দেশের যেসব জেলায় মৃত্যু সব রেকর্ড ছাড়াল আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের যেসব জেলায় মৃত্যু সব রেকর্ড  ছাড়াল আজ

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বাড়ছে। এর মধ্যে করোনা ও করোনার উপসর্গে উচ্চঝুঁকিতে রয়েছে রাজশাহী, খুলনা, কুষ্টিয়া, টাঙ্গাইল ও সাতক্ষীরা জেলা।

গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জেলায় ১৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (৭ জুলাই) জেলা প্রশাসন ও সিভিল সার্জনরা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

রাজশাহী

রাজশাহীতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ও উপসর্গ নিয়ে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা সবাই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। এর মধ্যে করোনায় ২ জন ও উপসর্গ নিয়ে ১৮ জন মারা গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৪৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৯৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৯২ শতাংশ।

খুলনা

খুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনা ১৩০ শয্যার ডেডিকেটেড হাসপাতলে ১০ জন, খুলনা জেনারেল হাসপাতালে ৫ জন, আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে ২ জন এবং বেসরকারি গাজী মেডিকেলে ৫ জন মারা গেছেন। করোনায় ২১ জন এবং উপসর্গ নিয়ে ১ জন মারা গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৬৫ জনের নমুনা পরীক্ষা ১০২ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

বরিশাল

বরিশালে গত ২৪ ঘণ্টায় শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ৭ জন মারা গেছে। করোনায় ৫ জন ও উপসর্গ নিয়ে ৭ জন মারা গেছেন। জেলায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১৭৩ জন। শনাক্তের হার ৬৯ দশমিক ১৪ শতাংশ। বর্তমানে মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে ২১০ জন করোনা রোগী। এর মধ্যে ৪৯ জন করোনা ওয়ার্ডে বাকি ১৬১ জন আইসোলেসন ওয়ার্ডে।

পঞ্চগড়

পঞ্চগড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে ৪৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৩২৫ জন। এ পর্যন্ত জেলায় ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়েছে ৮৭৮ জন।

টাঙ্গাইল

টাঙ্গাইলে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ৬ জন মারা গেছেন। করোনায় ৪ জন ও উপসর্গ নিয়ে ২ জন মারা গেছেন। একই সময়ে ৫৪২টি নমুনা পরীক্ষায় ২৭৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়। শনাক্তের হার ৫১ দশমিক ১০ শতাংশ। এদিকে প্রতিদিন করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুর তালিকা দীর্ঘ হওয়ায় চিকিৎসকরা চিকিৎসা সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে।

ফরিদপুর

ফরিদপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে আরও ৯ জন মারা গেছেন। ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তারা চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। একই সময়ে ৩৫৪ নমুনা পরীক্ষার নতুন করে আরও ১৬৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছে ২৯৭ জন।

সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা উপসর্গ নিয়ে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় ৩৮৫ জন করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেল। আর করোনা পজেটিভ রোগী মারা গেছে ৭৬ জন। এদিকে ১৬০ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪১ জনের পজেটিভ হয়েছে। যার আক্রান্তের হার দাড়ালো ২৫ দশমিক ৬ শতাংশ।

চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ৪ জন মারা গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৬৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৬১১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের ৪৬৫ জন ও বিভিন্ন উপজেলার ১৪৬ জন রয়েছেন।

কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১০ জন ও উপসর্গ নিয়ে ৬ জন মারা গেছেন। ৮০১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২৩৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৯ দশমিক ২১ শতাংশ। নতুন করে শনাক্ত হওয়া ২৩৪ জনের মধ্যে কুষ্টিয়া সদরের ৯৬ জন, দৌলতপুরের ৪৭ জন, কুমারখালীর ৩৯ জন, ভেড়ামারার ১৭ জন, মিরপুরের ১৬ জন ও খোকসার ১৯ জন রয়েছেন।

যাশোর

গত ২৪ ঘণ্টায় যশোরে করোনা ভাইরাসে আরও ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নতুন করে ১ হাজার ২০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে শনাক্ত হয়েছে ৩৭৩ জনের। এর মধ্যে যশোর সদরে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে ২০৩ জন। এ ছাড়া কেশবপুরে ২৬ জন, ঝিকরগাছায় ৩০ জন, অভয়নগরে ৫২ জন, মনিরামপুরে ২৭ জন, বাঘারপাড়ায় ১২ জন, শার্শায় ১৯ জন এবং চৌগাছায় চারজন রয়েছেন। এই নিয়ে জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৪ হাজার ১৭০ জন।

ঝিনাইদহ

সীমান্তবর্তী জেলা ঝিনাইদহে একদিনে করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ১৫৬ জন। আক্রান্তের হার ৩৪ দশমিক ১৩ ভাগ। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৫ হাজার ১৭৬ জন। এদিকে সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে বর্তমানে ১১৫ জন রোগি চিকিৎসাধীন রয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা

চুয়াডাঙ্গায় একদিনে করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হয়েছেন ১৩০ জন। তাদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৫০, আলমডাঙ্গায় ৩২, দামুড়হুদায় ২০ এবং জীবননগরে ২৮ জন রয়েছেন। বর্তমানে জেলায় আক্রান্ত রোগী এক হাজার ৫৯১ জন।

নড়াইল

নড়াইলে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বগুড়া

বগুড়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত এবং উপসর্গ নিয়ে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

নওগাঁ

নওগাঁয় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

নাটোর

নাটোরে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ৩ জন মারা গেছেন। তারা সবাই নাটোর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। ৩৪০ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তের হার ৩৭ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় দুজনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে ১১৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মৃতরা জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

ঠাকুরগাঁও

ঠাকুরগাঁওয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। ২২৫টি নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ১০৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বর্তমানে জেলায় শনাক্তের হার ৪৮ শতাংশ। এ অবস্থায় রোগীর ভিড়ে জায়গা সংকটে পরে মেঝেতেই চিকিৎসা নিচ্ছে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে ও ক্লিনিকে মারা গেছে চারজন।

বাগেরহাট

গত ২৪ ঘণ্টায় বাগেরহাটে করোনাভাইরাসে আরও ৩ জন মারা গেছেন। বাগেরহাট সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা গেছেন। একই সময়ে ৪০২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের ২৯ দশমিক ৪২ শতাংশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সাদেক হোসেন (৬০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ৬৭ জনে দাঁড়িয়েছে।

সিলেট

গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে করোনাভাইরাসে আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে আরও ২১৩ জন। মৃতরা সবাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজন করোনায় এবং চারজন উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৭২১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৯৭ জনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। শনাক্তের হার ২৭.৩২ শতাংশ।

নারায়ণগঞ্জ

নারায়ণগঞ্জে করোনায় আক্রান্ত আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২৭ জনে। এছাড়া ৪৯৭ জনের নমুনা সংগ্রহের মধ্যে ১৫৬ জন আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তের হার বর্তমানে ৩১ দশমিক ৩৯ শতাংশ। নগরীর খানপুরে ৩০০ শয্যাবশিষ্ট করোনা হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টার ও আইসিউতে রোগি ভর্তির সংখ্যাও প্রতিদিন বাড়ছে।

দিনাজপুর

দিনাজপুরে একদিনে করোনায় আরও তিনজনের মারা গেছেন। এ পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা ১৮৬ জন। ৩১২টি নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ১১১ জন আক্রান্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ৭২২ জন। এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে হাসপাতল ও সদর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে ১৯৫ জন।

জামালপুর
জামালপুরে একদিনে করোনাভাইরাসে আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা সবাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

আরও পড়ুন:


নোয়াখালীতে করোনায় ১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৭

অবশেষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাগাম টানতে যাচ্ছে সরকার

শ্বাসরুদ্ধকর টাইব্রেকারে স্পেনকে হারিয়ে ফাইনালে ইতালি

করোনায় আক্রান্ত অভিনেতা তৌসিফ মাহবুব


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

অবসরের পর বড় অপরাধে বাতিল হবে পেনশন

অনলাইন ডেস্ক

অবসরের পর বড় অপরাধে বাতিল হবে পেনশন

অবসরে থাকা সরকারি কর্মচারীরা গুরুতর অপরাধ করলে সরকার তার অবসর সুবিধা (পেনশন) সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে বাতিল, স্থগিত বা প্রত্যাহার করতে পারবে- আইনের এই বিধান রহিত করার প্রস্তাবে সায় দেয়নি মন্ত্রিসভা।

এ বিধান রহিতের প্রস্তাব করে ‘সরকারি চাকরি (সংশোধন) আইন, ২০২১’–এর খসড়া মন্ত্রিসভায় উত্থাপন করা হলেও সেটির অনুমোদন হয়নি। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ প্রস্তাব করেছিল। এর ফলে আইনের বিদ্যমান বিধানই বহাল থাকল।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল মাধ্যমে মন্ত্রিসভার  বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ২০১৮ সালের সরকারি চাকরি আইনের ৫১(৪) ধারায় আছে- ‘অবসর সুবিধাভোগী কোনো ব্যক্তি গুরুতর অপরাধে দণ্ডপ্রাপ্ত বা কোনো গুরুতর অসদাচরণের দোষে দোষী সাব্যস্ত হইলে, কারণ দর্শাইবার যুক্তিসঙ্গত সুযোগ প্রদান করিয়া, সরকার বা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ, তাহার অবসর সুবিধা সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে বাতিল, স্থগিত বা প্রত্যাহার করিতে পারিবে।’

আরও পড়ুন:

চীনে গুদামে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪

এনএসও'র দাবি পেগাসাস স্পাইওয়্যার ব্যবহারে বিশ্বের লাখো মানুষ ঘুমাতে পারছে

পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়ল পচেত্তিনোর


তিনি বলেন, এই ধারাটি বাতিলের প্রস্তাব করা হয়েছিল। ক্যাবিনেট সেটার সাথে একমত হয়নি। ক্যাবিনেট আগেরটিই বহাল রেখেছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, অবসরোত্তর ছুটিতে (পিআরএল) যাওয়া ব্যক্তিদের অন্য কোথাও চাকরি করা কিংবা বিদেশে যাওয়ার ক্ষেত্রে বর্তমান বিধান পাল্টে সংশোধনী আইনে সরকারের অনুমোদনের বাধ্যবাধকতা আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছিল।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

অনলাইন ডেস্ক

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

ডিজিটাল বাংলাদেশের নেপথ্য নায়ক এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিখাতে ঘটে যাওয়া বিপ্লবের স্থপতি সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ। সজীব ওয়াজেদ জয় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও দেশের পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার পুত্র। তিনি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালের এদিনে (২৭ জুলাই) জন্ম গ্রহন করেন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তার নাম রাখেন নানা শেখ মুজিবুর রহমান।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তাঁর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা এ দু’জনের স্বপ্ন বাস্তায়নে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পনপথ্য কারিগর হিসেবে কাজ করছেন পরিশ্রমী, মেধাবী ও পরিচ্ছন্ন জীবন-জীবিকার অধিকারী কম্পিউটার বিজ্ঞানী সজীব ওয়াজেদ জয়।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৫ সালে বেতবুনিয়ায় ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় জাতির পিতার দৌহিত্র সজীব ওয়াজেদ জয় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট মহাকাশে পাঠান।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু সপরিবারে নিহত হওয়ার সময় মা ও বাবার সঙ্গে জার্মানিতে ছিলেন জয়। পরে মায়ের সঙ্গে রাজনৈতিক আশ্রয়ে ভারতে চলে যান তিনি। তার শৈশব ও কৈশোর কাটে ভারতে। সেখানকার নৈনিতালের সেন্ট জোসেফ কলেজে লেখাপড়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস অ্যাট আর্লিংটন থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে স্নাতক করেন তিনি। পরে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোকপ্রশাসনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। 

২০০২ সালের ২৬ অক্টোবর ক্রিস্টিন ওভারমায়ারকে বিয়ে করেন সজীব ওয়াজেদ জয়। তাদের একটি মেয়ে আছে।

লেখাপড়া করা অবস্থায় রাজনীতির প্রতি অনুরক্ত থাকলেও জয় সক্রিয় রাজনীতিতে নাম লেখান ২০১০ সালে। ঐ বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি পিতৃভূমি রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদ দেওয়া হয় তাকে, যার মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে রাজনীতিতে আসেন তিনি। বর্তমানে মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্বে আছেন। ২০০৭ সালে জয় ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম কর্তৃক গ্লোবাল লিডার অব দ্য ওয়ার্ল্ড হিসেবে নির্বাচিত হন। 

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ইশতেহারে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার বিষয়টি নিয়ে আসেন। পর্দার অন্তরালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে থেকে গোটা দেশে তথ্যপ্রযুক্তির বিপ্লব ঘটান এই তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ। বর্তমানে দলীয় ঘরানা ছাড়াও তথ্যপ্রযুক্তি, রাজনীতি, সামাজিক, অর্থনৈতিক, শিক্ষাবিষয়ক বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশ, তরুণ উদ্যোক্তা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন জয়।

বিশেষ করে দেশের তরুণদের দেশপ্রেমে উজ্জীবিত করে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের পথে আত্মনিয়োগ করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন কর্মসূচি ও পদক্ষেপ নিচ্ছেন তিনি। বর্তমানে বেশিরভাগ সময়েই দেশের বাইরে অবস্থান করতে থাকা সজীব ওয়াজেদ জয় বাংলাদেশের রাজনীতি ও সরকারের গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে ফেসবুকে মতামত ব্যক্ত করে থাকেন। ইতিমধ্যেই ডিজিটাল বাংলাদেশের স্থপতি হিসেবে তার নামডাক ছড়িয়ে পড়েছে।
দেশের আইসিটি খাত সংশ্লিষ্টদের মতে, শিক্ষাগত যোগ্যতা আর পেশাগত কাজের অভিজ্ঞতা-এই দু’য়ের মিশেলেই দেশের আইসিটি খাতের এমন তড়িৎ উন্নতিতে সফল নেতৃত্ব দিতে পেরেছেন সজীব ওয়াজেদ জয়।

ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের প্রাথমিক ধাপ হিসেবে ইন্টারনেটকে মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে  দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে কাজ শুরু করেন সজীব ওয়াজেদ জয়। ইউনিয়ন পর্যায়ের পাশাপাশি চর বা পার্বত্য অঞ্চলের মতো প্রত্যন্ত এলাকায় ইন্টারনেট পৌঁছে  দেওয়া হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন উপলক্ষে আওয়ামী যুবলীগ সকাল ১১টায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছ।

আরও পড়ুন:

চীনে গুদামে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪

এনএসও'র দাবি পেগাসাস স্পাইওয়্যার ব্যবহারে বিশ্বের লাখো মানুষ ঘুমাতে পারছে

পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়ল পচেত্তিনোর


 

এছাড়াও স্বস্থ্যবিধি মেনে জেলা/মহানগর/উপজেলা/থানা/পৌরসভা/ইউনিয়নে মিলাদ ও দোয়া এবং বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করা হবে।

এদিকে বিকেলে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সজীব ওয়াজেদ জয়’র শুভ জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটা ও তাঁর সু-স্বাস্থ্য কামনায় দোয়ার আয়োজন করেছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

করোনা বিধিনিষেধ : উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক মঙ্গলবার

অনলাইন ডেস্ক

করোনা বিধিনিষেধ : উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক মঙ্গলবার

করোনাভাইরাস সংক্রমণের বর্তমান পরিস্থিতিতে বিধিনিষেধ পর্যালোচনাসহ পরবর্তী করণীয় নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সচিবালয়ে এই বৈঠক হবে।

সোমবার (২৬ জুলাই) মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

বিধিনিষেধ আরও বাড়ানো হবে কি-না বা আরও কঠোর করার পরিকল্পনা রয়েছে কি-না- জানতে চাইলে সচিব বলেন, ‘কাল আমরা মিটিং করব। তারপর সিদ্ধান্ত। 

আরও পড়ুন:


করোনায় জাবি অধ্যাপকের মৃত্যু

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত


 

বিধিনিষেধে বেসরকারি অনেক অফিস খোলা। এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হবে কি-না জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘আমার গতকালও ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের এডিশনাল আইজির সঙ্গে কথা হয়েছে। অফিসগুলোর কিছু মেশিন চালু রাখতে হয়। ওই টেকনিক্যাল (কর্মী) যায়-আসে। অনেক জিনিস আছে, সার্ভিসিং করতে হয়, এগুলো তারা করছে। এগুলো আমাদের মোবাইল কোর্ট চেকিং করছে।’

করোনা সংক্রমণ রোধে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে দেশে কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়েছে। এই বিধিনিষেধ থাকবে ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত। কঠোর বিধিনিষেধেও করোনা পরিস্থিতির উন্নতি নেই, বরং অবনতি হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

৮ হাজার ডাক্তার-নার্স নিয়োগ : লাগবে না ইন্টারভিউ ও পুলিশ ভেরিফিকেশন

অনলাইন ডেস্ক

৮ হাজার ডাক্তার-নার্স নিয়োগ : লাগবে না ইন্টারভিউ ও পুলিশ ভেরিফিকেশন

করোনাকালীন চিকিৎসায় সংকট মেটাতে নতুন করে আট হাজার ডাক্তার ও নার্স নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

দ্রুত নিয়োগের জন্য তাদের ক্ষেত্রে ইন্টারভিউ এবং পুলিশ ভেরিফিকেশন বাদ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী।

সোমবার (২৬ জুলাই) ভার্চ্যুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠক শেষে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের তিনি একথা জানান।

আরও পড়ুন:


করোনায় জাবি অধ্যাপকের মৃত্যু

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত


স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেড় বছর ধরে করোনা। ডাক্তার-নার্সরাও ক্লান্ত হয়ে গেছে। তারা আর কত কাজ করবে নতুন চার হাজার ডাক্তার আমরা নিচ্ছি, নার্সও চার হাজার নেওয়া হচ্ছে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে নেওয়া হচ্ছে।  

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

‌‘লকডাউন না থাকলে দৈনিক মৃত্যু ছয়শো বা আটশো দেখতে হতো’

অনলাইন ডেস্ক

‌‘লকডাউন না থাকলে দৈনিক মৃত্যু ছয়শো বা আটশো দেখতে হতো’

সরকারের পর্যালোচনায় পাওয়া তথ্যে দেখা যাচ্ছে, জুলাই মাসের শুরু থেকেই লকডাউন বা বিধিনিষেধের কারণে মৃত্যুর সংখ্যা গড়ে দুইশো’র ঘরে এবং সংক্রমণ এগার হাজারে আটকে গেছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে লকডাউন এবং সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এমন তথ্য তুলে ধরেছে বলে জানায়  জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন,‘মৃত্যু এখন (দৈনিক) দুইশো দেখছি, হয়তো মৃত্যু ছয়শো বা আটশো দেখতে হতো। যদি এটা (কঠোর বিধিনিষেধ) না করতাম আমরা। সংক্রমণ আমরা এখন দেখছি, এগার হাজার। সেটা হয়তো আরও তিনগুণ বেড়ে যেত’।

তিনি উল্লেখ করেছেন, লকডাউন বা বিধিনিষেধ কঠোরভাবে কার্যকর করা না হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেত বলেই সরকার মনে করে।

একইসঙ্গে গ্রামেগঞ্জে সংক্রমণ এখনও উর্ধ্বমুখী। সেই পরিস্থিতিও মন্ত্রিসভার আলোচনায় এসেছে। সেখানে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যে বলা হয়েছে, রাজধানী ঢাকার হাসপাতালগুলোতেই কোভিড রোগীর ৭৫ শতাংশই গ্রাম থেকে এসেছেন।

এমন প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী চলমান বিধিনিষেধ ৫ অগাস্ট পর্যন্ত কঠোরভাবে কার্যকর করার অবস্থানে অটল থাকার নির্দেশ দিয়েছেন বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেছেন।

আরও পড়ুন:


করোনায় জাবি অধ্যাপকের মৃত্যু

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত


 

ঈদের সময় সাতদিন বাদ দিয়ে আবার ২৩ জুলাই থেকে দুই সপ্তাহের লকডাউন বা ‘কঠোর বিধিনিষেধ’ এখন চলছে। এরপর বিধিনিষেধ অব্যাহত থাকবে নাকি শিথিল করা হবে-সেই প্রশ্নে সরকারের পক্ষ থেকে এখনই পরিষ্কার করে কিছু বলা হচ্ছে না। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, আগামী সপ্তাহে আবারও পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর