পুঁজিবাজারে আসছে ২০ হাজার কোটি টাকার স্থিতিশীলতা তহবিল

পুঁজিবাজারে আসছে ২০ হাজার কোটি টাকার স্থিতিশীলতা তহবিল

Other

শিগগির পুঁজিবাজারে আসছে ২০ হাজার কোটি টাকার স্থিতিশীলতা তহবিল। দীর্ঘদিন অলস পড়ে থাকা কোম্পানিগুলোর লভ্যাংশ থেকে যা তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি।  

নতুন এই তহবিল পুঁজিবাজারের বিপর্যয় ঠেকাতে ও বিনিয়োগকারীদের কম সুদে ঋণ দিতে কাজে লাগানো হবে বলে জানিয়েছে কমিশন চেয়ারম্যান। বেঁধে দেওয়া সময়ে তহবিলে অর্থ জমা না দিলে কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানিয়েছে কমিশন।

 

এক বছরে আমূল পরিবর্তন এসেছে দেশের পুঁজিবাজারে। বাজার মূলধন, সূচক কিংবা লেনদেন সব কিছুতেই আস্থা বেড়েছে বিনিয়োগকারীদের। মহামারীর সময়ে একদিকে ব্যাংক আমানতের সুদহার কমে গেছে, অন্যদিকে কমেছে বিনিয়োগের ক্ষেত্রও। সবমিলে বিনিয়োগ বাড়ছে পুঁজিবাজারে।

হিসেব বলছে, ২০২০ সালের আগস্ট মাস শেষে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ-ডিএসইর প্রধান সূচকের অবস্থান ছিলো ৪,৮৭৯ পয়েন্ট বর্তমানে যা ৬,৮৬৯ পয়েন্ট। বাজার মূলধন ওই সময়ে ছিল ৩,৬৯,৮৩৪ কোটি টাকা, বর্তমানে যা ছাড়িয়েছে ৫,৫৭,৯৭২ কোটি। অবিশ্বাস্য পরিবর্তন এসেছে লেনদেনেও, এক বছর আগের লেনদেন ছিলো ১০০০/১১০০ কোটি টাকা যা এখন ছাড়িয়েছে দুই হাজার কোটির ঘর।  

সম্প্রতি নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন। দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকা বিনিয়োগকারীদের অবন্টিত লভ্যাংশ নিয়ে নতুন তহবিল গঠন করতে যাচ্ছে তারা। যার আকার হতে যাচ্ছে ২০ থেকে ২১ হাজার কোটি টাকা। কমিশন চেয়ারম্যান বলছেন, তহবিল কাজে লাগানো হবে পুঁজিবাজারের কল্যাণে। বিনিয়োগকারীরা চাইলেও এই তহবিল থেকে স্বল্প সুদে ঋণ নিতে পারবেন।

আরও পড়ুন:


কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন পরীমনি

পাকিস্তানে মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি দীর্ঘস্থায়ী হবে না

বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে চাকরির সুযোগ

তাওবার নামাজ পড়ার নিয়ম


তবে সময়মতো তহবিলে অর্থ জমা নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। নিয়ন্ত্রক সংস্থা ৩০ আগস্ট দিন ধার্য করে দিলেও সব কোম্পানি এই সময়ের মধ্যে অর্থ জমা করতে পারছে না

তহবিল বাজার পতনের সময়ে ভূমিকা রাখবে বলে আশা বিনিয়োগকারীদের।   

news24bd.tv নাজিম