দীর্ঘায়ু পাওয়ার খাবার
দীর্ঘায়ু পাওয়ার খাবার

দীর্ঘায়ু পাওয়ার খাবার

অনলাইন ডেস্ক

সুন্দর এই পৃথীবিতে কে না চায় সুস্থভাবে দীর্ঘদিন বেঁচে থাকতে। কিন্তু সেই ইচ্ছে মনে রাখলে কি হবে? মানতে হবে কিছু টিপস। নিচে দিওয়া হলো তেমন কিছু খাবার যা খেলে পেতে পারেন দীর্ঘায়ু ।

মূলত জীবনযাত্রার পরিবর্তন ও সঠিক খাদ্যাভ্যাসের অভাবে এসব সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে আমাদেরকে।

শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ্ থাকতে পুষ্টিকর খাবার গ্রহণের কোনো বিকল্প নেই। সঠিক খাবার গ্রহণে এনার্জ লেভেল বাড়ে, ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হয়, শরীরের কার্যক্রম ঠিকঠাক থাকে এবং এসব মিলে সার্বক সুস্থতা আমরা পাই।

আমলকি
আয়ুর্বেদে বহুল ব্যবহৃত একটি হার্বস হলো আমলকি। ভিটামিন সি তে পূর্ণ এ ফলটি বিভিন্ন ধরনের রোগ ও সংক্রমণের বিরুদ্ধে শরীরকে গড়ে তোলে। এমনকি এটি বার্ধক্য ঠেকাতে ও দীর্ঘায়ু দিতে পারে বলেও মনে করা হয়।

আদা
আদায় কমপক্ষে ২৫ ধরণের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে বলে মনে করা হয়। অ্যন্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
 
এলাচ
এসেনসিয়াল অয়েলে পূর্ণ এলাচ হজম শক্তি বাড়ায়, রক্তের সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণ করে, রক্ত সঞ্চালন ও শরীরের এনার্জ লেভেল বাড়ায়। পাশাপাশি এলাচ দিয়ে চা বানিয়ে খেলে শরীরের টক্সিন বেরিয়ে যায়।

জিরা
পেটের যেকোনো ধরণের গোলযোগ মোকাবিলায় জিরার ভূমিকা অপরিসীম। এটা আয়রন ও ফাইবারের খুব ভালো উৎস। সারারাত এক গ্লাস পানিতে জিরা ভিজিয়ে রেখে সকালে খালিপেটে তা খাওয়া খুব উপকারী বলে মনে করা হয়। এতে করে হজম শক্তি বাড়ে এবং দিনভর বিপাক প্রক্রিয়া অব্যাহত তাকে।

মধু
মধু হচ্ছে অন্যতম একটি সুপারফুড। বয়সের ছাপ কমাতে সৌন্দর্য চর্চায় এটি বহুল ব্যবহৃত হয়। এর অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতাও রয়েছে। এটাতে প্রাকৃতিক মিনারেল রয়েছে যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে দেয়। দিনে মাত্র এক চা চামচ পরিমাণে মধু খেলেই এ উপকার পাওয়া সম্ভব।

লবঙ্গ
লবঙ্গতে প্রচুর পরিমাণে ম্যা্ঙ্গানিজ রয়েছে  যা বিপাক প্রক্রিয়া সচল ও নার্ভাস সিস্টেম স্থিতিশীল রাখে।

কালো গোলমরিচ
সারাবিশ্বের বহুল ব্যবহৃত একটি মশলা এটি। এর কিছু ঔষধি গুণাগুণও রয়েছে। মিনারেল সমৃদ্ধ এ মশলাটি হলুদের পুষ্টিগুণ বাড়ায়। তাই হলুদ ও দুধ মিশয়ে খাওয়ার সময় তাতে লবঙ্গ দিয়ে দিলে খাবারটি আরো স্বাস্থ্যকর হয়ে ওঠে। এটা আমাদের পরিপাকতন্ত্রকেও শক্তিশালী করে।

news24bd.tv/আলী