যুক্তরাজ্যে ৪ মাত্রার সতর্কতা, বার-রেস্তোরাঁ বন্ধ রাত ১০টায়

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাজ্যে ৪ মাত্রার সতর্কতা, বার-রেস্তোরাঁ বন্ধ রাত ১০টায়

যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে ৪ মাত্রার সতর্কতা জারি করা হয়েছে। শুধু তাই নয় আগামী বৃহস্পতিবার থেকে স্থানীয় সময় রাত ১০টায় সব পাব, বার ও রেস্তোরাঁ বন্ধ করতে হবে। 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, ৪ মাত্রার সতর্কতা জারির অর্থ হলো করোনার সংক্রমণ দেশটিতে দ্রুত বাড়ছে।

সংবাদমাধ্যমটি আরও জানিয়েছে, আজ মঙ্গলবার স্থানীয় সময় রাত আটটায় যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন পার্লামেন্টে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন। করোনার সংক্রমণ রোধে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা জানাবেন তিনি।

বক্তব্যে বরিস জনসন সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেবেন। তিনি মাস্ক ব্যবহার ও নিয়মিত হাত ধোয়ার নির্দেশনা দেবেন। 

গণমাধ্যমের খবরে জানা যায়, বরিস জনসন বাণিজ্যে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে না—এমন জায়গায় ঘরে থেকে কাজ করতে মানুষকে আহ্বান জানাবেন।

ব্রিটিশ সরকারের প্রধান বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা স্যার প্যাট্রিক ভেলান্স সতর্কতা জারি করে বলেন, অক্টোবরের মাঝামাঝি পর্যন্ত দিনে করোনায় ৫০ হাজার মানুষ সংক্রমিত হতে পারে। ব্যবস্থা না নিলে নভেম্বরের মাঝামাঝি পর্যন্ত দিনে ২০০ জনের বেশি মৃত্যু হতে পারে।

যুক্তরাজ্যে গতকাল সোমবার ৪ হাজার ৩৬৮ জন করোনোয় সংক্রমিত হয়েছেন। মারা গেছেন ১১ জন। এর আগের দিন রোববার ৩ হাজার ৮৯৯ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন।

আজ স্কটল্যান্ডেও বিধিনিষেধ ঘোষণা করা হবে। নর্দান আয়ারল্যান্ডে সামাজিক ও পারিবারিক মেলামেশার ওপর বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

আজ সন্ধ্যা ছয়টা থেকে সাউথ ওয়েলসের চারটিরও বেশি কাউন্টিতে নতুন নিয়ম জারি করা হবে। পাব ও বারে রাত ১১টা থেকে কারফিউসহ নতুন ব্যবস্থা থাকবে।


আরও পড়ুন: অস্ট্রেলিয়ার উপকূলে ৯০টি তিমির মৃত্যু


যুক্তরাজ্যের মন্ত্রিসভার বৈঠক হবে স্থানীয় সময় আজ সকালে। বরিস জনসন জরুরি বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন। সেখানে স্কটল্যান্ড, ওয়েলস ও নর্দান আয়ারল্যান্ডের নেতারা অংশ নেবেন।

রেস্তোরাঁ বন্ধের নিয়ম নিয়ে সরকারের একজন মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা জানি এটা সহজ হবে না। তবে করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ও জাতীয় স্বাস্থ্যের সুরক্ষার জন্য এই পদক্ষেপ নিতে হবে।’

ইংল্যান্ডের উত্তর-পূর্ব, উত্তর-পশ্চিমে এবং ওয়েলসের বেশ কিছু এলাকায় পাব ও রেস্তোরাঁ খোলার সময় নিয়ে কঠোর বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে।তবে কতটা বিধিনিষেধ জারি করা প্রয়োজন এবং জনগণ কতটা নিতে পারবে, তা নিয়েও ভাবছেন মন্ত্রী ও উপদেষ্টারা।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য