ভোটের অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি খেলার শুরু জিয়ার আমলে

অনলাইন ডেস্ক

ভোটের অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি খেলার শুরু জিয়ার আমলে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মানুষের ভোটের অধিকার নিয়ে ছিনিমিন খেলার শুরু জিয়াউর রহমানের আমলেই। নিউ ইয়র্কে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সমাবেশে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিলেও জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের হয়ে কাজ করেছিলো।

নিজেদের কর্মফলেই জিয়া পরিবার আজ সাজাপ্রাপ্ত বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করতে বাংলাদেশের উন্নয়ন বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে প্রবাসীদের প্রতি আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের আয়োজনে নাগরিক সমাবেশে বাংলাদেশ সময় ভোর ৬টার পর ভার্চুয়ালি যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভাষণের শুরুতেই ৭৫ পরবর্তী সময়ের জিয়াউর রহামনের ক্ষমতাগ্রহণ এবং ক্ষমতায় টিকে থাকা প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানুষের ভোট নিয়ে ছিনিমিন খেলার শুরু তার আমলেই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যখন বাংলাদেশে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী গণহত্যা চালাচ্ছে, মা-বোনদের ওপর অত্যাচার করছে, গ্রামের পর গ্রাম পুড়িয়ে দিচ্ছে সে সময় জিয়াউর রহমানকে একটি চিঠি পাঠিয়েছিল পাকিস্তানি বাহিনী। সেখানে তারা বলছিল তুমি খুব ভাল কাজ করছো। তোমাকে আরও কাজ দেব। আপনার স্ত্রী-ছেলেরা আমাদের কাছে ভাল আছে।

জিয়া পরিবারের ষড়যন্ত্র এখনো থামেনি বলেও মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, নিজেদের কর্মফলেই জিয়া পরিবার আজ সাজাপ্রাপ্ত। ফেরারি আসামি হয়ে তারেক রহমান কিভাবে এতা আয়েসি জীবন কাটান, কারা তাকে অর্থ দিয়ে সহায়তা করছে, সেই প্রশ্নও তোলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, মানুষের ভোট নিয়ে ছিনিমিনি খেলা ও ভোট চুরি করার যে প্রক্রিয়া সেটা জিয়াউর রহমানই শুরু করে গেছে। অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে জিয়াউর রহমান অবৈধ ক্ষমতাকে বৈধতা দিতে ভোট চুরি করে পার্লামেন্টে মেম্বার নিয়ে এসে সেটিকে বৈধতা করা চেষ্টা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন


কোহিলির বেঙ্গালুরুকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে চেন্নাই

কানাডার সিটি নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী বাংলাদেশি মিজানুর রহমান

শতবর্ষী মায়ের অপেক্ষা, ৭০ বছর পর কুদ্দুস খোঁজ পেলেন পরিবারের

ফের বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন কপিল শর্মা


মুক্তিযুদ্ধে জিয়াউর রহমানের ভূমিকা নিয়েও পশ্ন তোলেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, জিয়া মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিলেও তিনি পাকিস্তানের হয়ে কাজ করেছেন।

তিনি আরও বলেন, আজকে ফেরারি আসামি হয়ে বিদেশে তারা যেভাবে বসবাস করছে সে তো আপনারা দেখতেই পাচ্ছে। এতো আয়েশি জীবন-যাপন কাটায় জিয়াউর রহমানের ছেলে সেখানে এই অর্থের যোগান দাতা কারা।

বর্তমান সরকারের নেয়া নানা পদক্ষেপ, করোনা মহামারি মোকাবেলাসহ বাংলাদেশের উন্নয়নের চিত্র বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে প্রবাসীদের প্রতি আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

রোহিঙ্গা ও ফিলিস্তিনের সমস্যা ঝুলে আছে ৫ ‘মাতব্বরে’: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

রোহিঙ্গা ও ফিলিস্তিনের সমস্যা ঝুলে আছে ৫ ‘মাতব্বরে’: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জাতিসংঘের স্থায়ী পরিষদের পাঁচ সদস্যের জন্য রোহিঙ্গা সংকট ঝুলে আছে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

তিনি বলেন, তবুও আমরা প্রত্যাশা করছি এ সংকটের সমাধান হবে।

রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত জাতিসংঘ দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মোমেন বলেন, রোহিঙ্গাদের জন্য জাতিসংঘ যা যা করার করছে। তবে জাতিসংঘের শক্তিটা হচ্ছে নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচজন স্থায়ী সদস্য, তারা হলো ‘মাতব্বর’। এরা একজন যদি আপত্তি করে সেখানে জাতিসংঘ কিছুই করতে পারে না। বিশেষ করে চীন ও রাশিয়ার কথা বলতে চাই। তার ফলে আমাদের রোহিঙ্গা সমস্যা, ফিলিস্তিনের সমস্যা ঝুলেই আছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, বাংলাদেশ রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলা করছে।আমরা প্রত্যাশা করছি, এ সংকটের সমাধান হবে।

আরও পড়ুন:


পীরগঞ্জের ঘটনায় রিমান্ড শেষে ৩৭ জন জেলহাজতে

সাকিব-নাসুমের পর সাইফুদ্দিনের আঘাত

লিটনের ক্যাস মিস, মাসুল গুনছে টাইগাররা


 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘ আমাদের অনেক প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি। তবুও জাতিসংঘের অবদান কোনোভাবেই অস্বীকার করা যাবে না। জাতিসংঘ সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ অবদান রেখেছে। সেজন্য জাতিসংঘ বাংলাদেশকে নিয়ে গর্বিত। বাংলাদেশও জাতিসংঘকে নিয়ে গর্বিত।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

দিন-দুপুরে বালু নদী ভরাট, প্রাণ-আরএফএলের বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

দিন-দুপুরে বালু নদী ভরাট, প্রাণ-আরএফএলের বিরুদ্ধে মামলা

রাজধানীর ঢাকার পরিবেশ ভারসাম্য রক্ষায় অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বালু নদীর তীরভূমি ও নদীগর্ভ ভরাট করে দখলের অভিযোগে প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) । এছাড়া বালু ভরাটে সহযোগিতা করায় দুটি ড্রেজার কোম্পানি ও অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে মামলায় আসামী করা হয়েছে। আজ রবিবার রাতে খিলক্ষেত থানায় মামলাটি দায়ের করেন টঙ্গী নদী বন্দরের সহকারী পরিচালক (বওপ) রেজাউল করিম।

এর আগে গতকাল দুপুরে রাজাখালী নৌপুলিশ ফাঁড়ির সহযোগিতায় খিলক্ষেত থানাধীন পাতিরা মৌজায় বালু নদীতে অভিযান চালায় বিআইডব্লিউটিএ। এ সময় সরকারি সংস্থাটির কর্মকর্তারা দেখতে পান, দুটি ড্রেজার দিয়ে বালু নদীর পশ্চিম পাশে তীরভূমি ও নদীগর্ভ ভরাট করছে প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপ। ইতোমধ্যে নদীর ২৮, ২৯ ও ৩০ নম্বর  সীমানা পিলারের অভ্যন্তরে প্রায় ১২ হাজার ৫০০ বর্গফুট নদীর জমি ভরাট করা হয়ে গেছে।

অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া টঙ্গী নদী বন্দরের সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, আমাদের দেখে ড্রেজার দুটি পালিয়ে যায়। তাই কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। মামলায় প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপের ম্যানেজার এডমিন মো. ফয়সাল মাহমুদ ও মো. সরওয়ার জাহানসহ এমভি তিথী ড্রেজার ও সোহা মেসার্স মদিনার পথে এম নং-১৮৭৩৪ নামে দুটি ড্রেজার কোম্পানি ও অজ্ঞাতনামা ৭-১০ জনকে আসামী করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ভরাট করে নদীর গতিপথ সংকুচিত করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। এতে নৌ দুর্ঘটনার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। পরিবেশ ভারসাম্য নষ্ট হয়। সরকার দখলদারদের হাত থেকে সারাদেশের নদ-নদী উদ্ধারে বদ্ধ পরিকর। আইন অনুযায়ী, নদীর সীমানা পিলারের মধ্যে কোন ভরাট বা স্থাপনা নির্মাণ করা যাবে না। এমনকি সীমানা পিলারের বাইরে ১৫০ ফুট পর্যন্ত জায়গায় কোনো স্থাপনা নির্মাণ করতে হলে বিআইডব্লিউটিএ’র অনুমতি নিতে হবে। প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপ সীমানা পিলারের ভেতরেই দৈর্ঘ্যে ২৫০ ফুট ও প্রস্থে ৫০ ফুট নদীর জমি ভরাট করে ফেলেছে। অভিযান চালিয়ে ভরাট কাজ বন্ধ করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি। একইসঙ্গে ভরাটকৃত জায়গা পুনরায় খনন করার জন্য তাদেরকে বলে এসেছি। আমরা নিয়মিত বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করব।


আরও পড়ুন:

দুই সন্তানের বাবার নামে প্রেমিকার মামলা

সুইমিং পুলে শুয়ে কী বললেন শ্রাবন্তী?

চলছে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের সোনালি অধ্যায় : হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা

ইরানের নতুন গভর্নরের গালে চড়!


খিলক্ষেত থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুন্সী ছাব্বীর আহম্মদ বলেন, নদী ভরাট নিয়ে আমরা বিআইডব্লিউটিএ থেকে একটা এজাহার পেয়েছি। এর ভিত্তিতে একটি মামলা রুজু হয়েছে। মামলা নম্বর ২৪, তারিখ ২৪-১০-২০২১। তদন্ত করে এ ব্যাপারে বলা যাবে।

এদিকে গতকাল অভিযান চালানো ওই স্থানে সরেজমিন দেখা যায়, নদীর মধ্যে এখনো বালু ভর্তি অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে পাঁচটি বাল্কহেড। সীমানা পিলার থেকে নদীর দিকে অন্তত ১০০ ফুট পর্যন্ত বালু ভরাট করা হয়েছে। সেখানে লাগানো হয়েছে ‘ক্রয়সূত্রে এই সম্পত্তির মালিক প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপ’ লেখা সাইনবোর্ড। এছাড়া প্রাণ-আরএফএল’র পুরনো কিছু নিরাপত্তা চৌকি, রেডিমিক্স ও কংক্রিট ব্লক ফ্যাক্টরি এবং গোডাউনের একাংশ সীমানাপিলার ছাড়িয়ে চলে এসেছে নদীর দিকে।

অভিযানে নেতৃত্বদানকারী কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, নদী দখল-দূষণ মুক্ত করতে সরকার বদ্ধ পরিকর। ঢাকার চার পাশে প্রবাহমান বুড়িগঙ্গা, তুরাগ, বালু ও শীতলক্ষ্যা নদী দখল, দূষণমুক্ত করা ও মৃতপ্রায় নদীগুলোকে উদ্ধারে হাইকোর্টের বিশেষ নির্দেশনা রয়েছে। সেই নির্দেশনার আলোকে জেলা প্রশাসক, বিআইডব্লিউটিএ এবং সংশ্লিষ্ট বিভাগসমূহ সুষ্পষ্ট নির্দেশনা প্রদান করেছে। এর আগেও আমরা বালু নদীতে অভিযান চালিয়েছি। পুনর্দখল ঠেকাতে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

আমরা অনেক বেশি ভাত খাই বললেন কৃষিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক


আমরা অনেক বেশি ভাত খাই বললেন কৃষিমন্ত্রী

ফাইল ছবি

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, আমরা অনেক বেশি ভাত খাই। যদি ভাতের এই কনজাম্পশন (খাওয়া) কমাতে পারি, তাহলে চালের চাহিদা অনেকটাই কমে যাবে। 

তিনি বলেন, আমরা একেকজন দিনে প্রায় ৪০০ গ্রাম চাল খাই, পৃথিবীর অনেক দেশে ২০০ গ্রামও খায় না।

ভাতের পরিবর্তে পুষ্টিকর খাবার বেশি করে খাওয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

আজ দুপুরে রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে ‘বাংলাদেশের ৫০ বছর, কৃষির রূপান্তর ও অর্জন’ শীর্ষক এক কৃষি সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ৫০ বছরে দেশের কৃষি খাতের প্রতিটি ক্ষেত্রে উন্নতি হয়েছে। এই করোনাকালেও দেশের মানুষের খাদ্যের কষ্ট হয়নি, কোনো মানুষ না খেয়ে নেই, কোনো মানুষের মাঝে হাহাকার নেই- এমন পরিস্থিতিতে আমাদের আজকের চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশকে পুষ্টি জাতীয় নিরাপদ খাদ্যে নিয়ে যেতে চাই। তার জন্য বাংলাদেশকে আমরা আধুনিক কৃষিতে নিয়ে যেতে চাই। আমরা বাংলাদেশকে খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণে নিয়ে যেতে চাই। যাতে আমাদের উদ্বৃত্ত খাবার থাকে।

আরও পড়ুন:স্বামীকে কুপিয়ে সেই দা নিয়ে ঘরের দরজায় বসেছিলেন স্ত্রী

বাংলাদেশ এখন খাদ্যে অনেকটাই স্বয়ংসম্পূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশে খাদ্যের কোনো অভাব নেই। এখন পুষ্টিজাতীয় খাদ্য নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করছে। সেজন্য কৃষির বাণিজ্যিকীকরণের ওপর জোর তাগিদ দেন মন্ত্রী।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

মন্দির-মণ্ডপে নিরাপত্তা জোরদারের নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক

মন্দির-মণ্ডপে নিরাপত্তা জোরদারের নির্দেশ

রাজধানীর ৫০ থানা এলাকায় নিরাপত্তা জোরালো করতে পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম। কুমিল্লার ঘটনার সূত্র ধরে রাজধানীর কোনো মন্দির ও পূজামণ্ডপে যাতে হামলার ঘটনা না ঘটে, সে জন্য ডিএমপির পক্ষ থেকে এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ডিএমপি সদর দপ্তর মিলনায়তনে অপরাধবিষয়ক সভায় রোববার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে ডিএমপি কমিশনার এই নির্দেশ দেন বলে সভা সূত্রে জানা গেছে।


আরও পড়ুন:

চাঞ্চল্যকর সেই দম্পতি হত্যার রহস্য উদঘাটন করলো পিবিআই

দুই সন্তানের বাবার নামে প্রেমিকার মামলা

সুইমিং পুলে শুয়ে কী বললেন শ্রাবন্তী?

চলছে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের সোনালি অধ্যায় : হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা


সভায় ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বলেন, ডিএমপির ৫০ থানা এলাকায় যেসব মন্দির বা পূজামণ্ডপ আছে, সেসব স্থানে যাতে হামলার ঘটনা না ঘটে, সে জন্য পুলিশের নিরাপত্তা জোরদার করতে হবে।

সভাসূত্রে আরও জানা যায়, সভায় ডিএমপির সব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি), উপকমিশনার, ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি) ও ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি) সহকারী কমিশনার, অতিরিক্ত কমিশনার ও ডিএমপি সদর দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

ধর্মীয় সম্প্রীতি রক্ষায় ওয়ার্ডে-ওয়ার্ডে কমিটি গঠনের নির্দেশ দিলেন এলজিআরডি মন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

ধর্মীয় সম্প্রীতি রক্ষায় ওয়ার্ডে-ওয়ার্ডে কমিটি গঠনের নির্দেশ দিলেন এলজিআরডি মন্ত্রী

দেশে সব ধর্মের মানুষের সহাবস্থান নিশ্চিত করতে ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিটি গঠন করার নির্দেশনা দিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

আজ এক মতবিনিময় সভায় এ নির্দেশনা দেন তিনি। 

মন্ত্রণালয় থেকে স্থানীয় সরকার বিভাগের উদ্যোগে অনলাইনে আয়োজিত দেশে ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট ও মানুষের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টির অপতৎপরতা বন্ধে স্থানীয় সরকার বিভাগের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি/সরকারি কর্মকর্তাদের পরামর্শ গ্রহণপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার লক্ষ্যে মতবিনিময় সভাটিয অনুষ্ঠিত হয়।  

সভাপতির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, যারা উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ধর্মের মধ্যে বিভেদ ও উগ্রবাদ তৈরি করে দেশে অশান্তি সৃষ্টির অপচেষ্টা করছে। তাদেরকে শক্ত হাতে মোকাবেলা করার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বারসহ তৃণমূল নেতাকর্মী, সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গসহ সকল ধর্মের মানুষকে অন্তর্ভুক্ত করে প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিটি গঠন করতে হবে। 

আরও পড়ুন: না বুঝেই মা হলেন এক নারী!

তিনি বলেন, সমাজের মধ্যে কারা বিভিন্ন অপকর্ম, অপপ্রচার চালায় তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা এবং ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় এই কমিটি কাজ করবে।

ধর্মীয় সম্প্রীতি রক্ষার দায়িত্ব স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিতে হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী আরও বলেন, সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন এলাকায় ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট এবং জনগণের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টির জন্য একটি মহল অপতৎপরতা চালাচ্ছে। ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, জেলা পরিষদ, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক অবস্থানে থেকে এসকল দুর্বৃত্তদের প্রতিহত করতে হবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর