কক্সবাজারে ব্যতিক্রমী বুট পালিশ মার্কেট
Breaking News
কক্সবাজারে ব্যতিক্রমী বুট পালিশ মার্কেট

কক্সবাজারে ব্যতিক্রমী বুট পালিশ মার্কেট

Other

জুতা ছিড়লে বা কালি করতে হলে রাস্তায় রাস্তায় হন্যে হয়ে চর্মকার বা মুচিদের খুঁজতে হয়। কিন্তু কখনো কি শুনেছেন চর্মকারদের বাজারের কথা? ভিন দেশের নয়, আমাদের দেশেই ২২ জন মুচিকে নিয়ে গড়ে উঠেছে এমনি একটি বাজার। বলছি কক্সবাজার বুট পালিশ মার্কেটের কথা। রাস্তায় বসে থাকা এমনি ২২ জন চর্মকারকে পুনর্বাসন করেছে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

মতিলাল ঋষি দাস। ছোট বেলাতেই বাবার সাথে জুতা মেরামতের কাজ করেন তিনি। রোদ-ঝড়-বৃষ্টি সব মাথায় নিয়ে, বংশ পরম্পরায় কক্সবাজার লাল দীঘির পারে বসেই এ কাজ করতেন মতি। স্বপ্নেও যা কল্পনা করেননি তাই এখন রূপ নিয়েছে বাস্তবে। তাদের জন্য কক্সবাজারেই তৈরী হয়েছে মার্কেট। নাম যার বুট পালিশ।

মতিলালের মত স্বস্তি ফিরেছে অরবিন্দর ঋষি দাস, প্রমোদ দাসসহ এই মার্কেটে ব্যবসা করা ২২ জনের মনে। গরম থেকে বাঁচতে মাথা উপর আছে পাখা, বৃষ্টিতে আছে ছাদ। আছে নিজেদের নির্দিষ্ট দোকান। সব মিলিয়ে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন তারা।

এক ছাদের নিচে এতজন চর্মকার থাকায় আগের মত আর রাস্তায় রাস্তায় ঘুরতে হয় না বলে জানান স্থানীয়রা। নির্দিষ্ট জায়গায় এসেই নিজেদের কাজ সময় মতই করাতে পারছেন তারা।

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ লে. কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমেদ বলছে, পর্যটন নগরীর সৌন্দর্য বাড়াতেই এই উদ্যোগ। বেদখল একটি দিঘি দখল মুক্ত করে গড়ে তোলা হয়েছে বুট পালিশ মার্কেট।

কক্সবাজারকে আদর্শ পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে এরই মধ্যে মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন


দেশে নেই প্রধানমন্ত্রী, তাই কর্মসূচি দেয়া হয়নি: রাঙ্গা

news24bd.tv এসএম