ঘোড়ার খামারে বিয়ে করছেন বিল গেটসের মেয়ে

অনলাইন ডেস্ক

ঘোড়ার খামারে বিয়ে করছেন বিল গেটসের মেয়ে

অবশেষে দীর্ঘদিনের প্রেমিক পেশাদার ঘোড়া দৌড়বিদ নায়েল নাসেরকেই বিয়ে করছেন বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনকুবের বিল গেটসের মেয়ে জেনিফার গেটস। শনিবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েস্টচেস্টার কাউন্টিতে একটি ঘোড়ার খামারে বিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। খবর নিউইয়র্ক পোষ্টের।

বিয়ের বিষয়টি জেনিফার গেটস নিজেই নিশ্চিত করেছেন। ইতিমধ্যেই এই রাজকীয় বিয়ের তোড়জোড় শুরু হয়েছে। নর্থ সালেমের ১২৪ একরের খামার সেজে উঠেছে উৎসবের সাজে।

স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক শেষ করার কিছুদিন পরই ১৬ মিলিয়ন ডলারের ওই খামার বাড়ি বাবা-মায়ের কাছ থেকে উপহার পান জেনিফার। বিয়ের আগে বুধবার মা মেলিন্ডা গেটসের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যানহাটানের একটি বিলাসবহুল হোটেলে পৌঁছেছেন জেনিফার। এ সময় জেনিফার পরেছিলেন সাদা লেসের গাউন ও হাতে ঝুলছিল ম্যানিং ব্যাগ। 

আরও পড়ুন:

কোহলিদের কোচ হচ্ছেন রাহুল দ্রাবিড়, চোখ কপালে উঠার মত বেতন?

প্রেমিকের সঙ্গে পূজা দেখতে গিয়ে অচেতন অবস্থা জঙ্গলে পড়েছিল তরুণী

বরিশালের ক্ষুদে বোলিং যাদুকর সাদিদে মুগ্ধ বিশ্ব, স্বপ্ন বড় হয়ে বিশ্বকাপ জয়ের

কুমিল্লায় ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ, জানালার কাঁচ ভেঙে শিশুসহ আহত ৩


ওই একই নিয়ে নিজের এসইউভিতে চলে হোটেলে পৌঁছান নায়েলও। তবে বিল গেটসকে এসময়ের মধ্যে ওই হোটেলে আসতে দেখা যায়নি।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ আঘাত হানতে পারে

অনলাইন ডেস্ক

ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ আঘাত হানতে পারে

ডিসেম্বরের শুরুতে সাগরে নিম্নচাপের কারণে বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশ ভারতের পূর্বাঞ্চলে ‘শক্তিশালী’ ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ আঘাত হানতে পারে। আগামী শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সকালের দিকে অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তর ও ওড়িশার দক্ষিণ উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড়।

ভারতীয় আবহাওয়া বিভাগ (আইএমডি) জানায়, মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) সকালে দক্ষিণ থাইল্যান্ড এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি নিম্নচাপ অবস্থান করছিল। আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে তা আন্দামান সাগরে পৌঁছাবে। এরপর পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে বৃহস্পতিবারের (২ ডিসেম্বর) মধ্যে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে, যা দক্ষিণ-পূর্ব এবং সংলগ্ন পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করবে।

পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় মধ্য বঙ্গোসাগরেই সেটি ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। 

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনায়েত উল্লাহ

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: ৬ হামলাকারী শনাক্ত


 

এরপর আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হবে ঝড়টি। সেই সঙ্গে ক্রমাগত শক্তি সঞ্চয় করতে থাকবে। শেষপর্যন্ত শনিবার (৪ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় সকালে অন্ধ্রপ্রদেশ-ওড়িশা উপকূলের মাঝামাঝি আছড়ে পড়তে পারে এই ঝড়।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

লকডাউনের এখনই প্রয়োজন নেই : বাইডেন

অনলাইন ডেস্ক

লকডাউনের এখনই প্রয়োজন নেই : বাইডেন

উত্তর আমেরিকায় ওমিক্রনে দুজন শনাক্ত হওয়ার এক দিন পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন চিন্তার কারণ হলেও আতঙ্কের কারণ নয়। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

জো বাইডেন বলেছেন, এখনো লকডাউনের কোনো প্রয়োজন নেই। তিনি আরও বলেন, যদি লোকজন টিকা নেয় এবং মাস্ক পরে তাহলে এখন লকডাউন জরুরী নয়।

করোনার নতুন এ ধরন দক্ষিণ আফ্রিকা, কানাডাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শনাক্ত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র এরই মধ্যে আফ্রিকার আট দেশে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করেছে।

আরও পড়ুন:

পৃথিবীর নতুন প্রজাতন্ত্র হিসেবে পরিচিতি পেলো বার্বাডোজ

তানজানিয়ায় বিষাক্ত কচ্ছপের মাংস খেয়ে ৭ জনের মৃত্যু

গতকাল স্থানীয় সময় সোমবার হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, এটি প্রায় অনিবার্য যে ওমিক্রন প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হলেও যেকোনো সময় যুক্তরাষ্ট্রে পাওয়া যাবে।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

এক দশকে দ্বিগুন হতে চলেছে ইন্দোনেশিয়ার রপ্তানি মূল্য

অনলাইন ডেস্ক

এক দশকে দ্বিগুন হতে চলেছে ইন্দোনেশিয়ার রপ্তানি মূল্য

২০২০ থেকে ২০৩০ সালের মধ্যে এক দশকে দ্বিগুন হতে চলেছে ইন্দোনেশিয়ার রপ্তানি মূল্য। লন্ডনভিত্তিক স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের এক বিশ্লেষণে উঠে এসেছে এমন তথ্য।

জাকার্তা পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইন্দোনেশিয়ার বার্ষিক প্রবৃদ্ধির হার ৮ শতাংশ হতে পারে বলে ব্যাংকটির পূর্বাভাসে দেখা গেছে। যার মাধ্যমে ২০৩০ সাল নাগাদ দেশটির রপ্তানি গিয়ে পৌঁছাবে ৩৪ হাজার ৮শ কোটি ডলারে।

আরও পড়ুন:

পৃথিবীর নতুন প্রজাতন্ত্র হিসেবে পরিচিতি পেলো বার্বাডোজ

তানজানিয়ায় বিষাক্ত কচ্ছপের মাংস খেয়ে ৭ জনের মৃত্যু

গত বছরের একই সময়ের তুলনায় চলতি বছরের অক্টোবরে ইন্দোনেশিয়ায় ৫৩ দশমিক ৩৫ শতাংশ রপ্তানি বেড়েছে। তেলবহির্ভুত খাত ও গ্যাস রপ্তানির ক্ষেত্রে বিক্রি ৫২ দশমিক ৭৫ শতাংশ বেড়ে ২ হাজার ১শ কোটি মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। এ সময়ের মধ্যে তেল ও গ্যাস রপ্তানি ৬৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ বেড়েছে।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

অং সান সু চির রায় ঘোষণা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

অনলাইন ডেস্ক

অং সান সু চির রায় ঘোষণা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মিয়ানমারের ক্ষমতা দখলকারী জান্তা সরকার পরিচালিত একটি আদালত দেশটির নেত্রী অং সান সু চির রায় ঘোষণা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ক্ষমতাচ্যুত এই নেত্রীর বিরুদ্ধে প্রথম রায় ঘোষণার কথা ছিলো। কিন্তু এদিন আগামী ৬ ডিসেম্বর রায় ঘোষণা হবে বলে জানায় আদালত। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

আরও পড়ুন:

পৃথিবীর নতুন প্রজাতন্ত্র হিসেবে পরিচিতি পেলো বার্বাডোজ

তানজানিয়ায় বিষাক্ত কচ্ছপের মাংস খেয়ে ৭ জনের মৃত্যু

হাফ ভাড়া কার্যকর করতে মালিক সমিতির শর্তসমূহ

নোবেল বিজয়ী অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে গত ১ ফেব্রুয়ারি ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। ওই সময় তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়। গত জুনে তার বিচার শুরু হয়। তবে সব শুনানি রুদ্ধ দ্বার আদালতে অনুষ্ঠিত হয়।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারই পরমাণু আলোচনার মূল লক্ষ্য

অনলাইন ডেস্ক

ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারই পরমাণু আলোচনার মূল লক্ষ্য

ইরানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারই পরমাণু আলোচনার প্রধান লক্ষ্য বলে জানিয়েছে তেহরান। পাশাপাশি পরমাণু সমঝোতার বাইরে কোন শর্ত তেহরান মানবে না বলেও সতর্ক করেছে ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এসব ঘটনায় সোমবার শুরু হওয়া আলোচনায় এখনি কোন সিদ্ধান্তে আসা যাচ্ছে না। ফলে পরমাণু চুক্তি ঠেকাতে পাঁচ মাস পর ভিয়েনায় ফের আলোচনা শুরু করার আশাবাদী ইরান।

২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে করা পারমাণবিক চুক্তি থেকে ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নিয়ে আসেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।  তারওপর ইরানের বিরুদ্ধে দিতে থাকেন একের পর এক নিষেধাজ্ঞা।
 
তবে জো বাইডেন ক্ষমতায় আসার পর থেকে সেই চুক্তি পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চলছে ৷ তবে যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি ভিয়েনা আলোচনায় অংশ নিতে পারছে না। তবে যুক্তরাষ্ট্র কিভাবে পরমাণু সমঝোতায় ফিরতে পারে, ভিয়েনা আলোচনায় সেটাই হচ্ছে অন্যতম প্রধান এজেন্ডা।
 
তবে আলোচনায় তেহরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে। এই যুক্তরাষ্ট্রের ফের অর্ন্তভূক্তির বিষয়ে ওয়াশিংটনের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির আব্দুল্লাহিয়ান।

পরমাণু সমঝোতার এই চরম অচলাবস্থার জন্য সেই দেশটি দায়ী, তারাই  আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে একতরফাভাবে সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গেছে। এমনকি  ইরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এবার সবার আগে ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের উপায় নিয়ে আলোচনা করতে হবে।

তবে পশ্চিমা কূটনীতিকরা বলছেন ইরানের দাবিকে অবাস্তব বলেই মনে করছেন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় কূটনীতিকরা ৷ তারা বলছেন, ইরানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করার পর থেকে ইরান চুক্তির গুরুত্বপূর্ণ প্রতিশ্রুতি লঙ্ঘন করে আসছে।

পরমাণু ইস্যুতে ভিয়েনা সংলাপকে বেশ ইতিবাচক বলছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিরা। জানান, তারা আন্তরিকভাবেই পরমাণু সমঝোতাকে আবারও কার্যকর করতে আগ্রহী।

এ অবস্থায়  তেহরানের প্রস্তাব মেনেই এই সমঝোতাকে আবার কার্যকর করতে আগামী পাঁচ মাস পর অস্ট্রিয়ার  ভিয়েনায় আবার  আলোচনা শুরু করতে আশাবাদী ইরানের প্রতিনিধি দল।

মঙ্গলবার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের উপায় নিয়ে বিশেষজ্ঞ পর্যায়ের আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে।

তেহরানের ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার এবারের পরমাণু আলোচনার প্রধান লক্ষ্য ও চুক্তির বাইরে কোনো বিষয়ই মানা হবে না বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির আব্দুল্লাহিয়ান। ভিয়েনা আলোচনায় কোনো পক্ষ যদি এমন কোনো অনুরোধ জানায় যা পরমাণু সমঝোতায় নেই তাহলে ইরান তা মেনে নেবে না বলেও জানান তিনি।

সোমবার  ভিয়েনায় ইরান ও পাঁচ জাতিগোষ্ঠী নতুন করে পরমাণু সমঝোতা পুনর্বহালের লক্ষ্যে আলোচনা শুরু করেছে। পাঁচ জাতিগোষ্ঠীর পক্ষে অংশ নিচ্ছে চীন, রাশিয়া, ব্রিটেন, ফ্রান্স এবং জার্মানি।

২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্র এই সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কারণে তারা এখন আর কোনো পক্ষ নয়। সে কারণে ওয়াশিংটন সরাসরি ভিয়েনা আলোচনায় অংশ নিতে পারছে না। তবে যুক্তরাষ্ট্র কিভাবে পরমাণু সমঝোতায় ফিরতে পারে, ভিয়েনা আলোচনায় সেটাই হবে অন্যতম প্রধান এজেন্ডা।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির আব্দুল্লাহিয়ান তার এক নিবন্ধে বলেন, এ পর্যন্ত ছয় দফা আলোচনা হলেও যুক্তরাষ্ট্রে বাড়তি দাবি ও অবাস্তব অবস্থানের কারণে তা সফল হতে পারেনি।

আরও পড়ুন:

পৃথিবীর নতুন প্রজাতন্ত্র হিসেবে পরিচিতি পেলো বার্বাডোজ

তানজানিয়ায় বিষাক্ত কচ্ছপের মাংস খেয়ে ৭ জনের মৃত্যু

হাফ ভাড়া কার্যকর করতে মালিক সমিতির শর্তসমূহ

পরমাণু সমঝোতা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যুক্তরাষ্ট্রের এই বেআইনি আচরণের ব্যাপারে একমত যে, সামগ্রিকভাবে এটি আন্তর্জাতিক আইনের অবমাননা।

বর্তমান মার্কিন প্রশাসনের সমালোচনা করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারাভিযানের সময় জো বাইডেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইরানবিরোধী নীতি অনুসরণ করবেন না বলে বারবার প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরও তিনি পরমাণু সমঝোতায় ফিরতে পারেননি।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর