কী আর বলব এসব নিয়ে?

কাজী তাহমিনা

কী আর বলব এসব নিয়ে?

আমার আম্মা এক এপার্টমেন্ট কমপ্লেক্সের একটা ফ্ল্যাটে ভাড়া থাকেন। এখন সেই বাসার টপ ফ্লোরে  আমরাও থাকি।

অন্যান্য কিছু খরচকে সীমিত করে, সাধ্যের চেয়ে কিছুটা বেশি ভাড়া দিয়ে থাকি, ভালো পরিবেশে থাকব বলে।

যদিও কেয়ারটেকার চাচা নিয়মিত সিঁড়ি ও কমন স্পেস পরিষ্কার করে রাখেন, তাও প্রায়ই দেখি, সেখানকার চার ফ্ল্যাটের মাঝখানের কমন স্পেসে কারা যেন ময়লা আবর্জনা/ অব্যবহৃত আসবাবপত্র ফেলে রাখে।

এমনকি লিফটে ব্যবহৃত টিস্যু ফেলা তো কমন ঘটনা।

আমি ছাদের পাশে থাকি এবং ছাদ ব্যবহার করি বলে নিজ দায়িত্বে সপ্তাহে দুতিনবার সাহায্যকারীর সাহায্যে ছাদ ঝাড়ু দেওয়াই, নিজে গাছের ও বাগানের পাতা পরিষ্কার করে রাখি। আরো অনেকেই ছাদ ব্যবহার করেন। তাদের বেশিরভাগই দায়িত্ববান, কিন্তু অন্যান্য দুএকজন ছাদে চালের গুড়া, মরিচ হলুদের গুড়া রোদ দিয়ে গুড়োর অর্ধেক, কাগজ- পেপার ছাদে ফেলে রেখে যান, মাছ শুটকি দিয়ে সেই দুর্গন্ধযুক্ত ছালা/ চট ছাদেই ফেলে রেখে চলে যান।

এছাড়াও অন্যান্য বাসায়ও প্রায়ই দেখেছি, আশেপাশের কয়েক বাসা থেকে আবার বারান্দা, কিচেন, এমনকি ওয়াশরুম থেকে টুপ করে ময়লা ফেলে দেয় কেউ কেউ!

একবার অফিস যাওয়ার পথে কে যেন উপর থেকে আমার গোসল করে পরা নতুন জামায় পিচিক করে মনের আনন্দে থুতু ফেলেছিল।

আরেকবার উপর থেকে ফেলা পানিতে প্রায় আধভেজা হয়েছি বাচ্চাকাচ্চাসহ। ভালো পানি, না ময়লা পানি, সেটাই বা কে জানে?

আর রাস্তাঘাটে, বাসে, ট্রেনে, লঞ্চ থেকে নদীতে, বেড়াতে গিয়ে যেখানে সেখানে চকলেট / বিস্কিট /চিপসের প্যাকেট, পানি/ কোকের বোতল, টিস্যু, কাগজ যখন তখন ছুড়ে ফেলা তো ডালভাত।

কী আর বলব এসব নিয়ে?
কাকেই বা বলব?

লেখাপড়া নামকাওয়াস্তে জানা, ডিগ্রিধারী লোকের সংখ্যা তো বাড়ছে, কিন্তু জীবন আচরণে সেই শিক্ষার প্রভাব কতটা, সেটা একটা প্রশ্ন বটে!

আবার একই এলাকারই কয়েক বাসার সামনে দিয়ে আসার সময় মনটা আনন্দে ভরে যায়।

যেমন- পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, আবার কোনো কোনো বাসার সামনের ছোট্ট টবগুলোর গাছ থেকে কখনো ভেসে আসে হাসনাহেনা, কখনো শিউলি, কখনো কামিনীর ঘ্রাণ।

নিজেকেসহ সকল অভিভাবকদের বলি,
আমি যখন রাস্তাঘাট, বাসাবাড়িতে এইসব অনিয়ম চালাব, অন্যের সুবিধা-অসুবিধা, নাগরিক অধিকারের কথা না ভেবে, মনের আনন্দে পরিবেশ দূষণ ঘটাব,  আমার সন্তান তো সেগুলোই শিখবে, তাই না?

আবার, আমি যদি আশপাশটা নোংরা না করে, বরং ছড়িয়ে দিই ফুলের সুবাস, সেটাও তো বাচ্চারা আমাকে দেখেই শিখবে!

কোনটা শেখাব, তা কিন্তু নির্ভর করছে আমার নিজের শিক্ষা ও বিবেচনার উপর।

কাজী তাহমিনা: বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক (ফেইসবুক থেকে)

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য