দুই জন মিলে কিশোরীকে বারবার ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা, অতঃপর...
দুই জন মিলে কিশোরীকে বারবার ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা, অতঃপর...

প্রতীকী ছবি

দুই জন মিলে কিশোরীকে বারবার ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা, অতঃপর...

অনলাইন ডেস্ক

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলায় নানা বাড়িতে বসবাস করেন এক কিশোরী। আত্মীয়তার সুযোগ নিয়ে দুই জন মিলে একাধিকবার ধর্ষণ করে ওই কিশোরীকে। ধর্ষণের পরে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে সে। এই ঘটনায় দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় উপজেলার দাওগাঁও ইউনিয়নের চন্দনীআটা এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় বিকালে মুক্তাগাছা থানায় ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- হাফিজুল (২৫) ও দুলাল (৫০)। হাফিজুল চন্দনীআটা গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে ও দুলাল পার্শ্ববর্তী ফুলবাড়িয়া উপজেলার বৈলাজান গ্রামের আবু হানিফার ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, মুক্তাগাছা উপজেলার চন্দনীআটা গ্রামে নানাবাড়িতে বসবাস করে আসছিল ভুক্তভোগী কিশোরী। আত্মীয়তার সুবাদে একই গ্রামের হাফিজুল ও ফুলবাড়িয়া উপজেলার বৈলাজান গ্রামের বাসিন্দা দুলাল প্রায়ই ভুক্তভোগীর নানাবাড়ি যাতায়াত করত। সেই সুযোগে দুজন মিলে প্রায়ই মেয়েটিকে ধর্ষণ করে আসছিল।

একপর্যায়ে ওই কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। এতে ভুক্তভোগী কিশোরীর পরিবার ও এলাকায় ঘটনাটি ছড়িয়ে পড়লে লোকজন অভিযুক্ত ওই দুজনকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান গণমাধ্যমকে জানান, নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ভুক্তভোগী কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। এ ঘটনায় আমরা মূল আসামি দুজনকে গ্রেপ্তার করেছি। রোববার আসামিদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। আর ভুক্তভোগী কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন


দুর্নীতির বিষয়ে কোনো কম্প্রোমাইজ নয়: প্রধান বিচারপতি

news24bd.tv এসএম