ওবায়দুল কাদের পদের জন্য আত্মসমর্পণ করেছেন : মির্জা কাদের

নোয়াখালী প্রতিনিধি

ওবায়দুল কাদের পদের জন্য আত্মসমর্পণ করেছেন : মির্জা কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্যে করে তার ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, আপনি পদের জন্য আমাকে বলেন, আমার পদ কি খাবি তুই? আপনি পদের জন্য আত্মসমর্পণ করেছেন। আমি করবো না। 

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার নবনির্বাচিত আলোচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বুধবার রাতে কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট সরকারি মুজিব কলেজ মাঠে উপজেলা নাগরিক কমিটি আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধণার জবাবে এসব কথা বলেন। 

কাদের মির্জা বলেন, আমরা কি রাজাকার পরিবার? ওবায়দুল কাদের সাহেব, আপনি কিভাবে সারেন্ডার করলেন? কিভাবে নিজের আত্মসম্মানকে বিকিয়ে দিলেন? আমি দেবো না। আমার আব্বা কি রাজাকার? ওবায়দুল কাদের সাহেব কিভাবে মানলেন?  এখন যদি আমরা বলি, বললে বলবে সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপে লিপ্ত! 

আবদুল কাদের মির্জা নোয়াখালী ৪ আসনের এমপি একরামুল করিম চৌধুরী প্রসঙ্গে বলেন, লাইভে এসে একরামুল করিম চৌধুরী কী বললো? ওবায়দুল কাদেরের পরিবারে রাজাকার। আমার বাবা নীতিনৈতিকতা নিয়ে শিক্ষকতা করেছেন। অনেক কষ্টে আমাদের একটি বড় পরিবার চালাতেন। আপনি পদের জন্য আত্মসমর্পণ করেছেন। আমি করবো না। এই একরামুল করিম চৌধুরী অপরাজনীতির হোতা তাকে নোয়াখালী জেলা কমিটি থেকে বহিস্কার করা না হয় ততক্ষণ পর্যন্ত আন্দোলন চালাবো। 

 

করোনার মধ্যেও অ্যাপল রাজত্ব

পাঁচ সিনেমা থেকে বাদ পড়লেন দীঘি

জীবন রক্ষাকারী টিকা নিয়ে গুজব ছড়াবেন না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তিনি বলেন, আপনারা ঢাকায় বসে বসে সেখানে তেল মালিশ করবেন? আর গ্রামের নেতারা সারাজীবন কষ্ট করবে। কিছু কিছু সুবিধাবাদী যারা তেল মারতে পারে তারা আজকে সুবিধা আদায় করছে। 

এরপর তিনি বলেন, আগামি রোববারের হরতালে একটা পাখিও উড়তে দেয়া হবে না। এসময় তিনি সবাইকে ঘর থেকে বেরিয়ে এই অপশাসন ও দু:শাসনের বিরুদ্ধে, অপরাজনীতির বিরুদ্ধে কথা বলবো।   

তিনি বলেন ‘আমার প্রয়োজন নেই কে আসলো কে আসলো না, ভার্চুয়াল প্রোগ্রাম দিয়ে যারা আসেনি, তারা তারা অপরাজনীতির কাছে আজকে মাথা নত করেছে। আমি তাদের ঘৃণা করি, ঘৃণা করি, ঘৃণা করি। অপরাজনীতির কাছে তারা আত্মসমর্পণ করেছে। আমার প্রয়োজন নেই কোনো নেতার। দল থেকে বহিস্কার করবেন? কওে দেন। আমরা বঙ্গবন্ধুর কথা বলবো। আমরা শেখ হাসিনার উন্নয়নের কথা বলবো।’

তিনি বলেন, আজকে কষ্ট লাগে, আমি অপরাধী। আমি অপরাজনীতির বিরদ্ধে কথা বলেছি।  আমি টেন্ডারবাজীর বিরদ্ধে কথা বলেছি।  আমি চাকরী বাণিজ্যেও বিরদ্ধে কথা বলেছি।  আমি প্রশাসনের উপর প্রভাব খাটিয়ে অনিয়মের কথা বলেছি। আমি বলেছি অস্ত্রবাজীর বিরুদ্ধে, ভোট ডাকাতির বিরুদ্ধে। আমি বলেছি আমার ভোট আমি দেবো যাকে ইচ্ছা তাকে দেবো। এই কথাগুলোর জন্য আমাকে কেউ কেউ অপরাধী মনে করে। কিন্তু কি অপরাধ করেছে আমার ভোটারেরা? আজকে আমাদেও নেতা দায়সারাগোছের আমকে অভিনন্দন জানিয়েছে। ধন্যবাদ জানিয়েছে। 

তিনি বলেন, আজকে মন ভারাক্রান্ত, আমি অপরাধ করতে পারি. আমার কথায় হয়তো বা কেউ কেউ বিব্রত হতে পারেন, কিন্তু কি অপরাধ করেছি আমারন ভোটাররা, যে ভোটারদের অনেক কষ্ট করে আমি কেন্দ্রে এনেছিলাম এ দেশের ভোটাররা আজকে ভোট বিমুখ, তারা ভোট দিতে আসেনা।   ৪টার পরও অনেক মহিলা ছিলো কেন্দ্রে। স্বত:স্ফুর্ত নির্বাচন, আমার মনে হয় বাংলাদেশের ইতিহাসে এটাই প্রথম, এটা আমার কথা নয়। এটা আমাদেও মিডিয়া কর্মীদেও কথা। তারাই বলেছে। 

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, আমাদেও দল থেকে আমি অপরাধীকে অভিনন্দন জানালেন না। কী অপরাধ করেছে আমার ভোটারেরা, তাদেরকে একটা অভিনন্দন জানালেন না! 

আবদুল কাদের মির্জা বলেন, আজকে শুধু তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাবো যারা আমাদেও নির্বাচনের শুরু থেকে আজ অবধি আমি যে সাহস কওে সত্য কথা বলেছি আমি যে অন্যায় অবিচার আর অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা বলেছি, সেই কথাগুলো বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে, প্রচামাধ্যমে তুলে ধরেছেন সেই মিডিয়ার সদস্যদেও প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করবো।

নাগরিক সংবর্ধণা কমিটির সভাপতি ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগ খিজির হায়াত খান, সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী, সিনিয়র সহসভাপতি ইস্কান্দার বাবুল যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমিকলীগের নেতৃবৃন্দ। 

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

লকডাউনে বিএনপির নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করছে সরকার: মির্জা ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক

লকডাউনে বিএনপির নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করছে সরকার: মির্জা ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, লকডাউনের ভেতর দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিএনপির নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করছে সরকার।

লকডাউনের মধ্যে ক্র্যাক ডাউনে নেমেছে সরকার। অবিলম্বে গ্রেপ্তারকৃত বিএনপি নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবি জানান তিনি।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন


বিশ্বে একদিনে করোনায় ১৩৫৩২ জনের মৃত্যু

হেফাজতের আরেক সহকারী মহাসচিবকে আটকের অভিযোগ

তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ার নিয়ম, সময় ও রাকাআত

খালেদা জিয়াকে জাপানের রাষ্ট্রদূত ও পাকিস্তান হাইকমিশনারের চিঠি


news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিএনপি জনগণ ও পুলিশকে প্রতিপক্ষ বানিয়েছে: ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপি জনগণ ও পুলিশকে প্রতিপক্ষ বানিয়েছে: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন বিএনপি তাদের ব্যর্থ রাজনীতি ঢাকতে জনগণ ও পুলিশকে প্রতিপক্ষ হিসেবে বেছে নিয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে মন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ মন্তব্য করেন। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনা সরকার জনগণের সরকার, জনগণের জন্যই শেখ হাসিনার প্রতিটি কর্মসূচি। সরকার নয়, বিএনপিই জনগনকে তাদের প্রতিপক্ষ বানিয়ে প্রতিশোধ নিচ্ছে। তাদেরকে জনগণ ভোট দেয় না বলে সহিংসতা করে এখন জনগণের জানমালের ক্ষতি করছে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ২৬ মার্চ বিএনপির উসকানিতে হেফাজতে ইসলাম যে তান্ডব চালিয়েছিল, তার ১৮ দিন পরে গত মঙ্গলবার বিএনপি বলছে ২৬ মার্চ সহিংসতার ঘটনা পরিকল্পিত, এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকও তাই মনে করেন। বলেন, সে দিনের এবং পরবর্তী ঘটনাবলী দেশকে অস্থিতিশীল করার এক গভীর চক্রান্ত ছিল এবং তা ছিল পরিকল্পিত।

