নেত্রকোনায় বেগুনের বাম্পার ফলন

সেহান আহমেদ কাকন, নেত্রকোনা

নেত্রকোনায় বেগুনের বাম্পার ফলন

বিভিন্ন জাতের সবজি অবাদ করে লাভবান হচ্ছেন নেত্রকোনার কৃষকেরা। বিশেষ করে উন্নজাতের বেগুনের ভালো ফলনে দাম কিছুটা কম হলেও দীর্ঘ সময় ফলন হওয়ায় লাভের আশা করছেন চাষীরা। এদিকে আধুনিক প্রযুক্তিতে উচ্চ ফলনশীল সবজি আবাদে কৃষকদের নানা পরামর্শ দিচ্ছে কৃষি বিভাগ।

জানা গেছে, নেত্রকোনার বারহাট্টা, মোহনগঞ্জ, কেন্দুয়া, সহ বিভিন্ন উপজেলায় এবার ব্যাপক ভাবে বিভিন্ন জাতের উচ্চ ফলনশীল সবিজর আবাদ করেছেন চাষীরা। এরমাঝে বারহাট্টা উপজেলার চিরাম ও সিংধা ইউনিয়নের কয়েকশত হেক্টর জমিতে ডাব বেগুন ও লতিরাজ কচুর আবাদ করেছেন কৃষকরা।

এখানকার উচ্চ ফলনশীল বেগুনের গুনগত মান ও স্বাদে সেরা হওয়ায় বাজারে এর চাহিদা রয়েছে বেশ। বিভিন্ন গ্রামে সরেজমিনে গিয়ে কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায় এবার বাম্পার ফলন হলেও বাজর দর কম পাচ্ছেন তারা। যদিও প্রতিদিন বাগান থেকে ভালো দামে কিনে নিয়ে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় বিক্রি করতে নিয়ে যাচ্ছেন পাইকারি ব্যবসায়ীরা। এতে ক্রেতা বিক্রেতা উভই লাভবান হচ্ছেন বলে জানান তারা।

দীর্ঘসময় ফলন দেয়া ও বাজার দর বাড়তে থাকায় সামনের দিনে ভালো লাভের আশা করছেন চাষীরা। উচ্চ ফলনশীল এ জাতের প্রতিটি বেগুন আধা কেজি থেকে এক কেজি পর্যন্ত ওজন হয় বলে জানান কৃষকরা। গেল কয়েক বছর ধরে বেগুন চাষাবাদ করে লাভবান হওয়ায় এখন আগ্রহী হয়ে উঠছেন অনেকইে। খবর পেয়ে বিভিন্ন স্থান থেকে চারা সংগ্রহ ও পরামর্শ নিতে আসছেন কৃষকেরা।

এদিকে আধুনিক প্রযুক্তিতে উচ্চ ফলনশীল সবজি আবাদে কৃষকদের নানা পরামর্ম দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন বারহাট্টা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাইমিনুর রশিদ।


আরও পড়ুনঃ


দক্ষিণ আফ্রিকায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুই বাংলাদেশি নিহত

মওদুদ আহমদ আমাদের একজন অভিভাবক ছিলেন: ফখরুল

সুনামগঞ্জে আবারও মহাসমাবেশ ডেকেছে হেফাজত

পত্রিকার সাংবাদিকগুলো বিসিএস ক্যাডার চাকরিটাকে বিশাল কিছু বানিয়ে ফেলেছেন


তিনি বলেন, বারহাট্টাসহ জেলার মাটি অত্যান্ত ভালো যে কারনে কিছুটা পরির্যা করেই বিভিন্ন জাতের সবজি আবদ করে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আনা সম্ভব। সেই লক্ষেই বারহাট্টায় স্থানীয় জাতর বেগুন সহ নানা জাতের সবজি আবাদের পরামর্শ দিচ্ছেন তারা।

জেলা কৃষি বিভাগের তথ্যমতে, এবার ধান, গম, ভূট্টাসহ প্রায় ১ লাখ ৮৪ হাজার হেক্টর জমিতে রবি শষ্যের আবাদ হয়েছে। এরমাছে ৫০ হাজার হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতে সবজি আবাদ করেছেন চাষীরা। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় ফলন হয়েছে বেশ। আগামীতে আবাদ আরো বৃদ্ধি করতে উদ্যোগ নিবে কৃষি সম্প্রসারন বিভাগ এমনটাই প্রত্যাশা কৃষকদের।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

বগুড়ায় পৃথক ঘটনায় নিখোঁজ ২ জনের লাশ উদ্ধার

আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া:

বগুড়ায় পৃথক ঘটনায় নিখোঁজ ২ জনের লাশ উদ্ধার

বগুড়ায় পৃথক ঘটনায় নিখোঁজ ২ জন ব্যাটারীচালিত অটোভ্যান ও রিকশা চালকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন, কাহালু উপজেলার জামগ্রামের গোলাম রব্বানীর ছেলে সাব্বির আহমেদ (১৪) ও নওগাঁ জেলার রানীনগর উপজেলার সেকেন্দার ফকিরের ছেলে শামীম ফকির (২৭)। তারা দু’জনই ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ও ভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন। 

সকাল ৯টায় শাজাহানপুর উপজেলার খরণা ইউনিয়নের জগন্নাথপুর এলাকায় রাস্তার পাশের ডোবা থেকে সাব্বিরের মরদেহ ও সকাল ১০টায় আদমদিঘী উপজেলার নসরতপুর ইউনিয়নের ধনতলা ম্যানকাপাড়া গ্রামের সিদ্দিক হাজীর আবাদী জমি থেকে শামীমের মরদেহ পুলিশ উদ্ধার করেছে।

শাহাজাহানপুর থানার ওসি (তদন্ত) নান্নু খান জানায়, সাব্বিরের বাবা ইজিবাইক চালক। করোনাতে স্কুল বন্ধ থাকায় সাব্বির ইজিবাইক চালিয়ে বাবাকে সহযোগিতা করে আসছিল। মঙ্গলবার সন্ধায় ইজিবাইকসহ সাব্বির নিখোঁজ হয়। এরপর আর তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। ওইদিন রাতে কাহালু থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে তার পরিবার। 

তিনি আরও জানান, দুর্বৃত্তরা ইজিবাইক ছিনিয়ে নিয়ে সাব্বিরকে গলায় রশি দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে হত্যা করে পুকুরে ফেলে রেখে গেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছি আমরা। 

এদিকে আরেকটি পৃথক ঘটনায় আদমদিঘী সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) নাজরান রউফ জানায়, বুধবার শামিম তার অটোরিকশা নিয়ে রানীনগর থেকে শ্বশুর বাড়ি আদমদিঘী উপজেলার কুসুমদি যাওয়ার জন্য সন্ধ্যায় অটোরিকশা নিয়ে বের হয়। এরপর আজ সকালে স্থানীয়রা লাশটি দেখতে পেয়ে থানায় খবর দিলে আমরা লাশটি উদ্ধার করি।

উভয় ঘটনায় নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আরও পড়ুন:


চলন্ত ট্রাকে তরুণীকে ধর্ষণ, অতঃপর যেভাবে উদ্ধার

দ্বিতীয় বিয়ের পর থেকেই অশান্তিতে ছিল আবু ত্ব-হা!

পরিবারের দাবি হত্যাকাণ্ড, দাফনের ১৫ দিন পর তরুণীর লাশ উত্তোল

পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

যশোরে করোনা হাসপাতালে বেড সংকট

যশোর প্রতিনিধি

যশোরে করোনা হাসপাতালে বেড সংকট

যশোরে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে ৫ জন। যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের রেডজোনে ১ ও ইয়লোজনে ৪ জন মারা গেছে। 

এ সময় নতুন করে আরও ১৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৬১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ১১২ বেডের বিপরীতে বর্তমানে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি আছে ১৪২ জন। 

যেখানে রেড জোনে ৮০টি বেডের বিপরীতে ৮৯ জন ইয়লোজনে ৩২ বেডের বিপরীতে ৫৩ জন ভর্তি রয়েছে। এছাড়া তিনটি আইসিইউ বেডে রোগী ভতি রয়েছে। এ জেলায় মোট আক্রান্ত ১০৩৪৭ জন। এর মধ্যে সুস্থ্য হয়েছে ৬ হাজার ৮শ’ ৮৮ জন। আর মারা গেছে ১১৯ জন।

এদিকে উচ্চঝুঁকির কারণে যশোরের লকডাউন ঘোষণা করেছে। সেই লকডাউন মানাতে প্রশাসন কঠোরতা আরোপ করেছেন। সেই সঙ্গে জনগণকেও সচেতন হওয়ার পরামর্শ স্বাস্থ্যকর্মকর্তাদের।

পরবর্তী খবর

নওগাঁয় গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

নওগাঁ প্রতিনিধি :

নওগাঁয় গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

নওগাঁর সাপাহারে সুমি (১৭) নামে এক কিশোরী গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত ৮টায় উপজেলার মাতৃছায়া ছাত্রাবাস থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সে উপজেলার উত্তরপাতাড়ী গ্রামের তফিজুল ইসলামের ছেলে সেলিম রেজার স্ত্রী। 

স্থানীয়রা ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৯মাস পূর্বে সেলিমের সাথে সুমির বিয়ে হয়। বিয়ের পর সেলিম বিষ কোম্পানী (সেট) চাকুরির সুবাধে স্ত্রী সুমি খাতুনকে গ্রামের বাড়িতে রেখে সে একায় উপজেলা সদরের সৌদি মসজিদ সংলগ্ন মাতৃছায়া ছাত্রাবাসের একটি রুম নিয়ে ভাড়া থাকত। গত ২২ জুন মঙ্গলবারে তাদের কোন এক আত্নীয়ের মৃত্যু হলে তার বাবা মেয়েকে জামাইয়ের বাড়ি হতে মৃত আত্নীয়ের বাড়ি নিয়ে যায়। 

বুধবার দুপুরে নিহত সুমির বাবা তার সুমিকে জামাইয়ের বাড়ি পৌঁছে দেয়ার জন্য সাপাহার সদরের জিরো পয়েন্টে নিয়ে এলে জামায় সেলিম তার স্ত্রীকে নিয়ে মাতৃছায়া ছাত্রাবাসে নিয়ে আসে এবং সন্ধ্যার দিকে সেলিম তার সুমির বাবাকে মোবাইলে ফোন করে জানায় যে, ছাত্রাবাসে মেয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্নহত্যা করেছে।

খবর পেয়ে নিহত সুমির পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে আসলে কৌশলে সেলিম সেখান থেকে পালিয়ে যায়। এরপর খবর পেয়ে সন্ধ্যায় সাপাহার থানা পুলিশ সেখানে গিয়ে ঘটনাস্থল হতে সুমির বাম হাত সুতলি দড়ি দিয়ে বাধা এবং গলায় গামছা পেছানো অবস্থায় তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। 

সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেকুর রহমান সরকার জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে লাশের শরীরের বিভিন্ন আলামত দেখে এ বিষয়ে থানায় নিয়মিত হত্যা মামলা রেকর্ড হয়েছে। 

আরও পড়ুন:


ভরাট গলায় ভাব নিয়ে ফোন, অবশেষে ধরা ভুয়া এমপি

নুসরাতের ‘প্রাক্তন স্বামী’ নিখিলের সঙ্গে দুই নায়িকার প্রেমের গুঞ্জন

'কৃষ ফোর' ঋত্বিকের বিপরীতে থাকতে পারে ক্যাটরিনা!

রহস্যের জট খুলছে, একাই বাবা-মা-বোনকে হত্যা করে মেহজাবিন‍!


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

বাগেরহাটে থেকে শুরু হয়েছে ৭ দিনের লকডাইন

বাগেরহাট প্রতিনিধি :

বাগেরহাটে থেকে শুরু হয়েছে ৭ দিনের লকডাইন

বাগেরহাট জেলায় আজ বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা থেকে শুরু হয়েছে ৭ দিনের কঠোর লকডাইন। লকডাইনের প্রথম দিনে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের সাথে দূরপাল্লা পরিবহন ও জেলার মধ্যে গণপরিবহন ও নৌযান চলাকালে বন্ধ রয়েছে। 

লকডাউনে কথা জানতে না পেরে ঘর থেকে বের হওয়া মানুষ গণপরিবহন না পেয়ে ভোগান্তিতে পড়েছে। জেলা ও উপজেলা সদরে অধিকাংশ দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠার বন্ধ রয়েছে। তবে, বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাগেরহাট শহর ও উপজেলা সদরে অধিকাংশ চায়ের দোকানসহ মাঝেমধ্যে দুই একটি দোকান খোলা দেখা গেছে। 

