১৭ দিন ধরে আটকে রেখে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

১৭ দিন ধরে আটকে রেখে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

ধামরাইয়ে অপহরণের পর ১৭ দিন ধরে আটকে রেখে নবম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে স্থানীয় এক ইউপি মেম্বারের ভাতিজা। ওই স্কুলছাত্রী কাটাবই গ্রামের বাসিন্দা। অপহরণকারী ধর্ষক ইউপি মেম্বারের ভাতিজা আব্দুল আলীকে গ্রেপ্তার করেছে ধামরাই থানা পুলিশ।

বুধবার সকালে অপহরণকারী ওই ধর্ষকের গোপন আস্তানা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ব্যাপারে আদালতের নির্দেশে ধামরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২ জানুয়ারি রাত ৯টার দিকে টয়লেটে যাওয়ার জন্য ঘর থেকে বাইরে বের হয়। এ সময় বাইরে ওঁতপেতে থাকা ইউপি মেম্বার সোলাইমান হোসেনের ভাতিজা ও কাটাবই গ্রামের মানসুর রহমানের বখাটে ছেলে আব্দুল আলী দলবল নিয়ে ওই স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে। এরপর একটি গোপন আস্তানায় আটকে রেখে ১৭ দিন ধরে ধর্ষণ করে। বিষয়টি এলাকায় কানাঘুষা হতে থাকলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ শাহআলমের চাপে অপহরণকারী আব্দুল আলী ধর্ষিতা ওই স্কুলছাত্রীকে মঙ্গলবার রাতে গ্রামের রাস্তার পাশে হাত-পা ও মুখ বেঁধে ফেলে রেখে যায়।

পথচারিরা দেখতে পেয়ে ওই স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। তার দেয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আদালতে এ ব্যাপারে ওই ধর্ষকের বিরুদ্ধে পিটিশন করা হয়। আদালত থেকে এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের নির্দেশ দেয়া হলে ধামরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের হয়।


আরও পড়ুন: দেশে পৌঁছেছে ভারতের উপহার ২০ লাখ ডোজ টিকা


ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ শাহআলম বলেন, ওই স্কুলছাত্রীকে রাতের আঁধারে রাস্তায় ফেলে রেখে যায় ধর্ষক ওই অপহরণকারী। এরপর এ ব্যাপারে মামলা দায়ের হলে বুধবার সকালে ওই ধর্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ধর্ষিতার পিতা বলেন, আমার মেয়েকে উদ্ধারের পর তার দেয়া জবানবন্দি মোতাবেক আদালতের নির্দেশে থানায় মামলা দায়ের হয়। এরপর বুধবার সকালে পুলিশ ওই অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করে।

উপ-পুলিশ পরিদর্শক(এসআই) নুর মোহাম্মদ বলেন, গোপন খবরের ভিত্তিতে বুধবার সকালে অপহরণকারী ওই ধর্ষককে গ্রেপ্তার করি। তাকে আদালতে প্রেরণ করা হলে বিচারক তার জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

শিশু গৃহকর্মী নির্যাতন: চিকিৎসক ও তার স্ত্রীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে বরিশালে মামলা

রাহাত খান, বরিশাল

শিশু গৃহকর্মী নির্যাতন: চিকিৎসক ও তার স্ত্রীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে বরিশালে মামলা

ঢাকায় শিশু গৃহকর্মী নিপা বাড়ৈ (১১) নির্যাতনের ঘটনায় গৃহকর্তা ঢাকার জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালের অর্থপেডিক্স ও ট্রমা বিশেষজ্ঞ ডা. সিএইএস রবিন, তার স্ত্রী রাখি দাস এবং তাদের সহযোগী বাসু দেবসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে বরিশালে মামলা দায়ের হয়েছে।

শিশুটির চাচা তপন বাড়ৈ বাদী হয়ে আজ শনিবার সকালে শিশু নির্যাতন দমন আইনে বরিশালের উজিরপুর থানায় এই মামলা দায়ের করেন। এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন উজিরপুর থানার ওসি জিয়াউল আহসান। মামলার আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি।

