একসঙ্গে দুই ছেলে ও দুই মেয়ের জন্ম
একসঙ্গে দুই ছেলে ও দুই মেয়ের জন্ম

একসঙ্গে দুই ছেলে ও দুই মেয়ের জন্ম

অনলাইন ডেস্ক

দুজন ছেলে ও দুজন মেয়ে শিশু একসঙ্গে জন্ম দিয়েছেন কুমিল্লার এক নারী। ওই নারীর নাম সাদিয়া আক্তার।

মঙ্গলবার (০৩ আগস্ট) বিকেল ৩টায় কুমিল্লা নগরীর গোমতী হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে।

ওই নারীর তত্ত্বাবধানে থাকা গাইনি ডাক্তার ডা. শাহিদা আক্তার রাখি এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ওই চার শিশু বর্তমানে কুমিল্লা মর্ডান হসপিটালের নবজাতক নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে (এনআইসিইউ) আছে।

তারা বিপদমুক্ত নয় বলে জানা গেছে।

প্রসূতি সাদিয়া আক্তারের স্বামী জিল্লুর রহমান জানান, বর্তমানে হাসপাতালে অনতঃসত্ত্বা রোগীকে নিয়ে গেলেই সিজার করে ফেলে।

তবে ডা. শাহিদা আক্তার রাখি আমার স্ত্রীকে চেকআপ করে বলেছেন, বাচ্চাগুলোর পজিশন ঠিক আছে। তিনি নরমাল ডেলিভারি করার জন্য বলেন। আমরাও রাজি হয়ে যাই। আল্লাহর রহমতে কোনো সমস্যা ছাড়াই চার সন্তানের বাবা হলাম। শিশুরা এনআইসিইউ আছে। আমি সবার দোয়া কামনা করছি।

গাইনি ডাক্তার ডা. শাহিদা আক্তার রাখি বলেন, নরমাল ডেলিভারিতে চার শিশুর জন্ম হওয়ায় আমি খুবই খুশি। প্রসূতি সাদিয়া আক্তারও সুস্থ আছেন। কোনো রকম সিজার ছাড়াই নরমাল ডেলিভারিতে চার শিশুর জন্মের ঘটনা কুমিল্লায় এর আগে ঘটেছে কি না শুনিনি। তার আগে আমি একসঙ্গে তিন শিশুর নরমাল ডেলিভারি করেছি। আমি নিয়মিত তাদের খোঁজ খরব রাখছি।

চার শিশুর মধ্যে প্রথম জনের ওজন প্রায় ১১০০ গ্রাম, দ্বিতীয় জনের ১০০০ গ্রাম, তৃতীয় জনের ওজন ৯০০ গ্রাম এবং চতুর্থ জনের ওজন ৮০০ গ্রাম।

তিনি আরও বলেন, অনেক রোগী অভিযোগ করে বলেন, হাসপাতালে গেলে সিজার করানো হয়। সেই ধারণাটা ভুল। আমরা চেকআপ করে বাচ্চার অবস্থা ভাল থাকলে প্রসূতিকে রিস্ক বেনিফিট কাউন্সেলিং করি। তখন প্রসূতি মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকলে নরমাল ডেলিভারিই করা হয়। নরমাল ডেলিভারিতে কিছু সময় ঝুঁকি থাকে। তবুও সবকিছু ঠিক থাকলে নরমাল ডেলিভারি করার চেষ্টা করি।