শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৯ | আপডেট ০১ ঘন্টা ০৩ মিনিট আগে

ক্যাসিনোয় জড়িত আ.লীগের দুই নেতার বিরুদ্ধে ৭ মামলা

অনলাইন ডেস্ক

ক্যাসিনোয় জড়িত আ.লীগের দুই নেতার বিরুদ্ধে ৭ মামলা

গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এনামুল হক এবং তাঁর ভাই থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রূপন ভূঁইয়া মতিঝিলের ওয়ান্ডারার্স ক্লাবসহ রাজধানীর একাধিক স্থানে অবৈধ ক্যাসিনো চালিয়ে আসছিলেন।

এসব ক্যাসিনো থেকে আয় করা কোটি কোটি অবৈধ টাকা, সোনা ও আগ্নেয়াস্ত্র আড়াল করতে ঘনিষ্ঠজন আবুল কালাম ও হারুন অর রশীদের বাসায় লুকিয়ে রাখেন। এঁদের বিরুদ্ধে দায়ের করা সাত মামলায় এসব উল্লেখ করেছে র‍্যাব।

গত বুধবার রাত ও গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে র‍্যাব-৩–এর কর্মকর্তারা বাদী হয়ে সূত্রাপুর, গেন্ডারিয়া এবং ওয়ারী থানায় অস্ত্র, বিশেষ ক্ষমতা আইন ও মানি লন্ডারিং আইনে এই সাত মামলা করেন।

গেন্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা (ওসি) মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত মঙ্গলবার দুপুরে এনামুলদের বানিয়ানগরের ছয়তলা বাড়িসহ চারটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে পাঁচ কোটি পাঁচ লাখ টাকা, চার কোটি টাকার স্বর্ণালংকার ও ছয়টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করে র‍্যাব। দুই ভাইয়ের সিন্দুক ভরে যাওয়ায় টাকা ও অলংকার তাঁরা ক্যাসিনোর কর্মচারী আবুল কালাম ও বন্ধু মো. হারুন অর রশীদের বাসায় রাখেন। র‌্যাব সেখান থেকেও টাকা ও স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে। ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের অংশীদার এনামুল ও রূপনের দৃশ্যমান ব্যবসা বলতে ছিল ক্যাসিনো। তবে এর সঙ্গে জড়িত কাউকে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত গ্রেপ্তার করতে পারেনি র‍্যাব।

পুলিশ সূত্র জানায়, র‍্যাব সূত্রাপুর থানায় মানি লন্ডারিং ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে দুটি করে চারটি মামলা করে। ওয়ারী থানায় দুটি অস্ত্র আইনে এবং গেন্ডারিয়ার থানায় মানি লন্ডারিং আইনে একটি মামলা করা হয়।

ওয়ারী থানায় করা অস্ত্র আইনের মামলায় বলা হয়, চলমান ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান চলাকালে র‍্যাব জানতে পারে, ঢাকা ওয়ান্ডারার্সের অবৈধ ক্যাসিনোর অংশীদার এনামুল হকের অর্থ বিশ্বস্ত কর্মচারী আবুল কালাম ও হারুন অর রশীদের বাসায় আছে। র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই বাসায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ সোনা, আগ্নেয়াস্ত্র ও টাকা উদ্ধার করে। বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা মামলায় দুই ভাইকে আসামি করা হয়েছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য