তিনি বলেন এ পরিকল্পনায় স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তিকে উসকানি দিয়েছে বিএনপি এবং এ তাণ্ডবলীলা বিএনপি ও তার দোসরদের পূর্বপরিকল্পিত। বিএনপি হঠাৎ গত মঙ্গলবার উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপানোর হাস্যকর অপচেষ্টা করেছে বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। 

তিনি বলেন এদেশের রাজনীতিতে কে কাকে পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে যাচ্ছে তা এখন দিবালোকের মতো স্পষ্ট, শাক দিয়ে মাছ ঢেকে কোন লাভ নেই কারণ জনগণের কাছে সবকিছুই আজ স্পষ্ট। 

বিএনপি'র ডাবল স্ট্যান্ডার্ড নীতি সম্পর্কে এদেশের জনগণ ভালো করেই জানে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন তারা বলেছে কেউ লকডাউন মানছে না,কার্যকর হচ্ছে না, অথচ এখন সরকার সর্বাত্মক লকডাউন দেওয়ার পর বলছে সরকার লকডাউনের নামে শাটডাউন দিয়ে মানুষকে কষ্ট দিচ্ছে। তিনি বিএনপির এমন দ্বিচারিতা রাজনীতির মাঠ থেকে তাদেরকে জনগণ দুরে সরিয়ে দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেন। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির নীতি হচ্ছে সরকার যা করবে, ভালো মন্দ যাচাই না করে তার বিরুদ্ধে বলতে হবে এবং তারা তোতাপাখির মত তাই করে যাচ্ছে। বিএনপির সুবিধাবাদী রাজনৈতিক চরিত্র অনেক আগেই জনগণের কাছে স্পষ্ট হয়ে গেছে, তাই তারা রাজনীতিতে দিন দিন অপ্রাসঙ্গিক হয়ে পড়ছে বলে মনে করেন তিনি।

আরও পড়ুন


দ্বিতীয় দিনে ঢাকার রাস্তায় মানুষের চলাচল বেড়েছে

আমি একদিন গাছ হবো!

সবচেয়ে বরকতময় ও মর্যাদাপূর্ণ রমজান মাস

আবদুল মতিন খসরুর সম্মানে সুপ্রিম কোর্ট বসছে না আজ


করোনা সংকটে রাজনৈতিক ভাবে কাউকে আক্রমণ করার চিন্তা নেই এবং পারস্পরিক দোষারোপ করোনা সংকটকে আরে ভয়াবহ করে তুলবে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন এ দোষারোপের রাজনীতি থেকে এ মূহুর্তে বের হয়ে আসতে হবে।

করোনা নিয়ে এখন কারো রাজনীতি করা সমীচীন নয় জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি আসলে কিছু কিছু উদ্ভট অভিযোগ করে, তার জবাব আওয়ামী লীগকে দিতে হয়। বিএনপি যদি আজ এই মহামারির সময়ে প্ল্যান গেমের রাজনীতি থেকে নিজেদের বিরত রাখে সেটাই জনগণের জন্য শুভ বলে মনে করেন তিনি।

বিএনপিকে অহেতুক সরকার বিরোধীতার নামে করোনা সংকটে রাজনৈতিক অপপ্রচার বন্ধ রাখার আহবান জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। বেগম খালেদা জিয়ার করেনা আক্রান্ত নিয়ে জনগণ শঙ্কায় আছে কারণ এ নিয়ে বিএনপি আবার কখন কোন অপরাজনীতি শুরু করে। 

টেমস নদীর পাড়ে বসে বাংলাদেশের মানুষের চোখের ভাষা, মনের ভাষা বোঝা সম্ভব নয়,তাই বিএনপির রাজনীতি এখন হাওয়া থেকে পাওয়া জনবিরোধী উপাদান নির্ভর তৎপরতায় পূর্ণ বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আলেম-ওলামাদের মিথ্যা মামলা ও হয়রানির অভিযোগে হেফাজতের বিবৃতি

