ফল খাওয়ার উপযুক্ত সময় কোনটি জেনে নিন

অনলাইন ডেস্ক

ফল খাওয়ার উপযুক্ত সময় কোনটি জেনে নিন

দিনের মধ্যে সবচেয়ে ভালো সময় কখন ফল খাবেন। আর কখন ফল খাওয়া উচিত নয়, কিভাবে ফল খেতে হয়, ফল খাওয়ার উপযুক্ত সময় কোনটি জেনে নিন। 

অনেকে একসঙ্গে অনেক রকম ফল মিশিয়ে খান, যা একেবারেই সঠিক নয়। একসময় বসে একটি ফলই খেতে হবে।  উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি আপেল খান তবে শুধু আপেলই খান এবং এতে কলা বা অন্য কোনো ফল মেশাবেন না। তবে বর্তমানে ফ্রুট সালাদ খাওয়ার অনেক প্রবণতা আছে। কিন্তু আপনি এই ফল থেকে তেমন কোনো পুষ্টি পাবেন না। 

ফলে প্রচুর পরিমাণে ফিটামিন, মিনারেলস, অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস এবং ফাইবার থাকে। ফল খাওয়ার সবচেয়ে উপযোগী সময় সকাল বেলা। সকালে ফল খেলে এর যাবতীয় গুণ সহজেই শরীরে শুষে যায়। মিড মর্নিং স্ন্যাক হিসেবেও ফল খাওয়া যেতে পারে। ব্রেকফাস্ট ও লাঞ্চের মধ্যে আমাদের খিদে পায়। এই সময় অন্য কিছু না খেয়ে ফল খেতে পারেন। ওয়ার্কআউটের আগে-পরেও ফল অত্যন্ত উপযোগী। ফল ওয়ার্কআউটের জন্য প্রয়োজনীয় এনার্জি শরীরকে দেয়। ব্যায়ামের পরে শরীরে যে এনার্জির ঘাটতি দেখা দেয়, তা পূরণ করতেও ফলের জুড়ি মেলা ভার।

আরও পড়ুন


টি-স্পোর্টসে আজকের খেলা

জাহাজে হামলার ঘটনায় ইরানকে দায়ী করল ইসরায়েল

যে কারণে কোরআনে ৮২ বার নামাজের কথা বলা হয়েছে

অনেকে ফলের রস খেতে বেশি পছন্দ করেন। কিন্তু ফল পুরোটাই খেতে হবে আপনাকে। রস খেলে ফলে যে ফাইবার থাকে তা শরীর গ্রহণ করতে পারে না পুরোপুরি।

news24bd.tv রিমু 

 

পরবর্তী খবর

শরীরে প্রচুর শক্তি ও প্রোটিন জোগায় খেজুর

অনলাইন ডেস্ক

শরীরে প্রচুর শক্তি ও প্রোটিন জোগায় খেজুর

খেজুর প্রোটিনের একটি শক্তিশালী উৎস। নিয়মিত শরীরচর্চায় প্রতিদিনের খাবারে খেজুর রাখা একটি চমৎকার সিদ্ধান্ত হতে পারে। এছাড়া রুচি বাড়াতে খেজুর অনেক কার্যকরী একটি খাবার। 

পানিতে ভিজিয়ে প্রতিদিন সকালে খেজুর খেলে হজমের দ্রুত উন্নত হয়। এর উচ্চ ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্যে সমস্যার সমাধানও করে। খেজুর কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং ওজন কমাতেও সহায়তা করবে।

খেজুরে থাকে ভিটামিন বি ১, বি ২, বি ৩, বি ৫, এ ১ এবং সি। এটি আপনাকে সুস্থ রাখার পাশাপশি আপনার শক্তির মাত্রায়ও একটি লক্ষণীয় পরিবর্তন আনবে। কারণ খেজুরে আছে গ্লুকোজ, সুক্রোজ এবং ফ্রুক্টোজের মতো প্রাকৃতিক শর্করা। সুতরাং প্রতিদিনের নাস্তার বিকল্প হিসেবেও রাখতে পারেন। কারণ দ্রুত শক্তি পেতে খেজুরের চেয়ে ভালো বিকল্প হয় না।

হাড় ভালো রাখার ক্ষেত্রে খেজুর বিস্ময়করভাবে কাজ করে। খেজুরে আছে সেলেনিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, তামা এবং ম্যাগনেসিয়াম যা আমাদের হাড়কে সুস্থ রাখতে এবং অস্টিওপরোসিসের মতো রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

রও পড়ুন:

ধীর জীবন মানেই অলস জীবন নয়

একটি হটডগ আয়ু কমাতে পারে ৩৬ মিনিট পর্যন্ত!

ইভা রহমান এখন ইভা 'আরমান'

তৃতীয় স্বামীর কাছে শুধু বিচ্ছেদই নয়, খরচও চাইলেন শ্রাবন্তী


এছাড়াও খেজুরে থাকা পটাশিয়াম আমাদের শরীরের জন্য ভীষণ উপকারী। বিশেষ করে স্নায়ুতন্ত্রকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে এই উপাদান। এতে অল্প সোডিয়ামও থাকে যা আপনার স্নায়ুতন্ত্রকে ঠিক রাখে। খেজুর পটাশিয়াম কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণে রাখে। 

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

নিয়ন্ত্রণে আসছে না ডেঙ্গু

মারুফা রহমান

দেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৭৫ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। যার ভেতর ৬৪ জন ঢাকার বাইরে এবং বাকি ২১১ জনই ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এ নিয়ে চলতি বছরে দেশে ১৫ হাজার ৯৭৬ জনের ডেঙ্গু শনাক্ত হয়েছে। আর মারা গেছেন ৫৯ জন। সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। তবে আগামী একমাসের মধ্যে ডেঙ্গুর প্রকোপ কমার আশাবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে, এক হাজার ৭২ জন রোগী ভর্তি আছেন। তাদের মধ্যে ঢাকার ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ৮৫৭ জন ও দেশের অন্যান্য বিভাগগুলোতে ২১৫ জন রোগী ভর্তি আছেন।

আগামী এক মাসের মধ্যে ডেঙ্গুর প্রকোপ কমে আসার আশ্বাস দিয়ে, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেছেন,  দীর্ঘ সময় ছুটিতে মানুষ গ্রামের বাড়িতে থাকায় বাসাবাড়ি ও নির্মাণাধীন ভবনে পানি জমে এডিস মশার জন্ম হয়েছে।


বিয়ে ছাড়াই আবারও মা হচ্ছেন কাইলি জেনার

বলিউড পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজের প্রস্তাবে মিমের না!

দেশমাতা, আমাকে কি একটু নিরাপত্তা দিতে পারেন


 

চিকিৎসকরা বলছেন, আক্রান্তের সঠিক তথ্য আরও অনেক হবে কারণ মানুষ সময় মত টেষ্ট করছে না।  মৃত্যু ঝুঁকি থেকে বাঁচতে জ্বর হলেই চিকিৎসকের কাছে যাওয়া এবং এডিস মশা নিধন করার কোন বিকলন্প নেই বলেও জানান এভারকেয়ার হাসপাতালের চিকিৎসক   ডা: আরিফ মাহমুদ।

এ বছর ১ জানুয়ারি থেকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সর্বমোট ১৫ হাজার ৯৭৬ জন। একই সময়ে তাদের মধ্য থেকে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৪ হাজার ৮৪৬ জন রোগী। আর চলতি বছরে এ পর্যন্ত ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫৯ জনের।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

যে বয়সের শিশুদের জন্য ফাইজারের ভ্যাকসিন নিরাপদ

অনলাইন ডেস্ক

যে বয়সের শিশুদের জন্য ফাইজারের ভ্যাকসিন নিরাপদ

৫-১১ বছর বয়সী শিশুদের জন্য করোনার টিকার নিরাপদ এবং এন্টিবডি তৈরিতে কার্যকরী। দুই থেকে তিনবার ট্রায়ালের পর এ কথা বলছে ফাইজার। সিএনএন এর খবরে এই তথ্য জানানো হয়।

এই প্রথম শিশুদের জন্য টিকা প্রয়োগের কোনো ফলাফল প্রকাশ্যে এনেছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো ডেটা প্রকাশ করা হয়নি। ফাইজার বলছে, দ্রুত সময়ের মধ্যে শিশুদের টিকা প্রয়োগে একটি পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্রের ফুড এন্ড ড্রাগ প্রশাসনের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই তারা কাজ শুরু করবে। ফাইজারের পরিকল্পনা জমা দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে এফডিএ। এবং সংস্থাটি কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই শিশুদের টিকা প্রয়োগে ফাইজারের টিকা অনুমোদন দেওয়ার চিন্তা-ভাবনা করছে।

শিশুদের উপর টিকা ট্রায়ালের জন্য ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী ২ হাজার ২৬৮ জন শিশুকে নির্বাচিত করা হয়। ২১ দিনের মাথায় এসব শিশুদের দুই ডোজ টিকা প্রয়োগ করা হয়। প্রতি ডোজে ১০ মাইক্রোগ্রাম থেকে ৩০ মাইক্রোগ্রাম ছিল। ১২ বছর বয়সী শিশুদের ৩০ মাইক্রোগ্রাম ডোজের টিকা প্রয়োগ করা হয়।

ফাইজার এক নিউজ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের নিরাপত্তা, সহনশীলতা এবং টিস্যু বিবেচনায় ১০ মাইক্রোগ্রামের টিকাটি সাবধানতার সঙ্গে নির্বাচন করেছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

শরীরের বাইরে শিশুর হৃদপিণ্ড, ব্যয়বহুল বলে হচ্ছে না চিকিৎসা

অনলাইন ডেস্ক

শরীরের বাইরে শিশুর হৃদপিণ্ড, ব্যয়বহুল বলে হচ্ছে না চিকিৎসা

শরীরের বাইরে হৃদপিণ্ড নিয়ে জন্ম নিয়েছে এক নবজাতক। বরিশালের আগৈলঝাড়ায় এই ঘটনা ঘটে।

সেখানকার স্থানীয় একটি ক্লিনিকে গত বৃহস্পতিবার অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে শিশুটির জন্ম হয়।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, হৃদপিণ্ড শিশুর শরীরের ভেতরে স্থাপন করা সম্ভব। তবে এ চিকিৎসা অনেক ব্যয়বহুল। যার জন্য দরকার ৮ থেকে ১০ লাখ টাকা।

টাকার অভাবে এই চিকিৎসা শুরু করতে পারেননি রমেন-অপু দম্পতি। সন্তানকে বাঁচাতে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন তারা।

শিশুটির বাবা-মা জানান, জন্মের পরই দেখতে পান নবজাতক কন্যার হৃদপিণ্ড শরীরের বাইরে। সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শে মেয়েকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।

সেখানকার চিকিৎসকদের পরামর্শে শিশুটিকে ঢাকা শিশু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে তাদের পাঠানো হয় রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে।


আরও পড়ুন

সারাদেশের কুরিয়ার `সদাগর এক্সপ্রেস`

স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজির বিরুদ্ধে চার্জশিট

নুসরাতকে সাবেক স্বামীর আইনি নোটিশ


বারডেমের চিকিৎসকরা জানান, শিশুটিকে আইসিইউতে ভর্তিসহ অপারেশনের জন্য খরচ হবে প্রায় ৮ থেকে ১০ লাখ টাকা।

চিকিৎসার জন্য এত টাকা না থাকায় আবার শিশুটিকে ঢাকা থেকে ফেরত এনে স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজির বিরুদ্ধে চার্জশিট

অনলাইন ডেস্ক

স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজির বিরুদ্ধে চার্জশিট

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করে, রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমসহ ছয় জনের বিরুদ্ধ চার্জশিট অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

আজ সোমবার দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে ওই চার্জশিট অনুমোদন দেয়া হয়েছে বলে সংস্থাটির ঊর্ধ্বতন একটি সূত্র জানিয়েছে।

২০২০ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর সংস্থাটির উপপরিচালক মো. ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী বাদী হয়ে সাহেদ ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চার কর্মকর্তাসহ পাঁচ জনকে আসামি করে মামলা করেন। যদিও আসামির তালিকায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদের নাম ছিল না। তবে এবার চার্জশিটে তার নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

মামলার আসামিরা হলেন- রিজেন্ট হাসপাতাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ, সাবেক পরিচালক আমিনুল হাসান, উপ-পরিচালক (হাসপাতাল-১) ডা. মো. ইউনুস আলী, সহকারী পরিচালক (হাসপাতাল-১) ডা. মো. শফিউর রহমান এবং গবেষণা কর্মকর্তা ডা. মো. দিদারুল ইসলাম।

আসামিদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন খাতে ৩ কোটি ৩৪ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর