ঠাকুরগাঁওয়ের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোটের আহ্বান

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাঁকুরগাঁও

ঠাকুরগাঁওয়ের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোটের আহ্বান

উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা মার্কায় ভোট প্রদানের আহ্বান জানিয়েছেন ঠাকুরগাঁও সদর পৌরসভা আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আঞ্জুমান আরা বন্যা। শনিবার দুপুরে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় সভায় একথা বলেন তিনি।

এসময় তিনি আরো বলেন, গেল মেয়র নির্বাচনে বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখখল ইসলামের ভাই মির্জা ফয়সাল আমিন নির্বাচিত হয়ে পৌর এলাকার তেমন কোন উন্নয়ন করতে পারেনি। ফলে ৫টি বছর পৌর বাসি সার্বিক উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হয়েছে। আমার বিশ্বাস এবার পৌরবাসি সেই ভুলটি আবারও করবেন না।

পৌরসভার ভোটাররা এখন আগের চেয়ে অনেক সচেতন। নৌকার বিজয় হলে আগামী পাঁচ বছরে পৌর এলাকার প্রতিটি রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ ব্যবস্থা, ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসারসহ সবক্ষেত্রেই উন্নয়ণ বিসৃত করা হবে। তাই আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী পৌর নির্বাচনে নৌকার পক্ষে ভোট প্রদান করে জয়লাভের নিশ্চিতের আহবান জানান তিনি।

আরও পড়ুন:


পোলেরহাট বাজারে আগুনে ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

সুন্দরবনে বিষ দিয়ে মাছ নিধনে চলছে মহোৎসব

সিংড়ায় ৬০টি গৃহহীন পরিবারকে ঘর প্রদান

আইপিএলে শচীনের ছেলের ভিত্তিমূল্য কত?


এছাড়াও তিনি অভিযোগ করে বলেন, বিএনপির প্রার্থী গুন্ডা বাহিনীদের সাথে নিয়ে নির্বাচনী প্রচরণায় আচরণ বিধি লঙ্ঘন করছেন। সে বিষয়ে জেলা রির্টানিং অফিসার ও নির্বাচন সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের নজরদারির দাবি জানান। নৌকার বিজয় হলে সমাজের দরিদ্র অসহায় মানুষের পাশে থাকাসহ সকল সংগঠন ও গণমাধ্যমকর্মীদের সংগঠনগুলোর উন্নয়নেরও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার রায়, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আলম টুলু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোস্তফিজুর রহমান রিপন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অরুনাংশু দত্ত টিটো, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি একরামুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান বাবু, জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নাজমুল হুদা শাহ্ এ্যাপোলো, জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেল, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার পারভেজ পুলকসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মঙ্গলবার রোজা শুরু শরীয়তপুর ও মাদারীপুরের ৮০ গ্রামে

অনলাইন ডেস্ক

মঙ্গলবার রোজা শুরু শরীয়তপুর ও মাদারীপুরের ৮০ গ্রামে

শরীয়তপুর এবং মাদারীপুরের ৮০ গ্রামের মুসলিম সম্প্রদায়ের একাংশ সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সঙ্গে মিল রেখে মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) থেকে পবিত্র রোজা পালন শুরু করবেন।

শরীয়তপুরের রোজা শুরুর বিষয়টি নিশ্চিত করে সুরেশ্বর দরবার শরিফের পীর সৈয়দ তৌহিদুল হোসাইন শাহীন নূরী বলেন,  সোমবার (১২ এপ্রিল) সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে রমজান মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় মঙ্গলবার সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের মানুষ রোজা রাখবেন। তাই শরীয়তপুরের ছয়টি উপজেলার ৪০টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক ধর্মপ্রাণ মুসলমান উৎসাহ উদ্দীপনা ও ধর্মীয় অনুযায়ী দিয়ে রোজা রাখার প্রস্তুতি হিসেবে আজ তারাতারাবির নামাজ আদায় করছেন।

মাদারীপুরের রোজা শুরুর বিষয়ে পীর খাজা শাহ সূফী সৈয়দ নূরে আক্তার হোসাইন বলেন, একদিন আগে থেকে রমজানের রোজা রাখেন এবং একদিন আগেই ঈদ উদযাপন করেন। সে হিসেবে মাদারীপুর সদর উপজেলার পাঁচখোলা ইউনিয়নের চরকালিকাপুর, মহিষেরচর, পূর্ব পাঁচখোলা, জাজিরা, কাতলা, তাল্লুকসহ জেলার ৪০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ মঙ্গলবার ভোরে সাহরি খাবেন।


মাওলানা রফিকুল মাদানীর নামে আরেকটি মামলা, আনা হলো যেসব অভিযোগ

দেশে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড

দেশে নতুন করে করোনা শনাক্ত ৫ হাজার ৮১৯ জন


 

উপজেলার পাঁচখোলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুস সাত্তার মোল্লা বলেন, ‘ইসলাম ধর্মের সবকিছুই মক্কা শরীফ হয়ে বাংলাদেশে এসেছে। সুরেশ্বর দরবার শরীফের প্রতিষ্ঠাতা শাহ সুরেশ্বরী (রা.)-এর অনুসারীরা ১৪৮ বছর আগে থেকে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সঙ্গে মিল রেখে রোজা রাখেন এবং ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা পালন করে আসছেন। সে হিসেবে মঙ্গলবার প্রথম রোজা।

প্রসঙ্গত, গতকাল মধ্যপ্রাচ্যে চাঁদ দেখা না যাওয়ায় আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে সৌদি আরবে শুরু হচ্ছে পবিত্র রমজান। তবে আমাদের দেশে কবে থেকে রোজা শুরু হবে তা জানতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মাগরিবের নামাজের পর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা বসবে। সেখান থেকেই ঘোষণা আসবে কবে থেকে দেশে রোজা শুরু হচ্ছে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বংশাল থানায় বাংকার তৈরি করে এলএমজি নিয়ে পুলিশি পাহারা

অনলাইন ডেস্ক

বংশাল থানায়  বাংকার তৈরি করে এলএমজি নিয়ে পুলিশি পাহারা

রাজধানীর পুরান ঢাকার বংশাল থানা ও এর আওতাধীন এলাকায় বাংকার তৈরি করে লাইট মেশিনগান (এলএমজি) নিয়ে পাহারা দিচ্ছে পুলিশ। এছাড়া থানার নিরাপত্তায় বিশেষ পাহারাও দিচ্ছে পুলিশ। এর আগে সিলেট, নারায়নগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে এই ধরণের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয় পুলিশ।

বিশেষ নিরাপত্তার বিষয়টি সোমবার (১২ এপ্রিল) নিশ্চিত করেছেন বংশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিন ফকির জানান, ডিএমপি’র উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশক্রমে গত ১০ এপ্রিল থানায় বাংকার তৈরি করা হয়। এই বাংকারে ২৪ ঘণ্টা এলএমজি নিয়ে প্রশিক্ষিত পুলিশ ডিউটি শুরু করেছেন শিফটিং ভিত্তিতে।

শাহিন ফকির আরও জানান,  পুলিশের ও থানার নিরাপত্তার স্বার্থে এই বাংকার তৈরি করা হয়েছে। বংশাল থানার পাশাপাশি নবাবপুর, বংশাল ও কায়েতটুলি পুলিশ ফাঁড়িতে বাংকার তৈরি করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

ডিএমপি’র সদর দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় অতিরিক্ত নিরাপত্তার স্বার্থে রাজধানীর প্রতিটি থানাতেই এলএমজি স্থাপন করা হচ্ছে। যা ইতোমধ্যে বংশাল থানায় স্থাপন করা হয়েছে। পাশাপাশি রাজধানীর অন্যান্য থানাগুলোতেও একই প্রক্রিয়ায় এলএমজি ও বাংকার স্থাপন করার কাজ চলছে।


মাওলানা রফিকুল মাদানীর নামে আরেকটি মামলা, আনা হলো যেসব অভিযোগ

দেশে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড

দেশে নতুন করে করোনা শনাক্ত ৫ হাজার ৮১৯ জন


 

প্রসঙ্গত, সাম্প্রতিক সময়ে চট্টগ্রামের হাটহাজারি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ কয়েকটি জায়গায় থানাসহ সরকারি স্থাপনায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। বিশেষ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরকে কেন্দ্র করে হেফাজত ইসলামসহ ধর্মভিত্তিক কিছু দলের বিরোধিতার জের ধরে সহিংসতার সময় সরকারি নানা স্থাপনায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানেও হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নেশার ঘোরে প্যান্ট চুরি করি, পরে ঘটনা মিটে গেছে : ছাত্রলীগ নেতা(ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

নেশার ঘোরে প্যান্ট চুরি করি, পরে ঘটনা মিটে গেছে : ছাত্রলীগ নেতা(ভিডিও)

রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জুয়েল রানা। নেশাগ্রস্থ অবস্থায় দোকান থেকে প্যান্ট চুরির দায়ে জরিমানা দিয়ে ও ক্ষমা চেয়ে রক্ষা পেলেন জেলা ছাত্রলীগের এই নেতা। প্যান্ট চুরির বিষয়ে ছাত্রলীগের এই নেতা বলেন, ঘটনার কয়েক ঘণ্টা আগে তিনি নেশাগ্রস্ত ছিলেন। ফলে নেশার ঘোরে প্যান্টটা দোকান থেকে নিয়ে যান। প্যান্ট চুরির সেই ভিডিও এরিমধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

প্যান্ট ‍চুরির ঘটনাটি ঘটে গত শনিবার রাতে রাজশাহীর তানোরের গোল্লাপাড়া বাজারে।

শনিবার রাতে স্থানীয় গোল্লপাড়া বাজারে প্রসেনজিৎ কুমার সরকারের স্টাইল কালেকশান নামের গার্মেন্টসের দোকানে যান ছাত্রলীগ নেতা জুয়েল রানা। কয়েকটি জিনসের প্যান্ট দোকানের সামনে বড় হ্যাঙ্গারে সাজিয়ে রাখা হয়েছিল। জুয়েল দোকানের সামনে বড় হ্যাঙ্গারে সাজিয়ে রাখা প্যান্টি নিয়ে চলে যায়। সেই কর্মকাণ্ড ধরা পড়ে সামনের ভিআইপি গার্মেন্টস নামের একটি দোকানে সিসিটিভি ফুটেজে।

পরে ভিডিও দেখে ব্যবসায়ীরা তাকে ধরে এনে বণিক সমিতির অফিসে সালিশ বৈঠক করেন। সালিশে জুয়েল প্যান্ট চুরির অপরাধ  স্বীকার করে নিয়ে জীবনে আর এমন কাজ করবে না বলে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান। অবশ্য জুয়েল রানা প্যান্টের মুল দামের সঙ্গে আরও ২০ টাকা টোকেন জরিমানা দিয়ে মোট ৩২০ টাকা দোকানিকে দিয়েছেন। এ সংক্রান্ত  ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে সোমবার।

প্যান্ট চুরির ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জুয়েল রানা বলেন, ঘটনার কয়েক ঘণ্টা আগে তিনি নেশাগ্রস্ত ছিলেন। ফলে নেশার ঘোরে প্যান্টটা দোকান থেকে নিয়ে যান। তবে দাম দিয়ে এসেছেন। ঘটনা মিটে গেছে। এটা ভুলক্রমে ঘটেছে বলে স্বীকার করেন তিনি। 

তবে সিসিটিভি ফুটেজে তাকে অসুস্থ নয়, বরং স্বাভাবিকভাবে হেঁটে যেতে দেখা গেছে তাকে, এমন প্রশ্নে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি।

স্টাইল কালেকশানের মালিক প্রসেসজিৎ কুমার দাস জানান, ঘটনার সময় তিনি দোকানে ছিলেন না। তার ছোট ভাই দ্বীপক কুমার দাস দোকানে ছিলেন। দোকানের ভেতরে কাউকে দেখতে না পেয়ে জুয়েল রানা একটি জিনসের প্যান্ট টেনে নিয়ে চলে যান।

পরের দিন রোববার (১১ মার্চ) দোকান মালিক এসে দেখেন তার একটি প্যান্ট চুরি গেছে। সে সামনের ভিআইপি গার্মেন্টসের মালিক রাশেদ মোল্লাকে তার সিসিটিভি ফুটেজ দেখতে বলেন। এই সিসিটিভিতে ছাত্রলীগ নেতার প্যান্ট চুরির ঘটনা ধরা পড়ে।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেরাজুল ইসলাম মেরাজ বলেন, অভিযোগ খতিয়ে দেখে জুয়েল রানার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ছাত্রলীগ নেতা জুয়েল রানার বাড়ি রাজশাহীর তানোরের চাপড়া গ্রামে।

 

প্যান্ট চুরির ভিডিও

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী করোনায় আক্রান্ত

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী করোনায় আক্রান্ত

প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বীর বিক্রম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

শুক্রবার তিনি নিজেই গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তৌফিক-ই-ইলাহী বলেন, শুক্রবারই করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার ফল পজেটিভ জানতে পেরেছি। এখন বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছি।

১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর সরকারের শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজক ও সমন্বয়ক ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী।
মুক্তিযুদ্ধকালে তিনি মেহেরপুর মহকুমার প্রশাসক (এসডিও) ছিলেন। পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধে অস্ত্র হাতে সাহসিকতার সঙ্গে লড়াই করেন। এ জন্য তাকে বীর বিক্রম খেতাব প্রদান করা হয়।

১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোট ক্ষমতায় আসার পর থেকে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। সুস্থতার জন্য তিনি সবার দোয়া কামনা করেছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পুরুষশূন্য সালথার কয়েক গ্রাম

অনলাইন ডেস্ক

পুরুষশূন্য সালথার কয়েক গ্রাম

লকডাউন না মানাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের জেরে ৫ মামলায় পুলিশি অভিযানের কারণে ফরিদপুরের সালথা উপজেলার আশেপাশের কয়েকটি ইউনিয়নের গ্রাম পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে। শুক্রবার (০৯ এপ্রিল) ওই সব এলাকার বাড়ি-ঘরগুলোতে নারী আর শিশু ছাড়া কোনো সদস্য দেখা যায়নি। এ সময় বাড়ির নারী ও শিশুদের চোখে মুখে ভয়ের ছাপ দেখা গেছে। এলাকার পরিস্থিতি এখনও থমথমে। বাইরের মানুষ দেখলেই তারা ভয়ে দৌড়ে সরে যাচ্ছেন।

ফুকরা বাজার এলাকার করিমন বেগম জানান, সব সময় ভয়ে থাকি। আমাদের এখন পুলিশ দেখতে দেখতে সারাদিন কেটে যাচ্ছে। বাড়িতে কোন পুরুষ সদস্য নেই। সবাই পালিয়ে পালিয়ে রয়েছে।
  
নুরজাহান নামে একজন জানান, ওইদিন অন্য এলাকা থেকে লোকজন এসে হামলা করছে। আমাদের গ্রামের কোনো লোক  ওই তিনের হামলায় ছিল না। এখন তো কোনও পুরুষই এলাকায় নেই ভয়ে।

মনির নামে একজন জানান, বালিয়া গট্রি এলাকা ও উপজেলা কেন্দ্রীক এলাকার বাড়িগুলোতে কোনো পুরুষ সদস্য নেই। ঘটনার পর থেকে ওই সব এলাকার লোকজন পলাতক অবস্থায় রয়েছে। কখন কি হয় কেও বলতে পারে না। তাই সবাই ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, সালথায় উপজেলা পরিষদ, এসিল্যান্ড অফিস ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার  পর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মামলার আসামিদের ধরতে পুলিশ দিনরাত জোরদার অভিযান চালানো হচ্ছে। বেশির ভাগ এলাকায় পুলিশি অভিযানের কারনে পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে এলাকাগুলো। তারপরও পুলিশ তাদের ধরতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় যে জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা পুলিশ নেবে। 

গত ৫  এপ্রিল সালথার ঘটনায় এ পর্যন্ত মামলা হয়েছে পাঁচটি। এসব মামলায় আসামি করা হয়েছে ২৬১ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও ৩-৪ হাজার জনকে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ৪৮ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

নতুন যে চারটি মামলা হয়েছে তার একটি করেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা বাচ্চু মাতুব্বর। এ মামলায় ২৫ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে এবং অজ্ঞাত আরও ৭০০ থেকে ৮০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আরেকটি মামলা করেছেন সালথা উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকতা (ইউএনও) মোহাম্মাদ হা‌সিব সরকা‌রের গাড়িচালক মো. হাশমত আলী। এই মামলায় ৫৮ জনের নাম উল্লেখ এবং ৩ থেকে ৪ হাজার অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

অপর মামলাটি করেছেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কার্যালয়ের নিরাপত্তারক্ষী সমীর বিশ্বাস। এ মামলায় ৪৮ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে এবং ৩ থেকে ৪ হাজার ব্যক্তিকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

আরেকটি মামলাটি করেছেন উপজেলা সহকারী কমিশনারের (ভূমি) গাড়িচালক মো. সাগর সিকদার। এ মামলায় ৪২ জনের নাম উল্লেখ করে তিন থেকে চার হাজার ব্যক্তিকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

এর আগে বুধবার সালথা থানার এস আই (উপ পরিদর্শক) মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ৮৮ জনের নাম উল্লেখ করে এবং প্রায় চার হাজার ব্যক্তিকে অজ্ঞাত আসামি দেখিয়ে থানায় হামলা ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে প্রথম মামলাটি করেন।

উল্লেখ্য, লকডাউন না মানাকে কেন্দ্র করে গত সোমবার বিকেলে সালথার ফুকরা বাজারে উত্তেজনা সৃষ্টি হয় এসিল্যান্ডের গাড়িতে থাকা সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের। এরপরই বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার মানুষ সালথা উপজেলা পরিষদ, এসিল্যান্ড অফিস ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটায়।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর