হেফাজতের হামলায় আহত আওয়ামী লীগ কর্মীর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক

হেফাজতের হামলায় আহত আওয়ামী লীগ কর্মীর মৃত্যু

মো. মুহিবুল্লাহ

হেফাজত ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে নারীসহ অবরুদ্ধের প্রতিবাদে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার কোদালায় তাৎক্ষণিক বের করা মিছিল থেকে হামলায় আহত আওয়ামী লীগ নেতা মো. মুহিবুল্লাহ (৫৪) মারা গেছেন।

গতকাল রাতে চট্টগ্রাম নগরের পার্ক ভিউ হাসপাতালে মারা যান তিনি। 

মুহিবুল্লাহর বাড়ি উপজেলার কোদালা ইউনিয়নের ছয় নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব কোদালা গ্রামে। তিনি কোদালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ছিলেন।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা বলছেন, হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে নারীসহ সোনারগাঁয়ে ঘেরাওয়ের প্রতিবাদে গত শনিবার (৩ এপ্রিল) রাতে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন বিএনপি-জামায়াত ও হেফাজতের কর্মী-সমর্থকেরা। মিছিল থেকে লাঠিসোঁটা দিয়ে আওয়ামী লীগ কর্মী মো. মুহিবুল্লাহ, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আবদুল জব্বার ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক দিলদার আজমকে মারধর করা হয়। আহত তিনজনের মধ্যে মুহিব্বুল্লার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম শহরের পার্কভিউ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। চারদিন মৃত্যুর সাথে লড়াই করে সেখানেই মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটার দিকে তিনি মারা যান।

এদিকে হামলার ঘটনায় গত সোমবার রাঙ্গুনিয়া থানায় দুটি মামলা হয়েছে। এই দুই মামলাতেই ইউনিয়ন বিএনপি নেতা ইউনুছ মনিকে প্রধান আসামি করা হয়। এছাড়াও বিএনপি-জামায়াতের কর্মী ও হেফাজত-সমর্থক ৬৪ জনকে আসামি করা হয়।


নিষ্কৃতি দেওয়ায় আমি সত্যিই আনন্দিত

ক্রিকেটার সাকিবও বেশ এবিউজ করলেন আমাকে: তসলিমা নাসরিন

ভাসানটেকে উদ্ধার লাশ নারী যৌনকর্মীর

ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে দেশের পুঁজিবাজার


দুটি মামলার মধ্যে একটি আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের তিন নেতা গুরুতর আহত হওয়ার ও অপরটি ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগে করা হয়েছে। 

রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মো. মাহাবুব মিল্কী বলেন, দুই মামলায় গতকাল রাতেই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তাররা হলেন-কোদালা ইউনিয়নের মো. ফোরকান (৩৫), মো. ইয়াহিয়া (২৮) ও শিলক ইউনিয়নের বাবর আলম (৩৮)। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হেফাজত নেতারা নষ্ট এবং ভণ্ড : তথ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

হেফাজত নেতারা নষ্ট এবং ভণ্ড : তথ্যমন্ত্রী

হেফাজত নেতারা যে নষ্ট এবং ভণ্ড, সেটি আজ প্রমাণিত বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী  ও সম্প্রচার মন্ত্রী  এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। মামুনুলের অনৈতিক, অনৈসলামিক কাণ্ডকে তারা যেভাবে তড়িঘড়ি করে বসে ইসলামের আলোকে বৈধতা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে, নাউজুবিল্লাহ, সেটিই তার প্রমাণ বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর মিন্টু রোডের বাসভবন থেকে ওয়েবিনা বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। 

এসময় মন্ত্রী হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের কথা বলে আরও বলেন, ‘সূর্য পূর্বদিকে ওঠে তা যেমন সত্য, হেফাজত যে এসব করেছে, সেই দিবালোকের মতো সত্যকেও তারা অস্বীকার করেছে। সুতরাং এই মিথ্যাবাদী, নষ্ট ও ভণ্ড নেতৃত্বের পক্ষ নিয়ে যারা বিবৃতি দেয়, তারাও সেই পর্যায়েই পড়ে।’

সাংবাদিকরা এসময় করোনাকালে আওয়ামী লীগের মানুষের পাশে থাকার বিষয়ে প্রশ্ন করলে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে গত একবছর ধরে করোনাকালে আওয়ামী লীগ মানুষের পাশে আছে এবং থাকবে। দলের পক্ষ থেকে প্রথম দফায় ১ কোটি ২৫ লাখ মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া হয়েছে এবং কোটি কোটি টাকা বিতরণ করা হয়েছে।’

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হেফাজতের সঙ্গে সম্পৃক্ত তো আপনারা, আওয়ামী লীগকে ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক

হেফাজতের সঙ্গে সম্পৃক্ত তো আপনারা, আওয়ামী লীগকে ফখরুল

বিএনপি নয়, হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে সরকারই সম্পৃক্ত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্পতিবার বিকেলে এক ভার্চুয়াল আলোচনায় মির্জা ফখরুল বলেন, ‘২৬ মার্চের পর থেকে গত কয়েক দিনে বোধ হয় কয়েক হাজার গ্রেপ্তার করে ফেলেছে এবং শুনলে অবাক হবেন আমাদের চট্টগ্রাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ঢাকায় দলের (বিএনপি) কর্মীরা রাতে বাসায় থাকতে পারে না। ব্লক রেইড করছে, কেরানীগঞ্জে ব্লক রেইড করে আমাদের নেতাকর্মীদের অ্যারেস্ট করছে। কিছু বলতে গেলেই তারা বলে যে হেফাজতের সঙ্গে সম্পৃক্ত আছে।’


মুহাম্মাদ (স.) এর জীবনের ঘটনাগুলো আমাকে আলোড়িত করে 

সকাল থেকে মার্কেট খুলেছেন রাজশাহীর ব্যবসায়ীরা

অনেকে মনে করে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ৫/৬ বছরের গ্যাপ ভালো

৪ দিনের পর আবারও ৭ দিনের রিমান্ডে রফিকুল মাদানী


সরকার ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘আরে হেফাজতের সঙ্গে সম্পৃক্ত তো আপনারা। আপনারা বসেন, প্রধানমন্ত্রীর বাসায় বসে মিটিং করে তাদের (হেফাজতে ইসলাম) সঙ্গে চুক্তি করেছেন এবং প্রধানমন্ত্রীকে কওমি মাতা হিসেবে উপাধি দেওয়া হয়েছে। আমরা হেফাজতের সঙ্গে সম্পৃক্ত হলাম না আপনারা।’

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এক সপ্তাহের মধ্যে লকডাউনে বাড়িতে খাবার পৌঁছে না দিলে বিদ্রোহ: জাফরুল্লাহ

অনলাইন ডেস্ক

এক সপ্তাহের মধ্যে লকডাউনে বাড়িতে খাবার পৌঁছে না দিলে বিদ্রোহ: জাফরুল্লাহ

এক সপ্তাহের মধ্যে লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িতে বাড়িতে খাবার পৌঁছে না দিলে, সবার চিকিৎসার ব্যবস্থা নিশ্চিত না করলে বিদ্রোহ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

করোনা মোকাবিলায় সবাইকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেছেন, এক সপ্তাহের মধ্যে লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িতে বাড়িতে খাবার পৌঁছে না দিলে, সবার চিকিৎসার ব্যবস্থা নিশ্চিত না করলে বিদ্রোহ শুরু হবে।


মুহাম্মাদ (স.) এর জীবনের ঘটনাগুলো আমাকে আলোড়িত করে

সকাল থেকে মার্কেট খুলেছেন রাজশাহীর ব্যবসায়ীরা

অনেকে মনে করে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ৫/৬ বছরের গ্যাপ ভালো

৪ দিনের পর আবারও ৭ দিনের রিমান্ডে রফিকুল মাদানী


বৃহস্পতিবার রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ‘লকডাউনে মানুষের হাহাকার বন্ধে ঘরে ঘরে খাদ্য পৌঁছাও’ শীর্ষক নাগরিক প্রতীকী অবস্থান থেকে এ আহ্বান জানান তিনি।

খাবার না পেলে, স্বাস্থ্যসেবা না পেলে জনগণ ট্যাক্স দেওয়া বন্ধ করে দেবে। তখন দেশে অরাজকতা সৃষ্টি  হবে, বলেন জাফরুল্লাহ।

তিনি বলেন, করোনায় বাংলাদেশে নতুন করে সোয়া দুই কোটি মানুষ দরিদ্র হয়েছেন বলে খবরে এসেছে। আর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ করে জনগণের সঙ্গে মশকরা করেছেন। সমাজের ধনীদের সহায়তার হাত নিয়ে এগিয়ে আসার অনুরোধ করে তিনি বলেন, আপনারা এ দুর্যোগে এগিয়ে না এলে জাতি আপনাদের ক্ষমা করবে না।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

না ফেরার দেশে বিএনপি নেতা এন আই খান

অনলাইন ডেস্ক

না ফেরার দেশে  বিএনপি নেতা এন আই খান

বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য, সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এন আই খান মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে চারটায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন বলে নিশ্চিত করেছেন তার ক্যালিফোর্নিয়া নিবাসী ছেলে সাদিকুল ইসলাম খান।

মৃত্যুকালে এন আই খানের বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। বার্ধ্যক্যজনিত কারণে তিনি মারা গেছেন।

বিএনপির এই নেতার বাড়ি টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে। সাত সন্তানের জনক এন আই খান বাংলাদেশ পেপার মার্চেন্ট এসোসিয়েশন এর সভাপতি, এফবিসিসিআই এর সদস্য, ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ সহ অনেক সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন।

 তাকে তার স্ত্রীর কবরের পাশে আজিমপুর কবরস্থানে বৃহস্পতিবারই দাফন করা হবে বলে সাদিকুল জানিয়েছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্তরা খাবার না পেলে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি হবে : ডা. জাফরুল্লাহ

অনলাইন ডেস্ক

লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্তরা খাবার না পেলে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি  হবে : ডা. জাফরুল্লাহ

এক সপ্তাহের লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্তরা খাবার না পেলে, স্বাস্থ্যসেবা না পেলে জনগণ ট্যাক্স দেওয়া বন্ধ করে দেবে। তখন দেশে অরাজকতা সৃষ্টি  হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ‘লকডাউনে মানুষের হাহাকার বন্ধে ঘরে ঘরে খাদ্য পৌঁছাও’ শীর্ষক নাগরিক প্রতীকী অবস্থান থেকে তিনি এ আহ্বান জানান।

তিনি বলেন,  এক সপ্তাহের মধ্যে লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িতে বাড়িতে খাবার পৌঁছে না দিলে, সবার চিকিৎসার ব্যবস্থা নিশ্চিত না করলে বিদ্রোহ শুরু হবে। তিনি সরকারকে করোনা মোকাবিলায় সবাইকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, করোনায় বাংলাদেশে নতুন করে সোয়া দুই কোটি মানুষ দরিদ্র হয়েছেন বলে খবরে এসেছে। আর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ করে জনগণের সঙ্গে মশকরা করেছেন।
এসময় আগামী সোমবার থেকে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্যোগে ঢাকা শহরে বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না  বলেন, সাড়ে ১০ কোটি টাকার ঘোষণায় প্রধানমন্ত্রীর লজ্জা করা উচিত। গত বছর ৫০ লাখ পরিবারকে আড়াই হাজার টাকা করে দেবার কথা ছিল। তার বেশির ভাগই প্রকৃত ভুক্তভোগীদের কাছে পৌঁছেনি।

সরকারের চলমান দমন-পীড়নের সমালোচনা করে তিনি বলেন, যারা দিনের ভোট রাতে করেন, তাদের আবার কীসের ইমোশন, কিসের মূল্যবোধ?

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন গণসংহতি আন্দোলনের সদস্য জুলহাসনাইন বাবু। আরও বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম জাহাঙ্গীর, সাদেক খান, ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, গোলাম মাওলা চৌধুরী, নৃবিজ্ঞানী রেহনুমা আহমেদ, অর্থনীতিবিদ ড. রেজা কিবরিয়া, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, আলোকচিত্রী শহিদুল আলম, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকী, রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য রাখাল রাহা, গণফোরামের মুস্তাক আহমেদ প্রমুখ।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর