রেলসেতুতে ধাক্কা, হাতের কব্জি ছিঁড়ে কিশোর নদীতে
রেলসেতুতে ধাক্কা, হাতের কব্জি ছিঁড়ে কিশোর নদীতে

প্রতীকী ছবি

রেলসেতুতে ধাক্কা, হাতের কব্জি ছিঁড়ে কিশোর নদীতে

অনলাইন ডেস্ক

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার হলহলিয়া লোহার রেলসেতুতে ধাক্কা লেগে ছিটকে তুলসীগঙ্গা নদীতে পড়ে নিখোঁজ কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করেছে ডুবুরিরদল। সোমবার (১৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

এর আগে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়গামী ‘একতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনের যাত্রী রোববার (১৭ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৬টায় লোহার রেলসেতুতে ধাক্কা লেগে ছিটকে তুলসীগঙ্গা নদীতে নিখোঁজ হয় ওই কিশোর।

মেহেদী হাসান (১৭) নামে ওই কিশোর পঞ্চগড় সদর উপজেলার রাজমহল গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মেহেদী হাসান তার দাদি শাহেরা খাতুনের সঙ্গে পাবনার আটমাইল আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিল। তারা রোববার নাটোর স্টেশনে এসে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়গামী একতা এক্সপ্রেস ট্রেনে ওঠেন।

সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ট্রেনটি জাফরপুর রেলস্টেশন অতিক্রম করে হলহলিয়া রেলসেতুতে ঢুকে পড়ে। এ সময় মেহেদী হাসান রেলসেতুতে ধাক্কা খেয়ে ডান হাতের কব্জি ছিঁড়ে সেতুর গার্ডারে আটকে যায়। পরে রেলসেতুর নিচে পড়ে নিখোঁজ হয় মেহেদী। ট্রেনটি রেলসেতু অতিক্রম করার পর স্থানীয় লোকজন রেলসেতুতে এসে ডান হাতের কব্জি, ম্যানিব্যাগ ও মোবাইল ফোন দেখতে পান। এরপর তারা ফায়ার সার্ভিস ও থানায় ঘটনাটি জানায়।

আক্কেলপুর ফার্য়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বলেন, রোববার রাতে আমরা হলহলিয়া রেলসেতুতে গিয়ে কিছু আলামত পেয়ে মরদেহের খোঁজে তুলসীগঙ্গা নদীতে অভিযান শুরু করেছিলাম। রাত ১০টার পর উদ্ধার অভিযান স্থগিত করা হয়েছিল। পরে সোমবার সকালে রাজশাহীর ডুবুরি দল এসে তুলসীগঙ্গা নদী থেকে ওই কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করে।

সান্তাহার রেলওয়ের থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) বলেন, ঘটনার প্রায় সাড়ে ১৪ ঘণ্টা পর ওই কিশোরের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