বুর্জ খলিফার চূড়ায় উঠে বিজ্ঞাপন করা কে সেই সাহসী তরুণী (ভিডিও)
বুর্জ খলিফার চূড়ায় উঠে বিজ্ঞাপন করা কে সেই সাহসী তরুণী (ভিডিও)

বুর্জ খলিফার চূড়ায় উঠে বিজ্ঞাপন করা কে সেই সাহসী তরুণী (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

দুবাইয়ের বুর্জ খলিফার চূড়ায় উঠে এমিরেটস সংস্থার বানানো বিজ্ঞাপন ইতিমধ্যেই সারাবিশ্বে ভাইরাল। এতো উঁচুতে উঠে বিজ্ঞাপন বানানোর সাহসী পদক্ষেপের প্রশংসা করছেন অনেকেই। মূলত এমিরেটস বিমান সংস্থাকে লাল তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে ব্রিটেন। তারপরই ভ্রমণ ইচ্ছুকদের এমিরেটসের বিমানে চড়ার আবেদন জানিয়ে ওই বিজ্ঞাপন বানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপনটিতে বুর্জ খলিফার একদম চূড়ায় এক তরুণীকে তুলে দিয়ে শ্যুটিং করানো হয়। ভিডিওটি দেখে যে কারও শরীর শিহরিত হয়ে উঠবে। কিন্তু কে এই তরুণী? যে কি না এতো বড় সাহসী একটি পদক্ষেপ নিল।

বুর্জ খলিফার চূড়ায় উঠা ওই তরুণীর নাম নিকোল স্মিথ-লুদভিক। বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে সারা বিশ্বে পরিচিতি পেয়েছেন তিনি। এমিরেটস বিমানসেবিকার পোশাক পরে ওই রকম উচ্চতায় দাঁড়িয়ে থাকা নিকোল বাস্তবে একজন অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় মানুষ।

‘টপ অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ নামে এমিরেটসের এই বিজ্ঞাপন ইতোমধ্যেই ইন্টারনেট দুনিয়ায় সাড়া ফেলে দিয়েছে। ৮২৮ মিটার উচ্চতায় নির্মাণ করা এই বিজ্ঞাপনকে বলা হচ্ছে, এই পর্যন্ত সবচেয়ে উঁচু স্থানে তৈরি করা অন্যতম বিজ্ঞাপন। ৩৪ সেকেন্ডের এই বিজ্ঞাপনে নিকোলের চেহারা থেকে ক্যামেরা সরিয়ে পাখির দৃষ্টিতে যখন পুরো দুবাইকে দেখানো হয়, তখন আসলেই শিহরিত না হয়ে উপায় নেই।

আরও পড়ুন


আফগানিস্তানের প্রাদেশিক রাজধানী হেরাত দখল করলো তালেবানরা

পরীমণি ইস্যুতে এবার থানায় জিডি করলেন আরেক চিত্রনায়িকা

দেশের ১৬ জেলায় ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস

করোনায় আক্রান্ত গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম


অথচ যে তরুণী এই বিজ্ঞাপনের মূল আকর্ষণ, তিনি কিন্তু অত্যন্ত সাবলীল ভাবে দুঃসাহসিক এই কাজ করেছেন। তাঁর চোখে-মুখে বিন্দুমাত্র ভয় ধরা পড়েনি। তাঁর পরনে ছিল এমিরেটস কেবিন ক্রু এর পোশাক। ঠিক যেন কোনও বিমানসেবিকা। ওই বিমানসেবিকার নিরাপত্তা নিয়ে অনেক সমালোচনাও সহ্য করতে হয়েছে এমিরেটসকে।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

বিমান সংস্থা এমিরেটসের লক্ষ্য ছিল অল্পসময়ে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা। সেই উদ্দেশ্যেই এমিরেটসের বিমানবালার পোশাক পরে হাতে কয়েকটি প্ল্যাকার্ড নিয়ে কিছুক্ষণের জন্য ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিলেন মডেল নিকোল স্মিথ লুডভিক। সেই প্ল্যাকার্ডে ভ্রমণের সময় এমিরেটস ব্যবহারের আহ্বান জানানো হয়েছে সবাইকে।

সূর্যোদয়ের সময় বিজ্ঞাপনটির শ্যুটিং শুরু হয়ে শেষ হতে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা সময় লাগে। এছাড়া শ্যুটিং টিমের ভবনটির উপরে উঠতে সময় লাগে আরও এক ঘণ্টা ১৫ মিনিট। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।

news24bd.tv এসএম