সীতাকুণ্ডের ৩ হাজার পরিবারে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের উপহার
সীতাকুণ্ডের ৩ হাজার পরিবারে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের উপহার

সীতাকুণ্ডের ৩ হাজার পরিবারে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের উপহার

অনলাইন ডেস্ক

সীতাকুণ্ড উপজেলার বাঁশবাড়িয়া বোয়ালিয়াকূল গ্রামের ষাটোর্ধ্ব ছেনোয়ারা। অর্থকষ্টে অর্ধাহার-অনাহারে দিন কাটে এ বৃদ্ধার। সাহায্যের জন্য প্রতিদিন পথে পথে ঘোরেন তিনি।  

রোববার (২৯ আগস্ট) বিকেলে এ বৃদ্ধার হাতে হরেকরকম খাদ্যসামগ্রীর একটি প্যাকেট তুলে দিলেন লে. শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেডের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজুর রহমান।

এটি পেয়েই বৃদ্ধার মুখে ফুটে উঠে হাসি। আল্লাহর কাছে দু’হাত তুলে ছেনোয়ারা বলেন, এই খাবারে আমার অনেক দিন চলে যাবে। কেউ আমাকে ১০ টাকাও দিতে চায় না সহজে। যারা ঢাকা থেকে এসে আমাকে এতগুলো খাবার দিলেন তারা আরো বড় হোক, আমাদের যেন সবসময় সহযোগিতা করতে পারেন এ দোয়া করব।   

শুধু ছেনোয়ারাই নন, এদিন এখানে করোনাকালীন ত্রাণ হিসেবে খাদ্য উপহার পান বোয়ালিয়াকূলের জোছনা বেগম, আকিলপুরের বৃদ্ধ রহমত উল্লা, উত্তর বাঁশবাড়িয়ায় আনোয়ার হোসেনসহ এ ইউনিয়নের দেড় হাজার মানুষ। প্রত্যেকে ভীষণ খুশি এ উপহার পেয়ে।   

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সীতাকুণ্ডের বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে লে. শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেডের উদ্যোগে লে. শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের সভাপতি ও বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান তাসভীরের অর্থায়নে বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের দেড় হাজার মানুষকে এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। একইভাবে এদিন বেলা ১১টায় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয় সীতাকুণ্ড উপজেলার বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের দেড় হাজার অসহায় দরিদ্র মানুষকেও।

সীতাকুণ্ডের দুই ইউনিয়নে মোট ৩ হাজার পরিবারে ত্রাণ বিতরণ উপলক্ষে বাঁশবাড়িয়া ও বাড়বকুণ্ডে পৃথক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। লে. শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেডের সভাপতি ও বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান তাসভীরের পক্ষে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ত্রাণ বিতরণ করেন শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেডের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজুর রহমান।   

বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শওকত আলী জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমাম উদ্দিন চৌধুরী আদিল ও আজিজুর রহমান জুয়েলের যৌথ সঞ্চালনায় দুটি অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সাদাকাত উল্লাহ মিয়াজী, বসুন্ধরা অয়েল অ্যান্ড গ্যাস কোম্পানি লিমিটেডের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (কো-অর্ডিনেশন) জহিরুল হক, ব্যবস্থাপক শেখ মাহতাব তানীম, সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাবের সভাপতি সৌমিত্র চক্রবর্তী, বসুন্ধরা গ্রুপের কর্মকর্তা আবুল হাসনাত, মো. আল-হেলাল, মোহাম্মদ রাজীব, মোহাম্মদ সোহাগ মিয়া, বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. রফিকুল আলম, বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহাজাহান, বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ হানিফ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাহাব উদ্দিনসহ বাড়বকুণ্ড ও বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য, আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতারা।

শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেডের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজুর রহমান বলেন, শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেডের সুযোগ্য সভাপতি ও বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান তাসভীর একজন নিঃস্বার্থ সমাজসেবক ও ক্রীড়ামোদী ব্যক্তিত্ব। তিনি সবসময় দেশের মানুষের জন্য কাজ করেন। করোনার এই মহামারিতে আপনাদের পাশে দাঁড়ানোর লক্ষ্যে তিনি এসব খাদ্য উপহার আপনাদের জন্য পাঠিয়েছেন। আপনারা তার জন্য, বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমদ আকবর সোবহানসহ সব কর্মকর্তার জন্য দোয়া করবেন। যেন তারা যেভাবে দেশের প্রত্যেক জেলা ও বিভিন্ন উপজেলায় ত্রাণ সামগ্রী দিচ্ছেন তা অব্যহত রাখতে পারেন।   

বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সাদাকাত উল্লাহ মিয়াজী বলেন, সীতাকুণ্ডে অনেক শিল্পপ্রতিষ্ঠান আছে। স্বল্প পরিসরে অনেকেই কয়েকশ’ দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। কিন্তু একসঙ্গে উপজেলার ৩ হাজার মানুষকে ত্রাণ কেউ দিতে পারেনি, যা একমাত্র বসুন্ধরাই করেছে। শুধু সীতাকুণ্ডে নয়, সারাদেশে বসুন্ধরার ত্রাণ পেয়ে উপকৃত হচ্ছে দরিদ্র মানুষ। এই গ্রুপটি নিয়ে তাই আমরা গর্ববোধ করি।   

সভাপতির বক্তব্যে বাঁশবাড়িয়ার ইউপি চেয়ারম্যান মো. শওকত আলী জাহাঙ্গীর বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপ এ এলাকার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে এসেছে। তারা এখানে শিল্পায়নের কাজ শুরুর পর এলাকার মানুষের অবহেলিত পরিত্যক্ত জমির দাম বেড়ে গেছে বহুগুণ। এলাকায় কর্মসংস্থান হচ্ছে। এই গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেডের সভাপতি সাফওয়ান সোবহান তাসভীরের পক্ষ থেকে আজ বাঁশবাড়িয়া ও বাড়বকুণ্ডে ৩ হাজার মানুষকে ত্রাণ হিসেবে খাদ্য দেওয়া হলো। আপনারা যারা উপকৃত হলেন তারা শুধু প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান আহমদ আকবর সোবহানসহ প্রতিষ্ঠানের সবার জন্য দোয়া করবেন। এই গ্রুপটির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করবেন যেন তারা সবসময় এভাবে আপনাদের-আমাদের পাশে থাকতে পারেন।