নিজস্ব প্রতিবেদক

আলেম-ওলামাদের মিথ্যা মামলা ও হয়রানির অভিযোগে হেফাজতের বিবৃতি

দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশ বরেণ্য ওলামা-মাশায়েখরা বিবৃতি প্রদান করেছেন। বিবৃতিতে তারা বলেছেন, গত ২৬, ২৭ ও ২৮ মার্চ পরিস্থিতির পরবর্তী হালত দেশবাসীর সামনে স্পষ্ট। দেশের আলেম-ওলামাদের বিরুদ্ধে যেভাবে মিথ্যাচার ও মানহানিকর অবস্থা করা হচ্ছে। এতে মনে হচ্ছে আলেম-ওলামা কোন ভিনদেশী নাগরিক। এই পরিস্থিতি চলতে থাকলে কেউই আল্লাহর পাকড়াও থেকে রেহাই পাবে না। 

নিরীহ মাদ্রাসার ছাত্র শিক্ষকদের উপর অন্যায় ভাবে গুলি চালিয়ে শহীদ করে দেওয়া এবং শত শত নিরাপরাধ মানুষকে জীবনের তরে পঙ্গু করে দেওয়া হচ্ছে, আবার তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে গ্রেফতার ও হয়রানি করা হচ্ছে। 

শুধু তাই নয় আমিরে হেফাজত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে নতুন করে মিথ্যা হত্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে। হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন রাজি, মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানী, মাওলানা ইলিয়াস হামিদী, মুফতি শরীফ উল্লাহ ও মুফতি বশির উল্লাহসহ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ৪জন, ভোলায় ৭জন, সিলেটে ৭জন, গাজীপুরে ৪ জন, নরসিংদীতে ১ জনকে ডিবি অফিসে হয়রানি ও গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে।

আমরা তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি, এহেন পরিস্থিতিতে ওলামা-মাশায়েখসহ দেশবাসী গভীরভাবে উদ্বেগ্ন ও উৎকণ্ঠিত। আল্লাহপাক কোন জালেমকে ছেড়ে দেন না, আল্লাহর গজব থেকে রক্ষা পেতে হলে, এই ধরণের অমানবিক কর্মকাণ্ড বন্ধ করুন।

তারা বলেন, বর্তমান সরকার দলীয় প্রশাসন ভিন্ন মতাবলম্বীদের জন্য দেশটাকে একটি কারাগারে পরিণত করে রেখেছে। কোন সম্মানী ব্যক্তিদের ইজ্জতের কোন তোয়াক্কা নেই। দেশের সাধারণ মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা নেই। এভাবে একটি সভ্য জাতির মান-সম্মান নিয়ে টিকে থাকতে পারে না।

সুতরাং আমরা পরিষ্কার বলে দিতে চাই, এদেশের মানুষের আস্থার প্রতীক, আদর্শ ও শান্তিপ্রিয় সমাজ বিনির্মাণের চালিকাশক্তি ওলামায়ে কেরামদের উপর জেল জুলুম নির্যাতন বন্ধ করুন। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করুন। অন্যায় ভাবে গ্রেপ্তারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তি দিন। শত শত আহত রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করুন। নিহত পরিবারের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করুন। তাহলে দেশ জাতি ও সরকারের জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে। অন্যথায় এই পবিত্র মাহে রমজানে মজলুমদের আহাজারিতে আল্লাহর আরশ কেঁপে উঠবে। আর আল্লাহর গজব থেকে কেউই রেহাই পাবে না।

আরও পড়ুন


কানাডায় করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট, স্বাস্থ্যবিধি মানার আহ্বান

যে কারণে বাজেয়াপ্ত করা হলো সুয়েজ খালে আটকে পড়া সেই জাহাজ

শত্রুতা করে রাতে কেটে দেয়া হলো ১৮০ আমগাছের চারা

সেমিতে ম্যানচেস্টার সিটি, প্রতিপক্ষ নেইমার-এমবাপ্পের পিএসজি


শীর্ষ আলেমগণ আরো বলেন, পবিত্র মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা ও এ মাসে অপরিসীম ফজিলত লাভের আশায় দেশে ও জনগণের কল্যাণ কামনায় মসজিদগুলো তারাবির সহ সকল এবাদত এর জন্য উন্মুক্ত করে দিন। কোরআনে কারিমের তেলাওয়াতের জন্য মক্তব্য ও হিফজখানা গুলো খুলে দিন। সারা দেশে করোনা নামক মহামারী থেকে দেশ ও জাতিকে রক্ষার জন্য উপরোল্লিখিত দাবিগুলো মেনে নেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি। আল্লাহপাক করোনা নামক মহামারী থেকে দেশবাসীকে হেফাজত করুন।

বিবৃতিতে যারা সম্মতি প্রকাশ করেছেন - আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী, আল্লামা সালাউদ্দিন নানুপুরী, আল্লামা ইয়াহিয়া হাটহাজারী, আল্লামা হাফেজ তাজুল ইসলাম, আল্লামা নুরুল ইসলাম জিহাদী, আল্লামা আতাউল্লাহ হাফিজ্জ্বি, আল্লামা আব্দুল হামিদ পীর সাহেব মধুপুর, আল্লামা আবুল কালাম, আল্লামা আব্দুল আউয়াল, আল্লামা ওবায়দুল্লাহ ফারুক বারিধারা, আল্লামা আব্দুর রব ইউসুফী, আল্লামা মুফতি মোবারক উল্লাহ, আল্লামা সাজিদুর রহমান, আল্লামা নুরুল ইসলাম খান দরগাহ মাদ্রাসা, আল্লামা মহিউল ইসলাম বোরহান মুহতামিম রেঙ্গা মাদ্রাসা, আল্লামা মাহফুজুল হক, ড. আহমদ আবদুল কাদের, এডভোকেট শাহীনুর পাশা চৌধুরী, খতীবে বাঙ্গাল আল্লামা জুনায়েদ আল হাবিব, মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী, মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী, মাওলানা নাসির উদ্দিন মুনির, মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী বারিধারা, মাওলানা মীর ইদ্রিস, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা জালাল উদ্দিন আহমেদ, মাওলানা আতাউল্লাহ আমিন, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস মানিকনগর, মাওলানা জসিম উদ্দিন, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা মুসা বিন আজহার, মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন রাজি, মাওলানা ইউনুস রংপুর, মাওলানা ইসমাইল নানুপুরী, মুফতি আব্দুর রহিম, মাওলানা মোহাম্মদ উল্লাহ জামী, মুফতি মাসউদুল করিম, মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী, মুফতি আজহারুল ইসলাম প্রমুখ।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আব্দুল মতিন খসরুর মৃত্যুতে ফখরুলের শোক

অনলাইন ডেস্ক

আব্দুল মতিন খসরুর মৃত্যুতে ফখরুলের শোক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি আব্দুল মতিন খসরুর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) বিএনপির কেন্দ্রীয় দফতরের দায়িত্বে নিয়োজিত সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এই শোক প্রকাশ করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আব্দুল মতিন খসরু ছিলেন দেশের একজন খ্যাতনামা আইনজীবী ও প্রাজ্ঞ রাজনীতিবিদ। আইন অঙ্গনে তাঁর অবদান ছিল অপরিসীম। একজন সুদক্ষ ও প্রাজ্ঞ রাজনীতিবিদ হিসেবে দেশের রাজনীতিতেও তিনি ভূমিকা রেখেছেন। তাঁর মৃত্যুতে আমি তাঁর শোকাহত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সহমর্মিতা জ্ঞাপন করছি।

বিএনপি মহাসচিব শোকবার্তায় মরহুম আব্দুল মতিন খসরু’র বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যবর্গ, আত্মীয়স্বজন, গুণগ্রাহী ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

উল্লেখ্য, দেশের প্রবীণ আইনজীবী ও রাজনীতিবিদ আব্দুল মতিন খসরু বুধবার (১৪ এপ্রিল) বিকালে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থান মৃত্যুবরণ করেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হেফাজতের সহকারী মহাসচিব মুফতি শাখাওয়াতকে তুলে নেয়ার অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক

হেফাজতের সহকারী মহাসচিব মুফতি শাখাওয়াতকে তুলে নেয়ার অভিযোগ

হেফাজতে ইসলামের সহকারী মহাসচিব মুফতি শাখাওয়াত হোসাইন রাজীকে তার লালবাগের নিজ বাসার সামনে থেকে আনুমানিক সাড়ে পাচটার দিকে গোয়েন্দা পুলিশ তুলে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছে সংগঠনটি।

এ বিষয়ে জুনায়েদ বাবুনগরীর পিএস ও হেফাজতে ইসলামের প্রেস সচিব ও ডিবির লালবাগ জোনের ডিসি রাজীব আল হাসান নিউজ টোয়েন্টিফোরকে নিশ্চিত করেছেন।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর