মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি
মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের হিমাচল প্রদেশে পাহাড় ধসের কারণে ছুটে আসা পাথর খণ্ডের আঘাতে যে ৯ জন পর্যটক মারা গেছেন; তাদের মধ্যে আছেন জয়পুরের এক আয়ুর্বেদিক নারী চিকিৎসক। চিকিৎসক দীপা শর্মা মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগে পাহাড়ের পাদদেশে দাঁড়িয়ে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে টুইট করেছিলেন।

মর্মান্তিক মৃত্যুর আগ মুহূর্তে সেই টুইটে তিনি লিখেছিলেন, ‌‘...ভারতের শেষ প্রান্তে দাঁড়িয়ে আছি, যেখানে বেসামরিকদের আসার অনুমতি নেই। ’

হিমাচলে ঘুরতে যাওয়া ৩৪ বছর বয়সী দীপা শর্মার টুইটার ফিড মনোরম স্থানগুলোতে তোলা ছবিতে ভরা।

রোববার স্থানীয় সময় ১২টা ৫৯ মিনিটে টুইট করেন তিনি। যেখানে হিমাচলের কিন্নর জেলার নাগাস্তি আইটিবিপি চেক পোস্টের সামনে হাসিমুখে ছবির জন্য পোজ দিতে দেখা যায় তাকে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সাঙ্গলা-চিটকুল সড়কের বাসতারি এলাকায় দুপুর ১টা ২৫ মিনিটের দিকে একাধিক ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। যার কিছুক্ষণ আগে দীপা শর্মা তার ভ্রমণের ছবি টুইটারে দেন। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেছিলেন, মা প্রকৃতি ছাড়া জীবন আর কিছুই নয়।


আরও পড়ুন

যুক্তরাজ্যে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত

শিল্পকারখানা খুললে আইনানুগ ব্যবস্থা

পরিবারে যদি কোনো ড্রাইভার থাকে তাকেও টিকা দেয়ার জন্য বলা হয়েছে

বিভিন্ন জেলায় করোনা ও উপসর্গে মৃত্যুর তথ্য


ভূমিধসের কারণে সেখানকার একটি সেতু ভেঙে নদীতে পড়ে যায় এবং বেশ কিছু যানবাহনের ক্ষয়ক্ষতি হয়। তরুণ এই চিকিৎসকের এমন মৃত্যুতে টুইটারে অনেকেই গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।

একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, পাহাড়ের ওপর থেকে বিশালাকারের বেশ কয়েকটি পাথরখণ্ড বিচ্ছিন্ন হয়ে নিচের দিকে ধেয়ে আসছে। দ্রুতগতিতে নিচের দিকে ছুটতে থাকা এসব পাথরখণ্ড সেখানকার একটি সেতুতে আছড়ে পড়ে। ফলে সেতুটির একাংশ নদীতে ভেঙে পড়ে।

এই দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও হিমাচলের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় দুর্যোগ তহবিল থেকে নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে দুই লাখ এবং আহত দুই জনের পরিবারকে ৫০ হাজার রুপি করে সহায়তার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

সূত্র: এনডিটিভি

news24bd.tv/এমিজান্নাত