শিশু নিপা বাড়ৈ (১১) উজিরপুরের জামবাড়ি এলাকার মানসিক প্রতিবন্ধি ননী বাড়ৈর মেয়ে। তার মা ২ বছর আগে অন্যত্র বিয়ে করে। ২ বোন ও এক ভাইয়ের মধ্যে নিপা মেঝ। 

অভাবের সংসারে বেঁচে থাকার জন্য গত ৬ মাস আগে ঢাকার জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালের অর্থপেডিক্স ও ট্রমা বিশেষজ্ঞ ডা. সিএইএস রবিনের শ্যামলীর বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ শুরু করে নিপা। এরপর বিভিন্ন সময় চিকিৎকের স্ত্রী রাখি দাস নানা অজুহাতে তার উপর শারীরিক নির্যাতন করতো। কখনও গরম খুতির ছ্যাকা, কখনও ছুরির খোঁচা আবার কখনও দেয়ালে ঠোকা হতো তার মাথা।

আরও পড়ুন:


হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে আতঙ্কিত বুবলীর থানায় জিডি

আলজাজিরার প্রতিবেদন নিয়ে চিন্তার কিছু নেই: প্রধানমন্ত্রী

কেউ অসুস্থ হয়ে মারা গেলে কি করার আছে?: প্রধানমন্ত্রী

মিছিল থেকে গ্রেপ্তার সাতজনের বিরুদ্ধে পুলিশের ‘হত্যাচেষ্টা’ মামলা


কখনও তার গলা চেপে শ্বাস রোধ করার চেষ্টা করতো গৃহকর্তার স্ত্রী। অব্যাহত নির্যাতনে সে গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে নির্যাতনকারী লোক মারফত গত (২৪ ফেব্রুয়ারি) বুধবার সন্ধ্যায় তাকে ঢাকা থেকে উজিরপুরের জামবাড়ি তার গ্রামের বাড়ির কাছে একটি দোকানের সামনে ফেলে যায়।

পুলিশ তাকে উদ্ধার করে ওই রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরদিন বৃহস্পতিবার রাতেই তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে যাওয়ার চেস্টা করে তার স্বজনরা। কিন্তু শিশুটি অসুস্থ্য থাকায় চিকিৎসকরা তাকে ছাড়পত্র দিতে রাজী হচ্ছিলেন না। শুক্রবার ভোররাতে শিশুটিকে নিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে লাপাত্তা হয় তার স্বজনরা।

এ ঘটনায় শুক্রবার সকাল ১১টায় উজিরপুর থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেন উজিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. শামসুদ্দোহা তৌহিদ। নিখোঁজের ২৩ ঘন্টা পর আজ শনিবার ভোর ৪টার দিকে পাশবর্তী আগৈলঝাড়া উপজেলার আশোয়ার গ্রামের জনৈক বিমলের বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে নিপাকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে এই মামলা রুজু করে পুলিশ।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পিতার স্পর্শকাতর স্থান চেপে ধরল ছেলে, বাবার মৃত্যু

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:

পিতার স্পর্শকাতর স্থান চেপে ধরল ছেলে, বাবার মৃত্যু

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার রানীহাটি ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর হাট এলাকায় বখাটে ছেলে সুজনের (২৫) হাতে পিতা তরিকুল ইসলাম (৫৫) খুন হয়েছেন। নিহত তরিকুল ইসলাম হচ্ছেন একই এলাকার মৃত আহসান আলীর ছেলে। 

ঘটনাটি ঘটেছে আজ শনিবার বিকেল ৩টার দিকে তরিকুল ইসলামের নিজ বাড়িতে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। 


চরমোনাই মাহফিল থেকে ফেরার পথে দুই নৌকা ডুবি

চুয়াডাঙ্গায় নারীর রহস্যজন মৃত্যু, শাশুড়ি আটক

অতিরিক্ত পাথর বোঝাই ট্রাকের চাপে বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

অন্য পুরুষের সাথে সম্পর্ক নিয়ে সন্দেহ, স্ত্রীকে খুন


স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তরিকুল ইসলামের বখাটে ছেলে সুজন তার পিতা তরিকুল ইসলামের কাছে ট্রলি কেনার জন্য টাকা চাইলে তিনি টাকা দিতে অপারগতা স্বীকার করেন। এ নিয়ে বিকেল ৩টার দিকে সুজন তার পিতার সাথে বচসায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে সুজন তার পিতার স্পর্শকাতর স্থান চেপে ধরলে তরিকুল অজ্ঞান হয়ে পড়েন। 

এ সময় তাকে পানি পান করানো হলে তিনি মুত্যুকোলে ঢলে পড়েন। খবর পেয়ে সদর মডেল থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে। সদর মডেল থানার ওসি মো. মোজাফ্ফর হোসেন মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়া গেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। তবে সুজন পলাতক রয়েছে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দুই বোনের সঙ্গে এক প্রেমিকের শারীরিক সম্পর্ক অতঃপর...

অনলাইন ডেস্ক

দুই বোনের সঙ্গে এক প্রেমিকের শারীরিক সম্পর্ক অতঃপর...

প্রতীকী ছবি

দুই বোনের প্রেমিক ছিলেন একজন। পরবর্তীতে প্রেমিকের প্রতরণার বিষয়টি বুঝতে পেরে দুই বোন আত্মহত্যা করে। রংপুরে খালাতো দুই বোনের আত্মহত্যার তিন বছর পর প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করেছে পিবিআই (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন)।

পিবিআই-এর তদন্তে জানা যায়, খালাতো দুই বোন সাদিয়া জান্নাতি ও লৎফুন্নাহার খাতুনের সঙ্গে প্রতিবেশী মেরাজুল নামের এক যুবকের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দুজনের সঙ্গেই শারীরিক সম্পর্ক করেন মেরাজুল। পরে প্রতারণার বিষয়টি বুজতে পেরে একই সঙ্গে বিষপান করে আত্মহত্যা করে জান্নাতি ও লুৎফুন্নাহার। এ ঘটনায় মেরাজুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই।


চরমোনাই মাহফিল থেকে ফেরার পথে দুই নৌকা ডুবি

চুয়াডাঙ্গায় নারীর রহস্যজন মৃত্যু, শাশুড়ি আটক

অতিরিক্ত পাথর বোঝাই ট্রাকের চাপে বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

অন্য পুরুষের সাথে সম্পর্ক নিয়ে সন্দেহ, স্ত্রীকে খুন


পিবিআই রংপুরের পুলিশ সুপার জাকির হোসেন জানান, ওই ঘটনায় মেরাজুল ইসলাম নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) তিনি আদালতের কাছে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। জবানবন্দিতে ত্রিভূজ প্রেমের করুণ পরিণতির এ ঘটনা উঠে আসে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পুলিশের অভিযানে সাত চোরাই মোটরসাইকেলসহ চার জন গ্রেপ্তার

শেখ সফিউদ্দিন জিন্নাহ্, গাজীপুর

পুলিশের অভিযানে সাত চোরাই মোটরসাইকেলসহ চার জন গ্রেপ্তার

গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ সতটি চোরাই মটারসাইকেল উদ্ধার করেছে। এসময় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। 

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, ঢাকার আশুলিয়া থানার উত্তর গাজীর চট এলাকার সামু মিয়ার ছেলে দূর্জয় ওরফে সুজন (২৮), লক্ষীপুরের রায়পুর থানার মধ্য কেরুয়া এলাকার ইলয়াস ওরফে জহির আলমের ছেলে মো. হারুন অর রশিদ (৩৫), তার ভাই মো. আল আমিন (৩০) এবং নরসিংদীর রায়পুর থানার হাসনাবাদ এলাকার মো. হেলাল মিয়ার ছেলে মো. রাজীব (২০)।


 

৮ মাসের মধ্যে স্বর্ণের দাম সর্বনিম্ন

‘নিষেধাজ্ঞা না তুললে আইএইএ’র ক্যামেরা খুলে ফেলা হবে’

পানির নিচের অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেন টাইটানিকের সেই নায়িকা

কে এই রূপবতী তুলসী, যার গানের ভিউ ১০ কোটি ছাড়ালো (ভিডিও)


গাজীপুর জিএমপি কোনাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু সিদ্দিক জানান, ২২ ফেব্রুয়ারি কোনাবাড়ি বিসিক এলাকায় একটি মোটরসাইকেল চুরির মামলার তদন্ত করতে গিয়ে গত তিনদিন অভিযান চালিয়ে থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ শাখাওয়াত ইমতিয়াজ চারজনকে গ্রেপ্তার করে। 

পরে তাদের দেয়া তথ্যমতে গাজীপুরের কাশিমপুর, কালিয়াকৈর, শ্রীপুর, ঢাকার আশুলিয়া, ময়মনসিংহের ভালুকা ও ফুলবাড়িয়া এলাকায় অভিযান চালানো হয় এবং তাদের হেফাজত থেকে সাতটি চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়।

news24bd.tv/আয়শা
 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পুলিশে রক্ষা পরকীয়ার থাবা থেকে একটি সংসার

অনলাইন ডেস্ক

পুলিশে রক্ষা পরকীয়ার থাবা থেকে একটি সংসার

নতুন প্রেমিকার টানে স্ত্রী ও শিশুসন্তানকে ফেলে নিখোঁজ হন স্বামী মো. ইমরান আকন। কিন্তু স্ত্রী ফেসবুকে পুলিশের সহায়তা চাইলে পুলিশ স্বামীকে খুঁজে বের করে। 

শুক্রবার এমটাই জানিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশের এআইজি (মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স) মো. সোহেল রানা এসব জানান।

তিনি জানান, রাজধানীর লালবাগ এলাকায় ভাড়া বাসায় স্ত্রী ও এক শিশু সন্তান রেখে নিখোঁজ হন স্বামী মো. ইমরান আকন। কাউকে কিছু না বলে নিখোঁজ হওয়ায় বাংলাদেশ পুলিশের মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং পরিচালিত ‘বাংলাদেশ পুলিশ অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজ’ এর ইনবক্সে স্বামীর সন্ধান চেয়ে মেসেজ পাঠান তার স্ত্রী।  এর পর মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং তাৎক্ষনিকভাবে লালবাগ থানার ওসি কে নির্দেশ দেন ইমরানকে খুঁজে বের করতে। 


নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কে?

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল

অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে


 

পরে পুলিশের পুলিশের সহায়তায় পরকীয়ায় আসক্ত স্বামীকে পরিবারে ফিরে পেয়েছেন এক নারী।  শুক্রবার বাংলাদেশ পুলিশের এআইজি (মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স) মো. সোহেল রানা এসব জানান।

পুলিশ জানায়, ৪ ফেব্রুয়ারি পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং পরিচালিত ‘বাংলাদেশ পুলিশ অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ’-এর ইনবক্সে এক নারী মেসেজ পাঠান। মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং এই বিষয়ে তাৎক্ষণিক লালবাগ থানার ওসি এম আশরাফ উদ্দিনকে অবগত করে। নির্দেশনা দেওয়া হয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের। একই সঙ্গে ভদ্রমহিলাকে পরামর্শ দেয় থানায় যেতে। ওই নারীর দেওয়া সম্ভাব্য সব তথ্য বিশ্লেষণ করে এবং তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানা এবং সিদ্ধিরগঞ্জ থানার একাধিক স্থানে ওই ব্যক্তির অবস্থান দেখা যায়। 

২৫ ফেব্রুয়ারি স্বামী ইমরান আকনকে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানা এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়। 

পরে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ইমরান আকন অন্য এক মেয়ের সঙ্গে পরকীয়ায় লিপ্ত ছিল। তাই তিনি নতুন প্রেমিকার টানে স্ত্রী ও শিশুসন্তানকে ফেলে চলে যান। অবশেষে নারী ও তার স্বামীর ইচ্ছা ও সহযোগিতায় এবং কোতোয়ালি থানা পুলিশের মধ্যস্থতায় বিষয়টি মীমাংসা হয়। ইমরান আকন বর্তমানে তার স্ত্রী ও সন্তানের সঙ্গে রয়েছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর