বগুড়ায় এই প্রথম এত মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

বগুড়ায় এই প্রথম এত মৃত্যু

বগুড়ার ৩ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনা এবং উপসর্গ নিয়ে আরও ২৬জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৮জন এবং উপসর্গে  ৮ জন মারা গেছেন। জেলার তিন হাসপাতালে  রোববার সকাল ৮টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় তাদের মৃত্যু হয়। এদের মধ্যে বগুড়া জেলার ১৮ জন এবং অন্য জেলার রয়েছেন ৮ জন।

করোনায় মৃত বগুড়ার ১০জন হলেন- আদমদীঘির মোমেনা(৬০), শাজাহানপুরের আ. আজিজ(৪৮), সোনাতলার শামসুদ্দিন(৬৫), গাবতলীর আজিজার রহমান(৭৭), আদমদীঘির আকতার বানু(৮৫), সদরের জয়নুল(৭১), মতিউর(৬০),  বজলার রহমান(৭৫), বাধন চন্দ্র(৬৫) এবং শিবগঞ্জের তাজুল ইসলাম(৬০)।

বগুড়ার বাইরের জেলার ৮জন বাসিন্দা চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনায় মারা গেছেন। তবে বাইরের জেলার মৃত্যুর সংখ্যা যোগ না হওয়ায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা বগুড়ার নতুন ১০জনসহ ৫৮২জনে দাঁড়িয়েছে।

বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান তুহীন সোমবার  বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অনলাইন ব্রিফিংয়ে জেলার করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, এ ছাড়া  বগুড়ায়  আবারও সংক্রমণ বেড়েছে।  সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৪৭৮ নমুনায় নতুন করে আরও ১২৬জন শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তের হার ২৬ দশমিক ৩৫ শতাংশ। এর মধ্যে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ(শজিমেক) এর পিসিআর ল্যাবে ২৮২নমুনায় ৬২জন, জিন এক্সপার্ট মেশিনে ৪ নমুনায় ৩, এন্টিজেন পরীক্ষায় ১৬৯ নমুনায় ৫১জন এবং টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ২৩ নমুনায় ১০জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে সদরের ৬১, শাজাহানপুরে ১৯, শিবগঞ্জে ১২, শেরপুরে ৬, গাবতলীতে ৬, আদমদীঘিতে ৫, দুপচাঁচিয়ায় ৫, ধুনটে ৪, নন্দীগ্রামে ৩, সারিয়াকান্দিতে ২, সোনাতলায় ২ এবং কাহালুতে একজন।এছাড়া একই সময়ে করোনা থেকে ১৯৩জন সুস্থতা লাভ করেছেন।

ডা. তুহীন আরও জানান, জেলায় এ পর্যন্ত মোট ১৯ হাজার ১২০জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ৫৪জন। এছাড়া জেলায় ১ হাজার ৪৮৪জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ডেঙ্গুতে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬৩ জন হাসপাতালে ভর্তি

অনলাইন ডেস্ক

ডেঙ্গুতে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬৩ জন হাসপাতালে ভর্তি

দেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গেলো ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬৩ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। যাদের অধিকাংশই রাজধানী ঢাকার বাসিন্দা। ডেঙ্গুতে চলতি বছরে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ হাজার ২২৮ জনে দাঁড়িয়েছে। আর মারা গেছেন ৫৭ জন।

আজ বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে নতুন ১৬৩ জন ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৪০ জন। ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২৩ জন। 

আরও পড়ুন:


একবার বিদ্রোহী হলে আজীবন নৌকা থেকে বঞ্চিত

ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ পাঁচে নেই আর্জেন্টিনা

করোনায় স্কুল বন্ধ থাকায় শ্রেণিকক্ষে সপরিবারে বসবাস

রোহিঙ্গা ইস্যুতে কমনওয়েলথের সহায়তা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী


গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ১৬৩ জন নিয়ে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি থাকা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক হাজার ১৯১ জনে। ঢাকার ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৯৮৮ জন এবং অন্যান্য বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন ২০৩ জন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত হাসপাতালে সর্বমোট রোগী ভর্তি হয়েছেন ১৫ হাজার ২২৮ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৩ হাজার ৯৮০ জন রোগী। ডেঙ্গুতে এ সময়ে ৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সামর্থ্য থাকলে বিদ্যালয়ের ফি অবশ্যই পরিশোধ করা উচিত: শিক্ষামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

সামর্থ্য থাকলে বিদ্যালয়ের ফি অবশ্যই পরিশোধ করা উচিত: শিক্ষামন্ত্রী

‘বন্ধ থাকায় দীর্ঘদিন অনেক শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ের ফি পরিশোধ করেনি, যা এখন অনেকের বোঝা হয়ে গেছে। ফি পরিশোধের জন্য হয়তো ইনস্টলমেন্টের মাধ্যমে বা অন্য কোনো ব্যবস্থা করা যেতে পারে। আর যাদের সামর্থ্য আছে, তাদের অবশ্যই ফি পরিশোধ করা উচিত। সেই ফির সঙ্গে অ্যাসাইনমেন্টের কোনো সম্পর্ক নেই এবং অ্যাসাইনমেন্টের সঙ্গে মিলানো ঠিক হবে না।’

আর ও পড়ুন: 


সমুদ্রে নামতে মানতে হবে এই ১০ নির্দেশনা

হাতিয়ায় দেশীয় বন্দুক, তাজা গোলা ও পাইরোটেকনিক উদ্ধার

তিন কিউই ক্রিকেটারের করোনা শনাক্ত, পাকিস্তান সিরিজ বাতিল

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার অভিযোগে মেয়র তাপসের কুশপুত্তলিকা দাহ


আজ শুক্রবার দুপুরে চাঁদপুর সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

দীপু মনি বলেন, ‘শুধু কোভিড বা ডেঙ্গুর জন্য নয়, সুস্থ সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য সবাইকেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান-বাড়ি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা উচিত। স্বাস্থ্যবিধি মানা অভ্যাসে পরিণত করা উচিত।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্যারেড

নিজস্ব প্রতিবেদক

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্যারেড

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর চৌকস প্যারেড কন্টিনজেন্ট বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর একটি গ্রুপ প্যারেডে অংশ নিয়েছে।

সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. সোলাইমানের নেতৃত্বে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর চৌকস প্যারেড কন্টিনজেন্ট বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকালে মেক্সিকো সিটিতে আয়োজিত প্যারেডে উপস্থিত মেক্সিকোর রাষ্ট্রপতিকে সালাম প্রদর্শন করে।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) এর সহকারী পরিচালক রাশেদুল আলম খান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে এ তথ্য জানানো হয়।

প্যারেডে অংশগ্রহণকারী ৩৯ সদস্য বিশিষ্ট কন্টিনজেন্ট এর মধ্যে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দুজন অফিসার, তিনজন জেসিও, অন্যান্য পদবীর ১৬ জন সহ ২১ জন, বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একজন অফিসার, একজন জেসিও, অন্যান্য পদবির ছয়জন সহ  আটজন, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একজন অফিসার, একজন জেসিও, অন্যান্য পদবির ছয়জন সহ আটজন এবং সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ হতে দুজন অফিসার রয়েছে।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে এ অনুষ্ঠানের সার্বিক দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে।

আর ও পড়ুন: 


সমুদ্রে নামতে মানতে হবে এই ১০ নির্দেশনা

হাতিয়ায় দেশীয় বন্দুক, তাজা গোলা ও পাইরোটেকনিক উদ্ধার

তিন কিউই ক্রিকেটারের করোনা শনাক্ত, পাকিস্তান সিরিজ বাতিল

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার অভিযোগে মেয়র তাপসের কুশপুত্তলিকা দাহ


গত ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখে মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত বিশেষ কুচকাওয়াজে অংশগ্রহণের জন্য মেক্সিকো সরকারের আমন্ত্রণে বাংলাদেশ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সমন্বয়ে সশস্ত্র বাহিনীর ৩৯ সদস্য বিশিষ্ট একটি সামরিক কন্টিনজেন্ট মেক্সিকো  মেক্সিকো যায়।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ইভ্যালির সিইও রাসেলের মুক্তি চেয়ে আন্দোলন, আটক ১

অনলাইন ডেস্ক

ইভ্যালির সিইও রাসেলের মুক্তি চেয়ে আন্দোলন, আটক ১

মো. রাসেল

ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেলের মুক্তি চেয়ে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের সামনে আন্দোলন করায় একজনকে আটক করা হয়েছে।

আজ দুপুরে তাকে আটক হয়। তাৎক্ষণিকভাবে আটক হওয়া ব্যক্তিটির নাম জানা যায়নি।

এর আগে শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপর ২টার দিকে তাদের ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এসময় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক ওয়াহিদুল ইসলাম তাদের ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন।

অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী মনিরুজ্জামান লিটন তাদের রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম আসামিদের বিরুদ্ধে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সমুদ্রে নামতে মানতে হবে এই ১০ নির্দেশনা

অনলাইন ডেস্ক

সমুদ্রে নামতে মানতে হবে এই ১০ নির্দেশনা

‘সতর্কতাই নিরাপত্তার পূর্বশর্ত’ এই স্লোগানে সমুদ্রের পানিতে নামার আগে করণীয় ও সতর্কতার ব্যাপারে ১০ দিনব্যাপী ক্যাম্পেইন শুরু করেছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্টে এই ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ।

তিনি বলেন, সমুদ্রের পানিতে নামার আগে কিছু সতর্কবার্তা এই ১০ দিন আমরা প্রচার করতে চাই। পর্যটক যারা আসবেন তাদের তো জানা নেই যে এখানে লাইফগার্ড আছে। এখানে সিকিউরিটির ব্যবস্থা আছে। কোন চিহ্ন দিয়ে কি অর্থ প্রকাশ পায়, লাল পতাকার অর্থ কী ইত্যাদি। আত্মীয়স্বজন, পরিবার-পরিজন নিয়ে যারা কক্সবাজার সৈকতে বেড়াতে আসেন তারা অনেক সময় সিগনালগুলো খেয়াল করতে পারে না।

তাদের অবগতির জন্য এই আয়োজন করা হয়েছে। তাদের সহায়তার জন্য এখানকার বিচকর্মীরা সার্বক্ষণিক সজাগ রয়েছেন।

আজ থেকে শুরু করে আগামী ১০ দিন পর্যন্ত কলাতলী, সুগন্ধা এবং লাবণী বিশেষ করে এই তিনটা পয়েন্টে এ রকম প্রচারাভিযান চালানো হবে। এখন থেকে পর্যটকরা সমুদ্রস্নান কিংবা পানিতে নামার আগে প্রশাসনের দেওয়া নির্দেশনা ও সময়সূচি মেনে সমুদ্রসৈকতে নামবেন। এ সময় তিনি পর্যটকদের সহযোগিতার আহ্বান জানান।

এদিকে দেখা যায়, সমুদ্রসৈকতে গোসল করতে নামার আগে পর্যটকদের উদ্দেশে ১০ নির্দেশনা দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

এ ছাড়া গুপ্ত গর্ত (চোরাইখাল) ও গণস্রোতপ্রবণ এলাকা চিহ্নিত করে সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:


পর্ন ভিডিও বানানোর সেই কাহিনী জানালেন পরী

৪ রানে জয় পেল বাংলাদেশ

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার অভিযোগে মেয়র তাপসের কুশপুত্তলিকা দাহ

 নাটোরে সড়কে গেল মুক্তিযোদ্ধার প্রাণ

গয়েশ্বর বললেন, আওয়ামী লীগ ফুল স্টপ হয়ে যাবে


 

সমুদ্রে নামার আগে যে ১০ সতর্কতা মানতে হবে

১। সাঁতার না জানলে সমুদ্রের পানিতে নামার সময় লাইফ জ্যাকেট ব্যবহার করতে হবে।

২। লাল পতাকা চিহ্নিত করা পয়েন্টে কোনোভাবে নামা যাবে না।

৩। সৈকত এলাকায় সর্বদা লাইফগার্ডের নির্দেশনা মানতে হবে।

৪। বিকেল ৫টার পর সমুদ্রে নামা যাবে না।

৫। সমুদ্রে নামার আগে জোয়ার-ভাটাসহ আবহাওয়ার বর্তমান অবস্থা জেনে নিতে হবে

৬। লাইফগার্ড নির্দেশিত নির্ধারিত স্থান অন্য কোনো পয়েন্ট থেকে সমুদ্রে নামা যাবে না

৭। সমুদ্রে যেকোনো মুহূর্তে তীব্র স্রোত এবং গুপ্ত গর্ত সৃষ্টি হতে পারে।

৮। যে কোনো ভাসমান বস্তু পানিতে নামার আগে বাতাসের গতি সম্পর্কে জেনে নিন।

৯। শিশুকে সৈকতে সব সময় সঙ্গে রাখুন, তাকে একা সমুদ্রে নামতে দেবেন না।

১০। অসুস্থ অথবা দুর্বল শরীর নিয়ে সমুদ্রে হাঁটুপানির বেশি নামবেন না।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর