকে অরুনের গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার করে।

তুলারামপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান বুলবুল আহম্মেদ বলেন, বাড়িতে অরুন একাই থাকতেন। আর কেউ থাকতেন না।

এ ঘটনা শুক্রবার রাতে ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে নড়াইল সদর সার্কেলের এএসপি শেখ ইমরান হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এই মুহূর্তে হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে কিছু বলতে পারছি না।

তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে।
নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস হোসেন বলেন, খবর পেয়ে রাত ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছাই।

দুর্বৃত্তরা অরুন কুমার রায়কে গলা কেটে হত্যা করেছে। তবে কী কারণে তারা এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে সে ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv কামরুল

 

মন্তব্য