শ্রমিকলীগ নেতা হত্যা: মেয়ের সাবেক জামাইসহ ৮ জনের নামে মামলা

জুবাইদুল ইসলাম, শেরপুর

শ্রমিকলীগ নেতা হত্যা: মেয়ের সাবেক জামাইসহ ৮ জনের নামে মামলা

শেরপুরের শ্রীবরদীতে আব্দুর রহিম ভানু (৫৫) নামে এক শ্রমিক লীগ নেতাকে বাড়িতে ঢুকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় তার মেয়ের সাবেক জামাইসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

২০ অক্টোবর মঙ্গলবার রাতে নিহতের ছেলে রমজান আলী বাদী হয়ে থানায় এ মামলা দায়ের করেন।
মামলার পরপরই পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এরা হচ্ছেন- আকরাম হোসেন ও ঝুড়ি বেগম।

তবে প্রধান আসামি মেয়ের সাবেক জামাই ফিরোজ মিয়াসহ অন্যান্যরা পলাতক রয়েছে। বুধবার বিকেলে পুলিশ রিমান্ডের আবেদনসহ তাদের আদালতে সোপর্দ করা হলে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহসিনা হোসেন তুষি রোববার রিমা- শুনানীর তারিখ ধার্য করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এদিকে একইদিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন।
জানা যায়, শ্রীবরদী উপজেলার রাণীশিমুল ইউনিয়নের বিলভরট গ্রামের বাসিন্দা ও স্থানীয় ৭নং ওয়ার্ড শ্রমিক লীগের সাবেক সভাপতি কাঠমিস্ত্রি আব্দুর রহিম ভানুর ২ ছেলে ২ মেয়ের মধ্যে ছোট মেয়ে রোকসানার সাথে বিয়ে হয় প্রতিবেশী ফিরোজ মিয়ার।

বিয়ের কিছুদিন পর তাদের মধ্যে বনিবনাট না হওয়ায় আদালতের মাধ্যমে বিচ্ছেদ হয়।

পরে রোকসানার বিয়ে হয় জেলা শহরের বাজিতখিলা এলাকার মাসুম মিয়ার সাথে। এরপর থেকে ফিরোজ মিয়া তাদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে কয়েকবার ভানুর ওপর হামলা করে।

ওই ঘটনায় একাধিকবার গ্রাম্য শালিস-দরবারও হয়। এক পর্যায়ে মঙ্গলবার ভোরে প্রকৃতির ডাকে ভানুর স্ত্রী উরফুলি বেগম ঘর থেকে বের হলে ওই সুযোগে ফিল্মি স্টাইলে দুর্বৃত্তরা ঘরে প্রবেশ করে ভানুকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। 
ওইসময় ভানুর আর্তচিৎকারে তার স্ত্রী দৌড়ে ঘরে প্রবেশ করার আগেই পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে বাড়ির লোকজন আহত ভানুকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। সেখানে তার অবস্থার আরও অবনতি হলে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।


আরও পড়ুন: ক্যান্সার জয় করলেন সঞ্জয় দত্ত


 

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যায় ভানু। মৃত্যুর আগে ওই ব্যক্তি সন্তানদের জানান, তার মেয়ের সাবেক স্বামী ও কিছু দুর্বৃত্ত ওই ঘটনায় জড়িত। ওই ঘটনায় রাতেই নিহতের ছেলে রমজান আলী বাদী হয়ে তার সাবেক ভগ্নিপতি ফিরোজ মিয়াসহ আটজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, কাঠমিস্ত্রি ভানু হত্যার ঘটনায় তার সাবেক জামাই ফিরোজ মিয়াসহ ৮ জনকে আসামি করে থানায় নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে।

ওই মামলায় ইতোমধ্যে ২ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। হত্যারহস্য উদঘাটন এবং প্রধান আসামিসহ অপর আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য