শিক্ষকের থাপ্পড়ে কানের পর্দা ফাটলো স্কুলছাত্রের
শিক্ষকের থাপ্পড়ে কানের পর্দা ফাটলো স্কুলছাত্রের

শিক্ষকের থাপ্পড়ে কানের পর্দা ফাটলো স্কুলছাত্রের

অনলাইন ডেস্ক

প্রধান শিক্ষকের থাপ্পড়ে কানের পর্দা ফেটেছে এক স্কুলছাত্রের। মোবাইল ফোন নিয়ে শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করার অজুহাতে ওই ছাত্রকে একাধিকবার থাপ্পড় মারা হয়। এ ঘটনায় বিচার চেয়ে ভুক্তভোগী ছাত্রের পিতা গতকাল বুধবার (৩ নভেম্বর) চাটমোহর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও চাটমোহর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে পাবনার চাটমোহর উপজেলার ছাইকোলা উচ্চবিদ্যালয়ে।

ঘটনাটি ঘটে গত ২৭ অক্টোবর।  

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার কচুগাড়ি গ্রামের আবদুল বাকীর ছেলে রিয়াদ হোসেন ছাইকোলা উচ্চবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র। গত ২৭ অক্টোবর রিয়াদ হোসেনসহ তার কয়েকজন সহপাঠী ক্লাসে মোবাইল ফোন নিয়ে প্রবেশ করে। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম ক্লাসে প্রবেশ করে তাদের কাছে মোবাইল ফোন আছে কি না, জানতে চান।

এ সময় রিয়াদ হোসেনসহ পাঁচজন ছাত্র উঠে দাঁড়ায়। এদের সবাইকেই মারধর করেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক। রিয়াদ হোসেনের কানের ওপর থাপ্পড় মারলে প্রচণ্ড ব্যথা পেয়ে শ্রবণশক্তি হারিয়ে ফেলে সে। বাড়িতে গিয়ে অভিভাবকদের বিষয়টি জানায় রিয়াদ।

এ ব্যাপারে রিয়াদের বাবা আবদুল বাকী জানিয়েছেন, আমার ছেলে আগে জহুরুল মাস্টারের কাছে প্রাইভেট পড়ত। এখন পড়ে না। এ রাগে আমার ছেলেকে অমানুষিভাবে থাপ্পড় মেরেছে। ছেলে কানে শুনতে পারছে না। ছেলেকে গুরুদাসপুরে নাক-কান-গলা চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গিয়েছিলাম। চিকিৎসক জানিয়েছেন রিয়াদের কানের পর্দা ফেটে গেছে।

আরও পড়ুন: 


তেলের দাম বৃদ্ধি, চট্টগ্রামে গণপরিবহন বন্ধ

৭৩-এ শেষ বাংলাদেশ

এবারের পাকিস্তানকে দেখে শোয়েবের ‌‘ভয়’


 

অভিযুক্ত ছাইকোলা উচ্চবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম বলেন, ক্লাসে মোবাইল নিয়ে প্রবেশ করায় ওই দিনে আমি রিয়াদসহ পাঁচজন ছাত্রকে মেরেছি। বিষয়টি উচিত হয়নি। হঠাৎ করেই বিষয়টি ঘটে গেছে। এ জন্য আমি অনুতপ্ত।

news24bd.tv/আলী