ঘুষের ১৬ লাখ টাকা উধাও, থানায় ৪ কর্মচারী
ঘুষের ১৬ লাখ টাকা উধাও, থানায় ৪ কর্মচারী

ঘুষের ১৬ লাখ টাকা উধাও, থানায় ৪ কর্মচারী

অনলাইন ডেস্ক

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) রিয়াদ হোসেনের কার্যালয় থেকে ১৬ লাখ টাকা চুরির অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (২৮ জুন) দিবাগত রাত সোয়া ১২ টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেহ উদ্দিন।

এ ঘটনায় একই কার্যালয়ের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর আবদুল বাকেরসহ ৪ কর্মচারীকে থানায় আটকে রাখা হয়েছে।

রাতে আবদুল বাকেরের স্ত্রী শারমিন আক্তার জানিয়েছেন, বিকেলে পিআইও নিজেই তাদের বাসায় গিয়ে টাকা খোঁজার নামে তল্লাশি চালায়।

এসময় পিআইও বাসার আসবাবপত্র ভাঙচুর করেছেন।

অন্যদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তিনজন ঠিকাদারের অভিযোগ, পিআইও রিয়াদ প্রত্যেকটি কাজেই ঘুষ নেয়। ঘুষ ছাড়া তিনি কোনো ফাইল বা বিলের চেকে সই করেন না। সম্প্রতি কয়েকটি কাজের বিলের চেকে সই করার জন্য তাদের কাছ থেকে তিনি ১-৩ লাখ টাকা করে ঘুষ নিয়েছেন।

একজন ইউপি চেয়ারম্যানসহ একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছেন, জুন ক্লোজিং উপলক্ষে পিআইও তাদের কাছ থেকে কমিশন নিয়েছেন। তাদেরকে বাধ্য করা হয়েছে। ঘুষের এ ১৬ লাখ টাকা নিয়ে তিনি সংশ্লিষ্টদের বিল দেয়ার কথা। দুদকের মাধ্যমে সুষ্ঠু তদন্ত বেপরোয়া ঘুষ বাণিজ্যের সব তথ্য বেরিয়ে আসবে।


ভায়াগ্রা ভেবে ভুল ওষুধ খেয়ে মৃত্যু

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত বন্ধের সময় আরও বাড়ল

বসুন্ধরা কিংসের গোল উৎসব

স্বপ্নে এসে একাধিকবার ধর্ষণ, তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে নারীর অভিযোগ


জানা গেছে, রিয়াদ হোসেন রামগতি উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা। কমলনগর উপজেলার শূন্যপদে তিনি অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন।

এ ব্যাপারে কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেহ উদ্দিন বলেন, থানায় চারজনকে ডাকা হয়েছে। তবে পিআইও এখনো কোনো নির্দিষ্ট অভিযোগ দেননি। এটা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ না পাওয়া পর্যন্ত আমি টাকার বিষয়ে কিছু বলতে পারছি না।

সবশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত রাত সাড়ে ১২টায়ও পিআইও রিয়াদ ও ওসি মোসলেহ উদ্দিন আটক কর্মচারীদের থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন।

news24bd.tv / নকিব

;