ফাঁদ পেতে পাশের পুকুরে মাছ পাচার!

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফাঁদ পেতে পাশের পুকুরে মাছ পাচার!

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের বামনকোলা গ্রামে ফাঁদ পেতে প্রতিবেশীর পুকুরের মাছ নিজের পুকুরে পাচার করায় থানায় বাবা-ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। সোমবার দুপুরে এ অভিযোগ দেন ভুক্তভোগী বাবলু প্রামাণিক।
জানা যায়, ওই গ্রামের উত্তরাংশের পুকুরের মালিক মৃত সায়েতুল্লার ছেলে বাবলু প্রামাণিক এবং দক্ষিণাংশের পুকুরের মালিক শহিদুল ও তার ছেলে আশরাফ।

সম্প্রতি অতি বর্ষণে পুকুরের পাড় ভেঙ্গে যাওয়ায় পাশের পুকুর মালিক বাবলুকে না জানিয়েনেট ও বাঁশের বানা দিয়ে বেড়া দেন তারা।

কিন্তু অভিযুক্ত বাবা-ছেলে পানি হতে বানা কিছু অংশ ফাঁকা রেখে মাছ ধরার ফাঁদ ভাইর দিয়ে বাবলুর চাষ করা রুই, কাতলা, সিলভার প্রভূতি মাছ পাচার করে নিজের পুকুরে নিয়েছেন।


আরও পড়ুন: পুরান ঢাকা নিয়ন্ত্রণে ইরফান ব্যবহার করতেন নিষিদ্ধ ওয়্যারলেস নেটওয়ার্ক


সোমবার দুপুরে গুরুদাসপুর থানা-পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে এর সতত্যা পায়।

অভিযোগকারী বাবলুসহ স্থানীয়রা জানান- বানা ও নেট উঁচু রেখে এমনভাবে ভাইর পাতা হয়েছে যে, মাছ শহিদুলের পুকুরে প্রবেশ করবে কিন্তু বাবলুর পুকুরে ফেরত যেতে পারবে না।

এভাবে কত টাকার মাছ চুরি গেছে তা তাৎক্ষণিক নিরূপণ
করা সম্ভব হয়নি। তবে ঘটনাস্থলে উপস্থিত গ্রামবাসীও অভিনব কায়দায় মাছ চুরি করে নেওয়ায় বাবা-ছেলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানায়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আশরাফ ও তার বাবা শহিদুলকে বাড়িতে না পেয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসআই মো. মহসিন আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

news24bd.tv তৌহিদ

 

মন্তব্য