লকডাউনের প্রথম দিনেই সাধারণ মানুষের মাঝে স্বাস্থ্য বিধি মানার অনিহা দেখা গেছে। সকাল থেকেই শহরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসানো থাকলেও সাধারণ মানুষের মাঝে স্বাস্থ্যবিধি মানার আগ্রহ খুবই কম। শহরের প্রধান কাঁচাবাজার, মাছ বাজার, মৎস্য অবতারণ কেন্দ্র কেবি বাজার কোথাও যেন স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই। 

শহরের প্রবেশদারগুলোতে চেকপোস্ট থাকলেও ভিতরের চিত্র উল্টো। লোকজন মাস্ক ছাড়াই ঘোরা ফেরা করছে। লাকডাউন কার্যকরে মাঠে রয়েছে ১০টি ভ্রম্যমান আদালত। স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য শহরে থেকে জেলা তথ্য অফিস ও রেডেক্রিসেন্টের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে। কেউ যেন জরুরি কাজ ব্যতিত ঘর থেকে বের হতে নিষেধ করা হচ্ছে। 

এদিকে জরুরি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা থাকবে। দেশের আমদানী-রপ্তানী বানিজ্যে বিষয়টি প্রধ্যন্য দিয়ে মোংলা বন্দর এই লকডাইনের আওতা মুক্ত রাখা হয়েছে। মোংলা বন্দর জেটি ও পশুর চ্যানেলে নোঙ্গর করা জাহাজের নাবিকরা মোংলা বন্দরে নামতে দেয়া হচ্ছে না। 

বৃহস্পতিবার বাগেরহাটে নতুন করে ৪২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার হার ৩৪ শতাংশ। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায়েছে ২ হাজার ৭৯৪ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭৩ জন। জেলা সদরে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল ও ৮টি উপজেলা হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৯১ জন। 

হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ৬২৭ জন। এই অবস্থায় বাগেরহাট জেলায় করোনা সংক্রামণের হার ৪০ থেকে ৭৩ শতাংশের মধ্যে ওঠানামা করায় বুধবার বিকালে জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা মনিটরিং কমিটির সভা শেষে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান ৭ দিনের লকডাউন জারি করেন। 

আরও পড়ুন:


ভরাট গলায় ভাব নিয়ে ফোন, অবশেষে ধরা ভুয়া এমপি

নুসরাতের ‘প্রাক্তন স্বামী’ নিখিলের সঙ্গে দুই নায়িকার প্রেমের গুঞ্জন

'কৃষ ফোর' ঋত্বিকের বিপরীতে থাকতে পারে ক্যাটরিনা!

রহস্যের জট খুলছে, একাই বাবা-মা-বোনকে হত্যা করে মেহজাবিন‍!


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

কুষ্টিয়ায় করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু

জাহিদুজ্জামান, কুষ্টিয়া:

কুষ্টিয়ায় করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় করোনা পজিটিভ ৭ ও লক্ষণ নিয়ে ২ মোট ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আবদুল মোমেন জানান বুধবার সকাল আটটা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত এই ৯ জনের মৃত্যু হয়। 

তিনি বলেন, কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে এখন করোনা পজিটিভ রোগী ভর্তি আছে ১২৩ জন আর সন্দেহজনক করোনা রোগী ভর্তি আছেন ৩৪ জন। সবমিলিয়ে রোগী আছেন ১৫৭ জন। 

আবদুল মোমেন বলেন, মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। লকডাউন করার চেষ্টা থাকলেও তার ভেতরে দুর্বলতা থেকে যাচ্ছে। এ কারণেই করোনা সংক্রমণ বাড়েছে। 

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৪০ নমুনায় নতুন করে ১৩৯ জন পজিটিভ হয়েছে। এর হার ৩১.৫৯%। 

আরও পড়ুন:


ভরাট গলায় ভাব নিয়ে ফোন, অবশেষে ধরা ভুয়া এমপি

নুসরাতের ‘প্রাক্তন স্বামী’ নিখিলের সঙ্গে দুই নায়িকার প্রেমের গুঞ্জন

'কৃষ ফোর' ঋত্বিকের বিপরীতে থাকতে পারে ক্যাটরিনা!

রহস্যের জট খুলছে, একাই বাবা-মা-বোনকে হত্যা করে মেহজাবিন‍!


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর