প্রেমিকের হাত থেকে বাঁচতে ৮ তলা থেকে লাফ!

অনলাইন ডেস্ক

প্রেমিকের হাত থেকে বাঁচতে ৮ তলা থেকে লাফ!

প্রেমিকের হাত থেকে নিজেকে রক্ষা করতে আট তলাবিশিষ্ট এক বাড়ির বারান্দা থেকে লাফ দেন ২২ বছর বয়সী জর্জিয়া ব্রড্রিক নামের এক নর্তকী। অস্ট্রেলীয় এই তরুণী লাফ দিয়ে বাড়ির বেড়ার ওপর পড়লেও বেঁচে যান।

জুলাই মাসের ১৭ তারিখ অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে এমন ঘটনা ঘটে।

আজ সোমবার যুক্তরাজ্যভিত্তিক গণমাধ্যম ডেইলি স্টারের এক প্রতিবেদন বলা হয়, জুলাইয়ের ১৭ তারিখ মেলবোর্নের এক বাসা থেকে জর্জিয়া ব্রড্রিক তার বাবাকে ফোন করেন। ফোন করে বলেন তিনি এসে যেন তাকে নিয়ে যান। তিনি সকালেই জানতে পেরেছেন তার প্রেমিক প্রতারণা করেছেন তার সঙ্গে। কিন্তু তার বাবা ঠিক সময়ে আসতে পারেননি। তাই জর্জিয়া ব্রড্রিক বাসার আট তলা থেকে লাফ দেন। পড়ে যাওয়ার পর তার শরীর পাওয়া যায় বাসার পাশের একটি খাদে। 

ডেইলি মেইল অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তার বাম হাতে জরুরি সার্জারি জন্য কোমাতে রাখা হয়েছিল। পরে আংশিকভাবে কেটে ফেলা হয় তার বাম হাত। পড়ে যাওয়ার পর তার মেরুদণ্ড, ঘাড় ও পা ভেঙে যায়।

তার আঘাতগুলো এতটাই খারাপ ছিল যে চিকিৎসকরা জানান, তার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ছিল মাত্র ১০ শতাংশ। 

অলৌকিকভাবে তিনি মস্তিষ্কে কোনো ধরনের আঘাত পাননি। তবে লাফ দেওয়ার আগের কোনো ঘটনা তার মনে নেই। পড়ে যাওয়ার আগে তার বয়ফ্রেন্ড কী ধরনের নির্যাতন করেছে; সে বিষয়ে কিছু মনে নেই তার।

ব্রড্রিক বলেন, আমি যদি তাকে ছেড়ে যাওয়ার চেষ্টা করি তবে তিনি দরজার সামনে বসে থাকতেন। আমাকে অ্যাপার্টমেন্ট থেকে বের হতে দিতেন না। তার ব্যাপারে আমার পরিবার আমাকে সতর্ক করার চেষ্টা করেছিল। কারণ তারা আমার প্রেমিকের কারসাজির বিষয়টি বুঝতে পারেন। 

তিনি আরো বলেন, আমার পরিবার সতর্ক করায় আমার বয়ফ্রেন্ড তাদের বিষয়ে খারাপ কথা বলতেন। আর আমার নিরাপত্তাহীনতার জন্য তাদের দোষ দিতেন। তিনি আমাকে এমনভাবে অনুভব করতে শিখিয়েছিলেন তিনিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি আমাকে সত্যই ভালোবাসেন।

খারাপ মানুষের সঙ্গে সম্পর্কে থাকা মানুষদের দ্রুত অন্যের সহযোগিতা চাওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন জর্জিয়া ব্রড্রিক।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য