বৃদ্ধ ইমাম ও আসমার পরকীয়ার রহস্য উৎঘাটন

অনলাইন ডেস্ক

বৃদ্ধ ইমাম ও আসমার পরকীয়ার রহস্য উৎঘাটন

পরকীয়ার জেরে স্বামী আজহার উদ্দিনকে হত্যার ঘটনায় দেশজুড়ে আলোচিত বৃদ্ধ ইমাম আবদুর রহমান ও আসমা আক্তার। রাজধানীর দক্ষিণখানের একটি জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আবদুর রহমানের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছিলেন আসমা আক্তার (২৬)।

ইমাম ও আসমার পরিকল্পনা অনুযায়ী সাত টুকরা হতে হয়েছে আজাহারকে। ইমাম ও আসমার পরিকল্পনায় সফল হলে চতুর্থবারের মতো সংসার বাঁধতেন আসমা।

ইমাম আবদুর রহমানের বাড়ি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায়। তার এক ছেলে ও এক মেয়ে আছে। ৩৩ বছর ধরে দক্ষিণখান এলাকার মসজিদে নামাজ পড়াচ্ছেন।

র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে আবদুর রহমান বলেন, আসমাকে তিনি প্রচণ্ড ভালোবেসে ফেলেছিলেন। তার কথা রাখতে গিয়ে আজহারকে হত্যা করেছেন। তা না হলে আসমা নিজেই আজহারকে হত্যা করবেন বলে হুমকি দিয়েছিলেন। নিজেও মরবেন এবং ইমামা আবদুর রহমানকে মারবেন। 

জিজ্ঞাসাবাদে আসমা র‌্যাবকে জানায়, স্বামী আজহারের আচার-আচরণ তার ভালো লাগছিল না। এ কারণে তিনি পরকীয়ায় জড়ান। আজাহারকে সরিয়ে ইমামের সঙ্গে ঘর বাঁধবেন তিনি।

আরও পড়ুন

  টোকিও অলিম্পিক থেকে নাম সরিয়ে নেয়ার গুঞ্জন স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের

  শুধু বাংলাদেশেই ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তে এই সহজ পদ্ধতি অনুসরণ করা হচ্ছে না

  ‘ছায়াশূন্য’ পবিত্র কাবা শরীফের দেখা মিলবে দুপুরে

  শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শেষ ওয়ানডেতে টাইগারদের সম্ভাব্য একাদশ

 

র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, গত রমজানের আগেই আজহারকে হত্যার পরিকল্পনা করেন তারা। প্রথমে ভাড়াটে খুনির কথা ভাবা হয়। পরে আবদুর রহমান নিজেই হত্যার দায়িত্ব নেন। সে অনুযায়ী গত ১৯ মে তিনি আজহারকে ডেকে এনে হত্যা করে লাশ সাত টুকরা করে সেপটিক ট্যাংকে ফেলে দেন। এরপর সব ধুয়েমুছে মসজিদে নামাজ পড়ান। ধরা পড়ার আগ পর্যন্ত তিনি চার দিন নামাজ পড়ান। এ সময় নামাজে প্রতিবারই তিনি ভুল করেন।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন গণমাধ্যমকে বলেন, “আবদুর রহমান ও আসমার বিয়ে করার কথা ছিল। আজহারকে হত্যা করতে দু’জন পরিকল্পনা করেন বলে তারা জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন।”

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে পুলিশ কনস্টেবলের ‍মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে পুলিশ কনস্টেবলের ‍মৃত্যু

রংপুর মেট্রোপলিটনের কোতয়ালী থানায় কর্তব্যরত অবস্থায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে এক পুলিশ কনস্টেবলের ‍মৃত্যু হয়েছে।পুলিশ কনস্টেবলের নাম আশরাফুল।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা বিষয়ে যা জানালো শিক্ষামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা বিষয়ে যা জানালো শিক্ষামন্ত্রী

করোনার এই সময়ে ভীষণ উদ্বেগের মধ্যে আছে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা । আমরা এটা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা করছি বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি । পরীক্ষার বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা খুব শিগগিরই সিদ্ধান্তটি জানিয়ে দেবো। আর বেশি দিন উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে থাকতে হবে না।

আজ মঙ্গলবার ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি ও টিউশন ফি প্রদান সংক্রান্ত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

ডা. দীপু মনি বলেন, গেল বছরে এসএসসি পরীক্ষা হয়েছিল, সেটার ফলাফল আমরা প্রকাশ করেছি। এইচএসসি বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়ন করেছি। এবার কী হবে শিগগিরই সেটাও জানিয়ে দেব।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি ও টিউশন ফি বাবদ মোট ১ হাজার ৭৮ কোটি ৯২ লাখ ৭৮ হাজার ১০ টাকা প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে উপবৃত্তি বাবদ ২৯ হাজার ৩০১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪২ লাখ ৮৪ হাজার ৯২৮ জন শিক্ষার্থীকে মোট ৮৮২ কোটি ৯৩ লাখ৫০ হাজার ৬০০ টাকা প্রদান করা হয়। এছাড়া শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি বাবদ দেওয়া হয় ১৯৫ কোটি ৯৯ লাখ ২২ হাজার ৪১০ টাকা।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আমরা এত নিচু মানসিকতার নই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

আমরা এত নিচু মানসিকতার নই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

‘দিল্লি টিকা দিচ্ছে না বলে বাংলাদেশ ইলিশ পাঠাচ্ছে না’- ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার এমন শিরোনাম করে খবরের পরিপ্রেক্ষিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‌আমরা এত নিচু মানসিকতার নই।  

আজ মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকরা এই বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ কথা বলেন। এ প্রসঙ্গে এর বেশি কিছু বলেননি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

বাসের পর ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের রেল বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক

বাসের পর ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের রেল বন্ধ

করোনা সংক্রমণ রোধে একে একে বন্ধ হচ্ছে বাস-লঞ্চ ও ট্রেন। মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণে প্রথমে দুরপাল্লার বাস ঢাকায় প্রবেশ ও বের হওয়া বন্ধ হয় আজ মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে। এবার রেলপথ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্তের কথা।

মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণে ঢাকা থেকে সারা দেশে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্তের কথা মঙ্গলবার রাতে এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করে রেলপথ মন্ত্রণালয়।

এতে বলা হয়েছে, মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, গাজীপুর, মাদারীপুর, রাজবাড়ী এবং গোপালগঞ্জে সার্বিক কার্যাবলী/চলাচল (জনসাধারণের চলাচলসহ) ২২ জুন সকাল ৬টা থেকে ৩০ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার সাথে অন্যান্য জেলা শহরের জনসাধারণের চলাচল নিয়ন্ত্রণে রাখার লক্ষ্যে ২৩ জুন থেকে ৩০ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। 

গতকাল (সোমবার) ঢাকার আশপাশের ৪ জেলাসহ ৭ জেলায় লকডাউন ঘোষণার পর প্রথমে বলা হয়েছিল শুধু লকডাউনঘোষিত জেলাগুলোতে ট্রেন থামবে না, অন্য গন্তব্যে যথারীতি ট্রেন চলবে। আজ মঙ্গলবার সকালেও বলা হয়েছিল স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকা থেকে ট্রেন চলবে। তবে এখন সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করল সরকার। 

ট্রেন বন্ধের বিষয়ে সন্ধ্যায় রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম বলেন, আজ (২২ জুন) রাত ১২টা থেকে ঢাকার সাথে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হবে। রেলের পশ্চিমাঞ্চল অর্থাৎ দেশের উত্তরাঞ্চলে কোনো ট্রেনই চলবে না। তবে সিলেট ও চট্টগ্রামের মধ্যে ট্রেন চলাচল থাকবে।  পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী।

এদিকে গাবতলীসহ ঢাকার সব টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। বাসের পর এখন রেল মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তে এখন ট্রেনও বন্ধ হচ্ছে। 

সোমবার বিকেলে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এ ঘোষণা দিয়ে বলেন, যে ৭ জেলায় লকডাউন দেওয়া হয়েছে সেখানে ৩০ জুন পর্যন্ত সাধারণ মানুষের চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে। গণপরিবহন চলাচল করবে না। বাজার-শপিংমল বন্ধ থাকবে। সরকারি-বেসরকারি অফিসও বন্ধ থাকবে (জরুরি সরকারি অফিস ছাড়া)। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

হোটেল-মোটেল খুললেও যাওয়া যাবে না সমুদ্রে

অনলাইন ডেস্ক

হোটেল-মোটেল খুললেও যাওয়া যাবে না সমুদ্রে

প্রায় তিন মাস পর আগামী ২৪ জুন স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তসাপেক্ষে কক্সবাজারের হোটেল-মোটেল ও গেস্টহাউসগুলো খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে ভ্রমণের জন্য আসা কোনো পর্যটককে হোটেল-মোটেলে অবস্থান করতে দেওয়া হবে না। এমনকি সমুদ্রসৈকতেও না।

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি হোটেল মালিক, ব্যবসায়ী সংগঠন ও কর্মজীবী সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে গতকাল সোমবার এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানায়।  গত বছর ১ এপ্রিল থেকে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে পর্যটকসহ জনসমাগম নিষিদ্ধ করে জেলা প্রশাসন।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান জানান, পর্যটনসংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও কর্মজীবীদের জীবন-জীবিকা নির্বাহসহ বিভিন্ন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শর্তসাপেক্ষে হোটেল, মোটেল ও গেস্টহাউসগুলো ২৪ জুন থেকে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সব ধরণের স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এগুলো খোলা রাখা হবে। স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়টি তদারকির জন্য মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। এই টিম হোটেল-মোটেল কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা সুনির্দিষ্ট করে দিয়েছে। নির্দেশনা না মানলে করলে হোটেল-মোটেল বন্ধ করে দেওয়া হবে।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর