লক্ষ্য স্থির থাকলে এগিয়ে যাওয়া সহজ : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

প্রিন্ট করুন printer
লক্ষ্য স্থির থাকলে এগিয়ে যাওয়া সহজ : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একটা লক্ষ্য স্থির থাকলে এগিয়ে যাওয়া সহজ হয়। আমরা ক্ষমতায় আসার পর আশু করণীয় কী, মধ্য মেয়াদী, সুদূরপ্রসারি সব পরিকল্পনা করে দিয়েছি।

আজ বৃহস্পতিবার বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারদের ১১৬, ১১৭, ১১৮তম আইন ও প্রশাসন কোর্সের সমাপনী ও সনদ প্রদান অনুষ্ঠান তিনি এসব কথা বলেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বিসিএস প্রশাসন একাডেমিতে যুক্ত হন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০১৩ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য স্থির করেছি। ২১০০ সালের মধ্যে দেশ কেমন হবে তার পরিকল্পনা করেছি। আমাদের এগিয়ে যেতে হবে সেই লক্ষ্যে।

আরও পড়ুন:


‘ইসরাইলের সঙ্গে চুক্তি করেও নিরাপত্তা আসবে না’


তিনি বলেন, দেশ স্বাধীন হয় বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে। জাতির পিতা যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের দায়িত্ব নেন। মাত্র সাড়ে তিন বছর দায়িত্বে ছিলেন। তিনি দেশ পুনর্গঠনের কাজ শুরু করেছিলেন। কিন্তু ‘৭৫ এ সপরিবারে তাকে হত্যা করা হয়। দেশের পুরো ব্যবস্থাটাকে জাতির জনক ঢেলে সাজানোর পদক্ষেপ নিয়েছিলেন, সেটা বাস্তবায়িত হলে ১০ বছরের দেশ মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে উঠতো।

পাকিস্তানে ডন পত্রিকার বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ১৯৫৬ সালে বাঙালিরা কী অবস্থানে ছিল? বাঙালিরা পাকিস্তানিদের চোখে  নাকি যোগ্যই ছিল না। বাঙালিরা প্রশাসন ও সামরিক বাহিনীতে উচ্চপদে ছিল না। আইন ও প্রশাসনের ক্ষেত্রে কোনো নারী ছিল না। জাতির পিতা আইন ও প্রশাসনের ক্ষেত্রে যেন আমাদের মেয়েরা ঢুকতে পারে সেজন্য আইন করে দিয়েছিলেন।

অনুষ্ঠানে গণভবন প্রান্তে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এবং শাহবাগে বিসিএস প্রশাসন একাডেমি প্রান্তে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন, বিসিএস প্রশাসন একাডেমির রেক্টর বদরুন নেছাসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য