করোনার টিকা নিয়ে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যুর অভিযোগ
করোনার টিকা নিয়ে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যুর অভিযোগ

সংগৃহীত ছবি

করোনার টিকা নিয়ে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যুর অভিযোগ

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ:

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে করোনার টিকা নিয়ে আল্লাদী খাতুন (১৩) নামের ৭ম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোর জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মৃত আল্লাদী খাতুন কোটচাঁদপুর উপজেলার দুধসরা গ্রামে টিটো হোসেনের মেয়ে। সে কোটচাঁদপুর বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল।

জানা যায়, সারাদেশে স্কুল শিক্ষার্থীদের করোনার টিকার আওতায় আনা কর্মসূচি চলছে। এরই অংশ হিসেবে গত ২৭ নভেম্বর সোমবার কোটচাঁদপুর পৌর পাঠাগারে বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ফাইজারের টিকা দেওয়া হয়।  

আরও পড়ুন : বিরতিহীন বাসে সন্তান প্রসব, আজীবন ভাড়া ফ্রি

আল্লাদী খাতুন ওই দিন টিকা নেয়। টিকা নেওয়ার পর মঙ্গলবার ভোররাত থেকে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরদিন সকালে তাকে কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকার পর বৃহস্পতিবার দুপুরে তার মৃত্যু হয়।

আল্লাদী খাতুনের ফুফু জাহানারা খাতুন জানান, টিকা নেওয়ার কয়েকদিন আগে আল্লাদীর জ্বর ছিল। ঔষুধ খাওয়ার পর সে সুস্থ হয়ে যায়। কিন্তু শরীর খুব দুর্বল ছিল। টিকা নেওয়ার পর সে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। যারা টিকা দিলো তারা জিজ্ঞাসা না করে টিকা দিল কেন ?

পিতা টিটো হোসেন জানান, আমার মেয়েকে স্কুল থেকে কার্ড দিয়ে টিকা দিতে বলা হয়েছে। টিকা যেখানে দেওয়া হয়েছে সেখানে কোন প্রকার স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা ওরা করেনি।  

টিকা দেওয়ার পর মেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। আমার মেয়েটা মারা গেছে স্কুলের শিক্ষক আর যারা টিকা দিয়েছে তাদের কারণে। আমি এর বিচার চাই। কেন ওরা স্বাস্থ্য পরীক্ষা না করে টিকা দিল। যদি পরীক্ষা করে টিকা না দিত তাহলে আজ এই ঘটনা ঘটত না।

কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ বলেন, মেয়েটি হাসপাতালে আনা হয়েছিল তখন জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও খিচুনি ছিল।  

এখন সে খেজুরের রস খেয়েছিল না কি না তা পরিবারের কাছ থেকে জানার চেষ্টা করছি। মেয়েটির আগে থেকেই জ্বর ছিল। কেন সে জ্বর থাকা অবস্থায় টিকা নিল। আমরা তো ওই সময় সবাইকে বলে দিয়েছিলাম যে অসুস্থ হলে টিকা নেওয়া যাবে না।

এ ব্যাপারে যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. মো. আক্তারুজ্জামান বলেন, মেয়েটার আগে থেকেই জ্বর ছিল। টিকা নেওয়ার পর থেকে সে অসুস্থ হয়ে যায়।  

গতকাল সন্ধ্যার পর তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। সেখানেও তার শারিরীক অবস্থা খারাপ হয়ে গেলে ভেন্টিলেটরে দেওয়া হয়। কিন্তু মেয়েটাকে বাঁচানো যায় নি। হার্ট ফেইল করে মেয়েটা মারা গেছে।  

মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, মেয়েটির আগে থেকে জ্বর ছিল। জ্বরের কারণে হার্ট ফেইল করতে পারে। তবে সঠিক কারণ পরে জানা যাবে।

news24bd.tv/ কামরুল 

;