আজ ভয়াল ২৫ মার্চ, গণহত্যা দিবস

অনলাইন ডেস্ক

আজ ভয়াল ২৫ মার্চ, গণহত্যা দিবস

বাংলাদেশের ইতিহাসে আজ এমন একটি দিন। যা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। এই দিনে চেষ্টা করা হয়েছিল ঘুমন্ত অবস্থায় বাংলাদেশের নাম মুছে ফেলে দেওয়ার। আজ সেই ভয়াল ২৫ মার্চ, জাতীয় গণহত্যা দিবস।

১৯৭১ সালের এই ২৫ মার্চ দিবাগত রাতে বাংলাদেশের (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান) মানুষের ওপর নৃশংসতম হত্যাযজ্ঞ চালায় পকিস্তানি হানাদার বাহিনী।

এই রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ‘অপারেশন সার্চ লাইট’র নামে নিরস্ত্র বাঙালির ওপর নির্বিচারে গুলি চালিয়ে বিশ্বের ইতিহাসের নৃশংসতম গণহত্যা মেতে উঠে। ‘অপারেশন সার্চ লাইট’ ছিল বাঙালির একটি প্রজন্মকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার এক নারকীয় পরিকল্পনা। পোড়া মাটি নীতি নিয়ে নেমেছিল পাকিস্তানি ঘাতকরা। 

সুনির্দিষ্ট কিছু লক্ষ্যকে সামনে রেখে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে পাকিস্তানি নর ঘাতক জেনারেল টিক্কা খান বলেছিলেন, ‘আমি পূর্ব পাকিস্তানের মাটি চাই, মানুষ চাই না’। ফলশ্রুতিতে বাঙালি জাতির জীবনে নেমে আসে বিভীষিকাময় ভয়াল কালরাত্রি।

আরও পড়ুন:


গাইবান্ধায় বোমা বানাতে গিয়ে নিহত ৩

লকডাউন বা ছুটি নিয়ে যা জানালেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আগুনে পুড়ে স্ত্রীর পর মারা গেলেন স্বামীও

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে না আগামী ৩০ মার্চ : মাউশি সচিব


১৯৪৭ সালের পশ্চাতপদ দ্বিজাতি তত্বের ভিত্তিতে পাকিন্তান নামের যে রাষ্ট্রের জন্ম সেই রাষ্ট্রের কাঠামোর মধ্যে পূর্ব বাংলা অর্থাৎ বাংলাদেশকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। শুরুতেই পাকিস্তানি শাসক শ্রেণী বাঙালি জাতির ওপর অত্যাচার নির্যাতন, শোষণ চালাতে থাকে। এই শোষণ অত্যাচার নির্যাতনের বিরুদ্ধে শুরুতেই প্রতিবাদ করতে থাকে বাঙালি জাতি। ধরাবাহিক আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রশ্ন সামনে চলে আসে। শুরু হয় স্বাধীনতা সংগ্রাম। এই স্বাধীনতা সংগ্রামের চুড়ান্ত পর্বে এবং স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলনরত বাঙালি জাতির ওপর ২৫ মার্চ বর্বর সশস্ত্র হামলা ও গণ হত্যা শুরু করে পাকিস্তানি বাহিনী।

২৫ মার্চ পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী স্বাধীনতাকামী বাঙালির উপর হিংস্র দানবের মতো ঝাঁপিয়ে পড়লে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। জাতির পিতার আহ্বানে সাড়া দিয়ে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বাংলার সর্বস্তরের জনগণ ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। ওই দিন রাত থেকেই আধুনিক অস্ত্রশন্ত্রে সজ্জিত পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে প্রতিরোধ করতে বাঙালি রাস্তায় নামে। 

রাজধানী ঢাকাসহ বড় শহরগুলোতে নানাভাাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হয়। রাজারবাগ পুলিশ লাইন, পিলখানা থেকে পুলিশ ও ইপিআর এর বাঙালি সদস্যরা পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে অন্ত্র ধারণ করে রাস্তায় নামে। রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরাও হানাদার বাহিনীকে প্রতিরোধ করতে রাস্তায় নামে।

২৫ মার্চ কালো রাতে শুরু হওয়ার পর পরই বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে পাকিস্তানি সেনা বাহিনী ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের বাসভবন থেকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়। গ্রেপ্তার হওয়ার আগেই বঙ্গবন্ধু ধানমন্ডির বাসভবন থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। ২৫ মার্চ থেকে শুরু হয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর গণহত্যা চলতে থাকে মুক্তিযুদ্ধের পুরো সময় ধরে। ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগ ও দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে অর্জিত হয় বহুল প্রতীক্ষিত মহান স্বাধীনতা। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠা লাভ করে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

ঈদের দিন দুর্গম সীমান্তে বিজিবি মহাপরিচালক

অনলাইন ডেস্ক

ঈদের দিন দুর্গম সীমান্তে বিজিবি মহাপরিচালক

ঈদের দিনে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় ও সীমান্ত পরিদর্শন করলেন মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম।

শুক্রবার (১৪ মে) ঈদের দিন বিজিবির চট্টগ্রাম রিজিয়নের কাপ্তাই ব্যাটালিয়নের রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম পার্বত্য অঞ্চলে অবস্থিত দুমদুমিয়া সিআইও ক্যাম্প এবং রাজনগর ব্যাটালিয়নের বদিপাড়া বিওপি পরিদর্শন করেন তিনি।

বিজিবি সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, করোনায় পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে ঈদ উপভোগ না করে দেশের সার্বভৌমত্ব ও সীমান্ত রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত বিজিবি সদস্যদের মনোবল দৃঢ় করা, এবং তাদের সঙ্গে শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময়ের জন্য বিজিবি মহাপরিচালক দুর্গম পার্বত্য সীমান্ত পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শনকালে তিনি সেখানে নিয়োজিত সব বিজিবি সদস্যদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময় করেন। এছাড়া গাছের চারা রোপণ করেন। নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও দক্ষতা ও সাফল্যের সঙ্গে দায়িত্ব পালনের জন্য বিজিবি সদস্যদের অভিনন্দন জানান।

এ সময় বিজিবি সদর দফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন), অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন ও প্রশিক্ষণ), বিজিবি রাঙামাটি সেক্টরের সেক্টর কমান্ডারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

কারাগারে ঈদ : যা ছিলো মামুনুলের খাবারের মেন্যুতে

অনলাইন ডেস্ক

কারাগারে ঈদ : যা ছিলো মামুনুলের খাবারের মেন্যুতে

হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মামুনুল হকের এবারের ঈদ কাটছে জেলে। বিভিন্ন মামলায় কারাবন্দি মামুনুলের এবারের ঈদে তার পরিবারের হাতের খাবার খাওয়া হয়নি। তবে অন্যান্য কারাবন্দির মতো তিনিও কারা কর্তৃপক্ষের আয়োজনে ঈদুল ফিতরের দিন বিশেষ খাবার পেয়েছেন।

জানা গেছে, কারাগারে যাওয়ার পর একটি ওয়ার্ডের আইসোলেশন সেন্টারে রয়েছেন মামুনুল হক। তিনি সেখানে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকবেন।  ঈদের দিন সকালে তাকেও মুড়ি আর পায়েস দেওয়া হয়েছে। জুমার নামাজের পর বন্দিদের জন্য সাদা ভাতের আয়োজন করা হয়। সঙ্গে ছিল ডাল, রুই মাছ আর আলুর দম। রাতের বিশেষ আয়োজনে তারা পাবেন পোলাও। এর সঙ্গে থাকবে গরুর মাংস, ডিম, মিষ্টান্ন এবং পান-সুপারি। যারা গরুর মাংস খান না তাদের জন্য থাকবে খাসির মাংস।

কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মোমিনুর রহমান মমিন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, অন্য সব বন্দির জন্য একই খাবারের আয়োজন হয়েছে। সবাই একই খাবার খাবেন। অন্যান্য দিনের থেকে প্রতিবারই ঈদের দিন একটু উন্নতমানের খাবারের আয়োজন করা হয়।

গত ১৮ এপ্রিল দুপুরে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা থেকে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের সময় ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত সহিংসতায় সারাদেশে ১৭ জনের মৃত্যু হয়। এসব সহিংসতার ঘটনায় সারাদেশে প্রায় অর্ধশতাধিক মামলা হয়েছে। মামুনুলকে এসব ঘটনার মূল ইন্ধনদাতা মনে করছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, প্রতি ঈদেই কারাগারে বন্দিদের জন্য বিশেষ খাবারের আয়োজন করা হয়ে থাকে। এ দিন খাবারের তালিকায় থাকে মাছ, মাংস, পোলাও, ডিম, ফিরনি-পায়েস, মিষ্টান্ন ইত্যাদি। এবারও দেশের সব কারাগারেই এ ধরনের খাবারের আয়োজন থাকছে। 

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

গত ২৪ ঘন্টায় করোনা শনাক্ত ৮৪৮, মৃত্যু ২৬ জনের

অনলাইন ডেস্ক

গত ২৪ ঘন্টায় করোনা শনাক্ত ৮৪৮, মৃত্যু ২৬ জনের

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাসে। একই সময়ে দেশে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮৪৮ জনের। শনাক্তের হার ১০.৮২ শতাংশ।

আজ শুক্রবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

প্রথমবারের মত মাস্ক ছাড়া মিটিংয়ে বাইডেন

অনলাইন ডেস্ক

প্রথমবারের মত মাস্ক ছাড়া মিটিংয়ে বাইডেন

করোনার প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই হয়েছেন প্রেসিডেন্ট। বলতে গেলে মাস্ক পরেই প্রেসিডেন্ট হয়েছেন তিনি। ওই পরিস্থিতিতে জানুয়ারিতে দায়িত্ব নেয়ার পর এই মে মাসে প্রথমবার মাস্ক খুলে মিটিং করলেন জো বাইডেন।

বিবিসি জানিয়েছে, শুক্রবার ওভাল অফিসে রিপাবলিকানদের সঙ্গে বাইডেন বৈঠক করেন। এই বৈঠকেই তিনি মাস্ক খুলে ফেলেন।

ভ্যাকসিনের দুই ডোজ নেয়া থাকলে ঘরে-বাইরে মাস্ক ছাড়াই ঘোরা যাবে বলে জানিয়েছেন বাইডেন। তিনি টুইটারে লেখেন, ‘কোভিড ১৯-এর সঙ্গে দীর্ঘ যুদ্ধের পর আজ আমেরিকার জন্য একটি ভাল দিন। কিছুক্ষণ আগে সিডিসি জানিয়ে দিয়েছে যে টিকা নেয়া ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে আর মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক নয়।’


আরও পড়ুনঃ


গ্রহাণু ঠেকাতে অন্তত পাঁচ বছর সময় লাগবে: নাসা

তাহসান-মিথিলার ‘সারপ্রাইজ’-এর রহস্য উন্মোচন, আড়ালে অন্য কেউ

ইসরায়েলের হামলা নিয়ে নোয়াম চমস্কির টুইট

ইসরায়েলের হামলা মানবতাবিরোধী অপরাধ: মিয়া খলিফা


তবে সিডিসি তাদের নতুন নির্দেশনায় জানিয়েছে, হাসপাতালগুলোতে এই নিয়ম কার্যকর হবে না, সবাইকে মাস্ক পরতে হবে।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

আল-আকসায় হামলার প্রতিবাদে বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ

অনলাইন ডেস্ক

আল-আকসায় হামলার প্রতিবাদে বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ

ফিলিস্তিনের আল-আকসা মসজিদে ইসরাইলি হামলা ও হত্যার প্রতিবাদে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের সামনে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শুক্রবার (১৪ মে) সকাল ১১টার দিকে বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে এ বিক্ষোভ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এই বিক্ষোভের আয়োজন করে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, ঢাকা মহানগরী শাখা।

বিক্ষোভ সমাবেশ প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব হাফেজ মাওলানা ইউনুস আহমেদ বলেন, ইসরাইলে ন্যাক্কারজনকভাবে ফিলিস্তিনের নামাজরত মানুষের ওপর হামলা করেছে। এমন বর্বর হামলার পরেও বিশ্ব সম্প্রদায় চুপ হয়ে আছে। জাতিসংঘও কিছু বলছে না।

তিনি বলেন, এই বর্বরতার অবসান হওয়া দরকার। ইসরাইল তাদের সম্প্রসারণ নীতি দিয়ে গাজা উপত্যকায় বসতি গড়ে তোলে। প্রতিনিয়ত ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর তারা তাদের দখল কায়েম করছে। ইসরাইলের দখলদার নীতি অব্যাহত থাকলেও এ বিষয়ে বিশ্ব সম্প্রদায় কিছুই বলছে না।

আরও পড়ুন


খুলনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত

ঈদের আনন্দ নেই ফেরিতে মাকে হারানো সেই রিফাতের পরিবারে

বগুড়ায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত

স্বাস্থ্যবিধি মেনে শান্তিপূর্ণভাবে ঈদ উদযাপনের আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের


ইসলামী আন্দোলনের ঢাকা উত্তরের সভাপতি ফজলে বারী মাসুদ বলেন, ইসরাইল অভিশপ্ত জাতি। তাদের এ উগ্রবাদী আচরণ নতুন নয়। তারা ইসলামের অনেক নবীকেও হত্যা করতে কুণ্ঠাবোধ করেনি।

বিক্ষোভ ঘিরে যেকোনো ধরনের সহিংসতা অথবা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মসজিদ ও আশপাশের এলাকায় অবস্থান নিতে দেখা গেছে।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর