তুরস্কে পাওয়া গেল ১ হাজার ৮শ বছর আগের ভাস্কর্য

অনলাইন ডেস্ক

তুরস্কে পাওয়া গেল ১ হাজার ৮শ বছর আগের ভাস্কর্য

এক হাজার ৮০০ বছর আগের একটি ভাস্কর্য পাওয়া গেছে তুরস্কে। গতকাল শনিবার দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় ইজমির প্রদেশ থেকে নারী ভাস্কর্যটি পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন, তুরস্কের কর্মকর্তারা।

এক টুইট বার্তায় তুরস্কের সংস্কৃতি ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের খনন বিভাগ জানিয়েছে, ইজমির প্রদেশের তোরবালি জেলার মেট্রোপলিস শহরে ভাস্কর্যটি পাওয়া গেছে। চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত চলবে খনন কাজ।

তুরস্কের সংস্কৃতি ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং জেলাল বায়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে কয়েক বছর ধরে অনুসন্ধান চলছিল সেখানে। মেট্রোপলিস শহরে ক্ল্যাসিকাল, হেলেনিস্টিক, রোমান, বাইজেন্টাইন ও অটোমান যুগের নিদর্শন রয়েছে। সূত্র: ইয়েনি শাফাক

news24bd.tv আহমেদ

আরও পড়ুন


নিজের দাম বাড়িয়েছেন রাশি খান্না!

ইসরাইলের কাছ থেকে গোলান মালভূমি মুক্ত করতে প্রস্তুত নুজাবা আন্দোলন

‘ইরাকের তেল সম্পদের ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে তুরস্ক’

শেখ হাসিনার বিকল্প কে?


 

পরবর্তী খবর

বিনা বিচারে ইসরাইলি কারাগারে বন্দি, ফিলিস্তিনি ফুটবলারের আমরণ অনশন

অনলাইন ডেস্ক

বিনা বিচারে ইসরাইলি কারাগারে বন্দি, ফিলিস্তিনি ফুটবলারের আমরণ অনশন

ইহুদিবাদী ইসরাইলের কারাগারে বিনা বিচারে আটক থাকার প্রতিবাদে আমরণ অনশন শুরু করেছেন ফিলিস্তিনি ফুটবলার গুয়েভারা আল-নামুরা। ইসরাইলের বর্বর বাহিনী গেল ১০ মাস আগে তাকে আটক করে এবং বিনা বিচারে জেল খাটছেন তিনি। এ ধরনের আটকাদেশকে ইসরাইল অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ডিটেনশন বলে থাকে যা আন্তর্জাতিক আইনের চরম লঙ্ঘন।

গুয়েভারার আটকের তিন মাস পর তার অন্তঃস্বত্তা স্ত্রী একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন। চলতি মাসে গুয়েভারার অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ডিটেনশনের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ইসরাইল কর্তৃপক্ষ তার অবৈধ আটকাদেশের মেয়াদ বাড়িয়েছে।

এর প্রতিবাদে প্রায় দু সপ্তাহ আগে গুয়েভারা অনশন শুরু করেন। তিনি আশা করছেন এই প্রতিবাদের কারণে তাকে মুক্তি দেয়া হবে এবং তিনি তার সাত মাসের সন্তান জুলিয়াকে দেখতে পাবেন।

আরও পড়ুন


সৃজিত ঘণ্টার পর ঘণ্টা আমার সঙ্গে রিহার্সাল করেছে: বাঁধন

বাংলাদেশের জন্মের সাথেই আমার পথচলা: জয়

মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে দুর্ঘটনার শিকার অভিনেত্রী, বান্ধবীর মৃত্যু

আবারও মা হতে যাচ্ছেন ঐশ্বরিয়া?


উল্লেখ্য, গুয়েভারা শুধু একা এই অনশনে যোগ দেন নি বরং তার সঙ্গে আরো অন্তত ১৪ ফিলিস্তিনি রয়েছেন। তারা সবাই বিনা বিচারে ইসরাইলের কারাগারে আটক আছেন। কোনো আনুষ্ঠানিক অভিযোগ ছাড়া ইসরাইল অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ডিটেনশনের আওতায় যেকোনো ফিলিস্তিনিকে আটক রাখতে পারে।

প্রায় পাঁচ হাজার ফিলিস্তিনি ইসরাইলের কারাগারে আটক রয়েছেন যার মধ্যে অন্তত ১০০ জন বিনা বিচারে বন্দী জীবন কাটাচ্ছেন। সূত্র: পার্সটুডে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

ভারত সফর বাতিল করলেন আফগান সেনাপ্রধান

অনলাইন ডেস্ক

ভারত সফর বাতিল করলেন আফগান সেনাপ্রধান

দেশ জুড়ে অভিযানের পরিসর ক্রমশ বাড়াচ্ছে তালেবান। আরও বেশি করে তারা নিশানা করছে সাধারণ মানুষকে। তালেবানদের হামলায় প্রায় চারশো জেলার মধ্যে দুইশোটি দখল করেছে বলে দাবি সন্ত্রাসী সংগঠনটির। এহেন সংকটের মুহূর্তে ভারত সফর বাতিল করলেন আফগান সেনাপ্রধান জেনারেল ওয়ালি মোহম্মদ আহমেদজাই।

সংবাদ সংস্থা এএনআই বলছে, জুলাই মাসের ২৭ তারিখ ভারত সফরে আসার কথা ছিল জেনারেল আহমেদজাইয়ের। কিন্তু পাহাড়ি দেশটিতে তালেবানি আগ্রাসনের মুখে পরিস্থিতি রীতিমতো জটিল হয়ে উঠেছে। হেরাত, জালালাবাদ, গজনি, কান্দাহারের মতো শহরগুলির ঘাড়ে নি:শ্বাস ফেলছে তালেবান জঙ্গিরা। 

সংবাদ সংস্থাটি আরও বলছে, ঈদের দিন কাবুলের প্রেসিডেন্ট প্যালেসে আছড়ে পড়ে একাধিক রকেট। অল্পের রক্ষা পান আফগান প্রেসিডেন্ট আশরফ ঘানি।

আরও পড়ুন


মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে দুর্ঘটনার শিকার অভিনেত্রী, বান্ধবীর মৃত্যু

আবারও মা হতে যাচ্ছেন ঐশ্বরিয়া?

নেত্রকোনায় গেল ২৪ ঘণ্টায় ৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৯৫

‘ইরানের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের চাপ প্রয়োগের নীতি শোচনীয়ভাবে ব্যর্থ হয়েছে’


ইরান, পাকিস্তান, উজবেকিস্তান ও তাজিকিস্তান সীমান্তে বেশ কয়েকটি বর্ডার ক্রসিং দখল করেছে তালিবান। জঙ্গিদের ঠেকাতে পালটা হামালা চালাচ্ছে আফগান স্পেশ্যাল ফোর্সেস বা আফগান কমান্ডোরা। এহেন পরিস্থিতিতে নয়া রণনীতি তৈরি করতে আপাতত দেশ ছেড়ে বিদেশ সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আফগান সেনাপ্রধান জেনারেল ওয়ালি মহম্মদ আহমেদজাই। কাবুলে থেকেই তালিবানের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের নকশা প্রস্তুত করছেন তিনি।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

‌‘ইরানের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের চাপ প্রয়োগের নীতি শোচনীয়ভাবে ব্যর্থ হয়েছে’

অনলাইন ডেস্ক

‌‘ইরানের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের চাপ প্রয়োগের নীতি শোচনীয়ভাবে ব্যর্থ হয়েছে’

ইরান বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রতিনিধি রবার্ট ম্যালি

সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের যে নীতি গ্রহণ করেছিলেন তা শোচনীয়ভাবে ব্যর্থ হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রতিনিধি রবার্ট ম্যালি। শুধু তাই নয়, ট্রাম্পের ওই নীতি তার দেশের স্বার্থ ক্ষতিগ্রস্ত করেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এমএসএনবিসি টেলিভিশন চ্যানেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে রবার্ট ম্যালি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, ইরানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতি গ্রহণের পর তেহরান তার পরমাণু কর্মসূচি জোরদার করে।

রবার্ট ম্যালি হচ্ছেন বাইডেন প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ একজন ব্যক্তি যাকে ২০১৫ সালের পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ২০১৫ সালে যখন ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে পরমাণু সমঝোতা সই হয় তখন তিনি মার্কিন আলোচক দলের সদস্য ছিলেন।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালক সাংবাদিক মেহেদী হাসান রবার্ট ম্যালির কাছে জানতে চান, যুক্তরাষ্ট্রের ইরানের আগে পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসবে কিনা। জবাবে তিনি বলেন, “আমরা খুব পরিষ্কারভাবে বলেছি- আমরা পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসতে প্রস্তুত যদি তারা তাদের পক্ষ থেকেও একই কাজ করে।” তিনি আরো বলেন, “ইরান যদি পূর্ণ সহযোগিতা নিয়ে পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসে এবং এই সমঝোতার সমস্ত বাধ্যবাধকতা মেনে চলে তাহলে আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করবে।”

রবার্ট ম্যালি জানান, ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পরিকল্পনা মার্কিন সরকারের টেবিলে রয়েছে। ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি'র কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যার সমালোচনা করে তিনি বলেন, এর ফলে আমেরিকার নিরাপত্তা কমে গেছে।

আরও পড়ুন


বাগেরহাটে করোনায় আরো ২ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১০১

ঢাকায় এতো যে ‘ড্রাই ক্লিনার্স’ সেগুলোর কাপড় ধোওয়া হয় কোথায়?

ঝিনাইদহে আজও ৪ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৭৩

গায়ে আগুন দিয়ে হত্যা, যুবলীগ নেতা এখনও অধরা


মার্কিন সামরিক বাহিনীর জয়েন্ট চিফ অব স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলির একটি রিপোর্টের উদ্ধৃতি দিয়ে রবার্ট ম্যালি বলেন, ইরানের কমান্ডারকে হত্যা করার জন্য সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে সতর্ক করা হয়েছিল। জেনারেল মার্ক মিলি বলেছিলেন, ইরানি কমান্ডারকে হত্যা করা হল যুদ্ধ শুরু হয়ে যেতে পারে। তিনি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে সতর্ক করে বলেছিলেন, আমেরিকার অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য ইরানি সরকার এবং জনগণকে আমেরিকার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর সুযোগ দেয়া উচিত হবে না। এভাবে মার্কিন শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে নগ্নভাবে তার ব্যক্তিগত রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের পথে বাধা সৃষ্টি করেছিলেন।

অনুষ্ঠানের রবার্ট ম্যালি আরো বলেন, “আমেরিকাকে নিরাপদ রাখার জন্য ট্রাম্প প্রশাসন ইরানের জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যা করে এবং তেহরানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতি অনুসরণ করে যে সমস্যা তৈরি করেছেন তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর অধিকার আমেরিকার জনগণের আছে।” তিনি বলেন, “তিন বছরে এ কথা পরিষ্কার হয়েছে যে, আমেরিকা আগের চেয়ে এখন কম নিরাপদ কারণ ইরান তার পরমাণু কর্মসূচি অনেক বাড়িয়েছে, পরমাণু কর্মসূচি জোরদার করেছে এবং আঞ্চলিক কর্মকাণ্ডে নিজের অংশগ্রহণ বাড়িয়েছে।” সূত্র: পার্সটুডে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

ভিয়েনা সংলাপকে বিপদগ্রস্ত করছে ইরান দাবি ফ্রান্সের

অনলাইন ডেস্ক

ভিয়েনা সংলাপকে বিপদগ্রস্ত করছে ইরান দাবি ফ্রান্সের

ইরানের কারণে পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের আলোচনা বিপদের মুখে পড়েছে বলে দাবি করেছে ফ্রান্স। দেশটি এই সমঝোতা থেকে যুক্তরাষ্ট্র একতরফাভাবে বেরিয়ে যাওয়া এবং ফ্রান্সসহ ইউরোপীয় দেশগুলোর এই সমঝোতা মেনে চলতে ব্যর্থ হওয়ার বিষয়টি উপেক্ষা করে বলেছে, ইরানের উচিত অবিলম্বে ভিয়েনায় পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের আলোচনায় ফিরে যাওয়া।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অ্যাগনেস ভন ডার মুল সোমবার প্যারিসে সাংবাদিকদের সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে দাবি করেন, “ইরান ভিয়েনা সংলাপে ফিরে আসতে যত বেশি দেরি করবে পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের বিষয়ে এই সংলাপ থেকে ফল পাওয়ার আশা তত কমে যাবে।”

তিনি আরো দাবি করেন, ইরান অবিলম্বে এই আলোচনায় ফিরতে ব্যর্থ হলে বিশ্ব শক্তিগুলোর সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা আবার সক্রিয় করার ব্যাপারে একটি চুক্তিতে উপনীত হওয়া কঠিন হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন


আবারও জার্মানির বর্ষসেরা ফুটবলার লেভানদোভস্কি

জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ফেরি শাহজালালের চালকসহ চারজনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে

রাজশাহী মেডিকেলে করোনায় ১০ ও উপসর্গে ১১ জনের মৃত্যু

লকডাউনে বিয়ে: প্রশাসনের উপস্থিতিতে পালাল বরযাত্রী


ফরাসি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এমন সময় এসব কথা বললেন যখন ইরানের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পরমাণু বিষয়ক প্রধান আলোচক সম্প্রতি ঘোষণা করেছেন, ভিয়েনা সংলাপে অংশগ্রহণকারী পক্ষগুলোকে ইরানের পরবর্তী সরকারের ক্ষমতায় আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তিনি বলেন, ইরানে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় একটি সরকার পরিবর্তিত হচ্ছে; কাজেই এই প্রক্রিয়া শেষ হওয়া পর্যন্ত অপর পক্ষগুলোকে অপেক্ষা করতে হবে।

ভিয়েনায় পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের সংলাপ গত এপ্রিল মাসের গোড়ার দিকে শুরু হয় এবং এ পর্যন্ত ছয় দফা আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সপ্তম দফা আলোচনায় সমঝোতাটিকে আবার সক্রিয় করার ব্যাপারে পাঁচ জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের একটি চূড়ান্ত চুক্তি হবে বলে আশা করা হচ্ছে। তবে ইরানের নির্বাচিত-প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রায়িসি ক্ষমতা গ্রহণ করা আগ পর্যন্ত ইরানের পক্ষে ভিয়েনা সংলাপে ফিরে যাওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেয়া হয়েছে। আগামী ৫ আগস্ট রায়িসি ইরানের অষ্টম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। সূত্র: পার্সটুডে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

অবশেষে ইরাক যুদ্ধের সমাপ্তি ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

অনলাইন ডেস্ক

অবশেষে ইরাক যুদ্ধের সমাপ্তি ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

চলতি বছরের শেষ নাগাদ ইরাকে ‘যুদ্ধের দায়িত্ব সমাপ্ত’ করার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ওয়াশিংটন সফররত ইরাকি প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-কাজেমির সঙ্গে সাক্ষাতে সোমবার হোয়াইট হাউজে এ ঘোষণা দিয়েছে তিনি।

বাইডেন উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশের (আইএস) বিরুদ্ধে কথিত যুদ্ধের সমাপ্তি ঘোষণা করে বলেন, ২০২১ সাল শেষে মার্কিন সেনারা ইরাকি সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ ও সহযোগিতা করার দায়িত্ব পালন করবে; কিন্তু তারা সরাসরি কোনো যুদ্ধে অংশ নেবে না। তবে এ সাক্ষাতে ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হবে কিনা- সে সম্পর্কে মুখ খোলেননি বাইডেন।

সাক্ষাতের পর দুই নেতা এক যৌথ বিবৃতিতে ঘোষণা করেন, “২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের পর ইরাকে আর কোনো মার্কিন সেনা যুদ্ধের ভূমিকা পালন করবে না।”

ইরাকি প্রধানমন্ত্রী কাজেমি রোববার রাতে এমন সময় আমেরিকা পৌঁছান যখন তার দেশ থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে ইরাকি পার্লামেন্টে পাস হওয়া আইন এখনও বাস্তবায়ন করা হয়নি।  


আরও পড়ুন:

শিল্পকারখানা খুললে আইনানুগ ব্যবস্থা

কখন লকডাউন বাড়ানো লাগবে না জানালেন তথ্যমন্ত্রী

১০ আগস্ট থেকে বিদেশি মুসল্লিদের জন্য চালু হচ্ছে পবিত্র ওমরাহ

পরকীয়ায় ধরা মসজিদের ইমাম! রাতভর বেঁধে রাখল গ্রামবাসী


প্রধানমন্ত্রী কাজেমি আমেরিকা সফরে যাওয়ার আগে বাগদাদে বলেছিলেন, উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আর মার্কিন সেনাদের তার দেশে প্রয়োজন নেই। তবে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক সময়সীমা ঘোষণা হবে চলতি সপ্তাহে মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর