ভাত কম খাওয়া প্রসঙ্গে

গুলজার হোসাইন উজ্জ্বল

ভাত কম খাওয়া প্রসঙ্গে

ভাত কম খেতে হবে- এই পরামর্শ ঠিক আছে৷ কিন্তু এই পরামর্শ একজন চিকিৎসক দিলে এর অর্থ একরকম। কৃষিমন্ত্রী বা অর্থমন্ত্রী বললে তার অর্থ হয় আরেক রকম। চালের মূল্য সহ নানাবিধ দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতি যখন সমকালের রেকর্ড ছাড়িয়ে যায় সেই সময়ে এ জাতীয় পরামর্শ উপহাসের মত লাগে। 

আজ থেকে বিশ-পঁচিশ বছর আগেও এরকম রসিকতা হজম করতে হয়েছে। কিংবা তারও আগে। আশির দশকে শ্লোগান ছিল বেশি বেশি আলু খান, ভাতের উপর চাপ কমান। সাইফুর রহমান সাহেবও একবার বলেছিলেন ভাত কম করে খেতে।  পেঁয়াজের দাম বাড়লে মন্ত্রীরা বলেন পেঁয়াজ না খেলে কি হয়? আমাদের মন্ত্রীদের কেন এসব বলতে হয়? এত হিউমার তো ভাল লাগেনা।

সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের সব লেখার আইনগত ও অন্যান্য সব দায় লেখকের। মতামত লেখকের নিজস্ব, সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়।)

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

হীরের টুকরো এমন শিক্ষককেও হুমকি দেবে বহু নোংরা-নষ্ট ছাত্র!

রউফুল আলম

হীরের টুকরো এমন শিক্ষককেও হুমকি দেবে বহু নোংরা-নষ্ট ছাত্র!

রউফুল আলম

আমেরিকার বিখ‍্যাত ম‍্যাগাজিন ফোর্বস প্রতিবছর একটা তালিকা বের করে - Forbes 30 under 30! বিভিন্ন শাখায় ত্রিশের কম বয়সী ত্রিশজন প্রতিভাবানদের তালিকা। যাদের কাজ ভবিষ‍্যতকে বদলে দিবে, ভবিষ‍্যতকে নতুন দিক দিবে এমন ত্রিশজনের তালিকা।

সম্প্রতি প্রকাশিত তালিকার বিজ্ঞান শাখায় নাম করে নিয়েছে বাংলাদেশি একটা মেয়ে। তার নাম বাশিমা ইসলাম। নিঃসন্দেহে এটা গর্বের। অনুপ্রেরণার। অভিনন্দন!

বাশিমা ইসলাম বুয়েট থেকে পাশ করে ইউনিভার্সিটি অব নর্থ ক‍্যারোলাইনা—চ‍্যাপলহিল থেকে পিএইচডি করেন এবং পোস্টডক্টরাল রিসার্চ করছেন ইউনিভার্সিটি অব ইলিনয়ি—আরবানা স‍্যাম্পেইনে (UIUC)। সে যথারীতি Worcester Polytechnic Institute-এ এসিসট‍্যান্ট প্রফেরশিপ পেয়েছেন এবং আগামী বছর থেকে সেখানে কাজ শুরু করবেন।

বাশিমা ইসলাম

                               বুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থী বাশিমা ইসলাম

এই যে ত্রিশের আগেই পিএইচডি-পোস্টডক শেষ করে ইউনিভার্সিটিতে কাজ শুরু করা—এটাই হলো বিশ্বমানের বিশ্ববিদ‍্যালয়গুলোর সংস্কৃতি। সারা দুনিয়ার ভালো ভালো ইউনিভার্সিটিগুলোতে এভাবেই শিক্ষক নিয়োগ হয়। কিন্তু এই বাশিমা ইসলাম যদি এখন বুয়েটে শিক্ষক হতে যায়, দেখা যাবে বহু লোককে ধরতে হবে। পিএইচডি-পোস্টডক থাকলেও তাকে সরাসরি এসিস্ট‍্যান্ট প্রফেসরশিপ দেয়া হবে কিনা, সেটাও প্রশ্নবিদ্ধ!

পিএইচডি-পোস্টডক করেও তার বেতন-ভাতা হয়তো হবে একজন সরকারী অফিসারের চেয়ে কম। একজন সরকারী অফিসার গাড়ি পাবে, ড্রাইভার পাবে, কাজের লোক পাবে কিন্তু বাশিমা ইসলাম কোনদিন প্রফেসর হওয়ার পরও হয়তো একটা গাড়ি কিনতে পারবে না। তিনি বুয়েটের শিক্ষক হয়েও কোনদিন অন‍্যায়কে অন‍্যায় বলতে পারবেন না। তাকে কথা বলতে হবে মেপে মেপে। দল-উপদল হিসেব করে। আর এমন হীরেরটুকরো শিক্ষকের সামনে গিয়েও হুমকি দিতে সামান‍্যতম দ্বিধা করবে না রাজনীতির আশ্রয়-প্রশ্রয়ের বেড়ে উঠা বহু নোংরা-নষ্ট ছাত্র!

তাহলে মেধাবীরা কেন বিশ্ববিদ‍্যালয়ের শিক্ষক হবে? মেধাবীরা কেন দেশে ফিরবে? আর এভাবে যদি চলতেই থাকে, তাহলে বিশ্বমানের তরুণ গড়বে কে? কাদের হাত দিয়ে এই বিশাল তরুণ জনগোষ্ঠিকে তৈরি করা হবে? —আমরা কি ভাবি কখনো? 

আরও পড়ুন


কুয়েটে শিক্ষকের মৃত্যু: নতুন তদন্ত কমিটি গঠন

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

সাহিত্যিকের সংগৃহীত বই ও পত্রিকা নীলক্ষেতের ফুটপাথে গড়াগড়ি যায়

জাকির তালুকদার

সাহিত্যিকের সংগৃহীত বই ও পত্রিকা নীলক্ষেতের ফুটপাথে গড়াগড়ি যায়

জাকির তালুকদার

গবেষকরা সাহিত্যিকের মৃত্যুর পরে তার স্ত্রী-সন্তানদের কাছে যান তথ্য সংগ্রহের জন্য। কিন্তু তেমন কিছুই পান না।

প্রথম কারণ, খুব বিখ্যাত না হলে সাহিত্যিক তার স্ত্রী-সন্তানদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ কেউ নন। তার লেখালেখি নিয়ে ব্যস্ত থাকাটিকে পরিবারের লোকজন বিরক্তি সহকারে মেনে নেন। অনেকেই স্বামী বা পিতার প্রকাশিত সবগুলো বইয়ের নামই জানেন না। কোন কোন পত্রিকায় তার লেখা ছাপা হয়েছে, সেসব বলতে পারা তাদের পক্ষে পুরোই অসম্ভব। তাই দেখা যায় সারাজীবন রক্ত পানি করে সাহিত্যিকের সংগৃহীত বই ও পত্রিকা নীলক্ষেতের ফুটপাথে গড়াগড়ি যায়। ঘর দখল করে থাকা এসব জঞ্জাল ডাম্পিং করার জন্য নীলক্ষেতের চাইতে ভালো আর কোনো জায়গা বাঙ্গাল-মুলুকে নেই।

আরও পড়ুন:


নৌকার বিরুদ্ধে স্ট্যাটাস দিলে ক্রসফায়ারের হুমকি

সড়কে দুর্নীতি: আজ ‘লাল কার্ড’ দেখাবে শিক্ষার্থীরা


আর দ্বিতীয় এবং গুরুত্বপূর্ণ কারণ হচ্ছে সাহিত্যিকের জীবনের ৯৯ শতাংশ ঘটনা-দুর্ঘটনার কথা স্ত্রী-সন্তানরা জানতেই পারেন না। 

(সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়।)

news24bd.tv রিমু   

 

পরবর্তী খবর

কাচাবাদাম গানে বাংলাদেশি তরুণীর উত্তাল নাচ (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

কাচাবাদাম গানে বাংলাদেশি তরুণীর উত্তাল নাচ (ভিডিও)

নাচছেন বাংলাদেশি তরুণী

এইতো কিছুদিন আগের কথা, সোশ্যাল মিডিয়া বেশ হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলো শ্রীলংকান পপকুইন ইয়োহানির ‘মাগে হিতে’ গানটি। এবার ভাইরাল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের দুবরাজপুর ব্লকের অন্তর্গত লক্ষ্মীনারায়ণপুর পঞ্চায়েতের কুড়ালজুরি গ্রামের ভুবন বাদ্যকরের ‘কাঁচা বাদাম’ গান। বিশেষ করে বাংলাদেশ ও ভারতের সোশ্যাল মিডিয়ায় সয়লাব এই গান।

এবার বাংলাদেশি এক তরুণীর ভুবন বাদ্যকরের ‘কাঁচা বাদাম’ গানের সঙ্গে নাচের খবর জানা গেল। তরুণীর নাম তৌহিদা অনয়। তার নাচের ভিডিওটি এখন পর্যন্ত এক কোটি ৪০ লাখ মানুষ দেখেছেন।

বাংলাদেশি তরুণী

তৌহিদা এই মুহূর্তে কলকাতায় রয়েছেন, সেখান থেকেই দেশের শীর্ষ স্থানীয় একটি জাতীয় দৈনিকের সঙ্গে কথা বলেন।

তিনি বলেন,  ‘আমরা যখন বীরভুম যাই, তখন বেশ সকাল; আমরা ক্লান্তই ছিলাম। কিন্তু সত্য কথা বলতে ভুবন বাদ্যকরের গানে এমন কিছু রয়েছে, যাতে শরীর আপনাতেই দুলে ওঠে। আমি যখন গানটি শুনছিলাম, আমার নাচতে ইচ্ছা হলো। ভুবন দাদা রাজি হলেন। তিনি গানটি গাইলেন আর আমি নাচলাম। ভাবিনি আমার সেই ভিডিও এভাবে ছড়িয়ে পড়বে।’

গানটির কথা, সুর ভুবন বাদ্যকরেরই। এর গায়কও তিনি। ভুবনের এই গানের কথায় ও সুরে মজেননি এমন মানুষ এখন হাতে গোনা। ফেসবুক, ইউটিউব খুললেই বেজে উঠছে এই গান।  রীতিমতো সেলিব্রিটি বনে গেছেন বাদাম বিক্রেতা ভুবন বাদ্যকর। 

আরও পড়ুন:


আফ্রিকার ৭ দেশ থেকে এলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন

দুই হাত হারানো ফাল্গুনীকে বিয়ে করলো এনজিও কর্মী সুব্রত

স্বাধীনতার ৫০ বছরে স্বাস্থ্যখাতে অভাবনীয় সাফল্য

ঢাকার যানজটেই শেষ জিডিপির প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা


সেলিব্রিটি বনে গেলেও ভুবন বাদ্যকরের জীবনযাপনে কোনো পরিবর্তন আসেনি, সারা বিশ্বের বাঙালিরা ভুবনকে চিনলেও, গান শুনলেও তাঁর অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি।

এক জীর্ণ পলিথিনে ছাওয়া মাটির ঘরে থাকেন ভুবন। পরিবারে রয়েছে স্ত্রী, দুই ছেলে। এক ছেলের বউ ও নিজের স্বামী পরিত্যক্ত বোন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন:

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আপনার বারান্দায় আপনি বাগান করবেন, সাধু সাধু

অনলাইন ডেস্ক

আপনার বারান্দায় আপনি বাগান করবেন, সাধু সাধু

শাহিনা কবির

আপনার গাছে আপনি হোসপাইপ দিয়ে পানি দিবেন, চাইলে মুখে নিয়ে কুলি করে দিবেন। কিন্তু আপনার বাড়ির নিচে দিয়ে একজন  কর্পোরেট, যিনি কেতাদুরস্ত হয়ে হেঁটে যাচ্ছেন অথবা পাটভাঙ্গা শাড়ি পরে কনকনে শীতে গুটিসুটি মেরে হেঁটে যাচ্ছিলেন।

ফুল

তাদের সারাগায়ে আপনার কাদা-গোবর মাখানো পানি যখন ভিজিয়ে দেয়, তখন খুব স্বাভাবিক এই দাবি উঠা, বারান্দা বাগানের জন্য সেফটি শেড থাকতে হবে।

আরও পড়ুন:


আফ্রিকার ৭ দেশ থেকে এলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন

দুই হাত হারানো ফাল্গুনীকে বিয়ে করলো এনজিও কর্মী সুব্রত

স্বাধীনতার ৫০ বছরে স্বাস্থ্যখাতে অভাবনীয় সাফল্য

ঢাকার যানজটেই শেষ জিডিপির প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা


লেখাটি মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চবিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক,শাহিনা কবিরের-ফেসবুক থেকে সংগৃহীত ( লেখাটির আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়।)

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

শেষ পর্যন্ত নতুন চিন্তার জয় হয়েছে

শওগাত আলী সাগর

শেষ পর্যন্ত নতুন চিন্তার জয় হয়েছে

শওগাত আলী সাগর

মানুষ তার নিজস্ব বিচার বুদ্ধি দিয়েই সবকিছু দেখতে স্বাচ্ছন্দবোধ করে। নতুন যে কোনো কিছুই তার কমফোর্ট জোনকে নাড়া দেয়, ফলে নতুন কিছুকে গ্রহণ করার ক্ষেত্রে সে দ্বিধান্বিত হয়ে পরে, কখনো কখনো প্রতিরোধ করারও চেষ্টা করে।

যুগে যুগে যখনি নতুন কোনো চিন্তার বা নতুন কোনো দৃষ্টিভঙ্গি মানুষের সামনে এসেছে, অধিকাংশ মানুষ সবার আগে সেটি প্রতিরোধ করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নতুন চিন্তার জয় হয়েছে।

সমাজে নতুন চিন্তার উদ্ভব না ঘটলে, প্রাগ্রসর চিন্তার সৃষ্টি না হলে সেই সমাজকে বন্ধ্যা সমাজ হিসেবে বিবেচনা করা যায়। সেই সমাজের মানুষগুলোকেও প্রাণ সম্পন্ন ভাবা যায় না। নতুন ভাবনা-চিন্তার সমঝদার তেমন একটা পাওয়া যাবে না, কিন্তু নতুন এবং প্রাগ্রসর চিন্তার প্রবাহ থাকতেই হবে।

লেখাটি শওগাত আলী সাগর -এর ফেসবুক থেকে সংগৃহীত ( লেখাটির আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়।)

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর