দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিং মামলায় ডিআইজি পার্থ গোপাল কারাগারে

অনলাইন ডেস্ক

দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিং মামলায় ডিআইজি পার্থ গোপাল কারাগারে

সিলেটের সাবেক কারা উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি প্রিজনস) পার্থ গোপাল বণিককের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিং আইনে দায়ের করা মামলায় তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকা বিশেষ জজ আদালত-৪ এ আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন পার্থ গোপাল বণিক। বিচারক শেখ নাজমুল আলম জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ২ সেপ্টেম্বর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এক আদেশে জামিন বাতিল করে ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পার্থ গোপাল বণিককে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন।

আদেশে ঢাকার বিশেষ জজ মো. ইকবাল হোসেনকে সতর্ক করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। এছাড়া মামলাটি ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালত থেকে ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ এ স্থানান্তরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ কে ২০২২ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে মামলাটির বিচার শেষ করতে বলা হয়েছে।

২০১৯ সালের ২৮ জুলাই সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত দুদকের সেগুনবাগিচার প্রধান কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় পার্থ গোপাল বণিককে। ঘুষ ও দুর্নীতির কয়েক লাখ নগদ টাকা তার বাসায় রয়েছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে এদিন বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে ৮০ লাখ টাকা জব্দ করা হয় এবং তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে দুদক তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। ২০১৯ সালের ৩০ জুলাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পার্থ গোপাল বণিককে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে।

আরও পড়ুন:


নোটিশ দিয়ে ইভ্যালির অফিস বন্ধ রাখার ঘোষণা

ইভ্যালির বিরুদ্ধে এবার যশোরে লিখিত অভিযোগ

ইভ্যালী-পঞ্জি স্কীমস: কই এর তেলে তিমি ভাজা!

যদি পারি অবশ্যই আমি বাংলায় গান গাইবো : ইয়োহানি


গত বছরের ২৪ আগস্ট মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পার্থের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন। এতে মোট ১৪ জনকে সাক্ষী করা হয়। 

অভিযোগপত্রে বলা হয়, পার্থ গোপাল বণিকের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া ৮০ লাখ টাকার কোনো বৈধ উৎস তিনি দেখাতে পারেননি। অর্থাৎ তিনি সরকারি দায়িত্ব পালনের সময় বিভিন্ন অনিয়ম, ঘুষ, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে ৮০ লাখ টাকা উপার্জন করে পাচারের উদ্দেশে বাসায় লুকিয়ে রেখেছেন বলে প্রমাণিত হয়।

এতে আরও বলা হয়, ২০১৪ সালে তিনি ৩১ হাজার ২৫০ টাকা বেতন স্কেলে কারা উপ-মহাপরিদর্শক পদে পদোন্নতি লাভ করেন। তার এই বেতন স্কেলের সঙ্গে এত টাকা অর্থ উপার্জন অসামঞ্জস্যপূর্ণ। গত বছরের ৪ নভেম্বর পার্থ গোপাল বণিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। এরপর ১৫ ডিসেম্বর এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

আবদুল বাসেতকে জাতি চিরকাল শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে: প্রধান বিচারপতি

অনলাইন ডেস্ক

আবদুল বাসেতকে জাতি চিরকাল শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে: প্রধান বিচারপতি

জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আব্দুল বাসেত, প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন

সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার ব্যারিস্টার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান শোকবার্তার বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

এতে প্রধান বিচারপতি বলেন, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের বিজ্ঞ জ্যেষ্ঠ আইনজীবী, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এবং সাবেক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি। অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে তিনি পেশাগত দায়িত্ব পালন করেছেন। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা এবং মানুষের ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে তার অসামান্য অবদান রয়েছে।


আরও পড়ুন: 

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে টাইগার শিবিরে বড় দুটি দুঃসংবাদ

১৫টি ট্রাক নিয়ে ডুবে গেলো ফেরি শাহ আমানত

১০ মিনিটের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র নয়াপল্টন

এনআইডি নিয়ে সরকারের নতুন পরিকল্পনার কথা জানালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


সদ্য প্রয়াত এ আইনজীবী সম্পর্কে তিনি বলেন,  গুরুত্বপূর্ণ আইনি বিষয়ে তিনি আদালতকে সব সময় সহযোগিতা করেছেন। তিনি ছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি। দরিদ্র মানুষের আইনজীবী হিসেবে তিনি ব্যাপকভাবে পরিচিত ছিলেন। তিনি জুনিয়র আইনজীবীদের সার্বক্ষণিক সহযোগিতা করেছেন। জাতি চিরকাল শ্রদ্ধাভরে তাকে স্মরণ করবে।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য ‘গরিবের আইনজীবী’ খ্যাত আবদুল বাসেত মজুমদার বুধবার সকাল ৮টা ১৮ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় মারা যান।

বাসেত মজুমদারের প্রতি শ্রদ্ধায় বসবে না সুপ্রিম কোর্ট

জ্যৈষ্ঠ আইনজীবী বাসেত মজুমদার আর নেই

news24bd.tv নাজিম

 

পরবর্তী খবর

বাসেত মজুমদারের প্রতি শ্রদ্ধায় বসবে না সুপ্রিম কোর্ট

অনলাইন ডেস্ক

বাসেত মজুমদারের প্রতি শ্রদ্ধায় বসবে না সুপ্রিম কোর্ট

গরিবের আইনজীবী হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি প্রবীণ আইনজীবী আব্দুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট বিভাগ আজ বসবে না।

সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: 

জ্যৈষ্ঠ আইনজীবী বাসেত মজুমদার আর নেই

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে টাইগার শিবিরে বড় দুটি দুঃসংবাদ


আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য ‘গরিবের আইনজীবী’ খ্যাত আবদুল বাসেত মজুমদার বুধবার সকাল ৮টা ১৮ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় মারা যান।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

জন্মদিনের পার্টিতে দুই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, মামলার রায় আজ

অনলাইন ডেস্ক

জন্মদিনের পার্টিতে দুই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, মামলার রায় আজ

২০১৭ সালে রাজধানী বনানীর রেইনট্রি হোটেলে জন্মদিনের পার্টিতে দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় হওয়া মামলার রায় আজ মঙ্গলবার। ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭-এর বিচারক বেগম মোসাম্মৎ কামরুন্নাহারের আদালত এই রায় ঘোষণা করবেন। 

মামলার আসামিরা হলেন আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে সাফাত আহমেদ, সাফাতের বন্ধু নাঈম আশরাফ ওরফে এইচ এম হালিম, সাদমান সাকিফ, দেহরক্ষী রহমত আলী ও গাড়িচালক বিল্লাল হোসেন।

এই মামলার রায়ের দিন ধার্য ছিল গত ১২ অক্টোবর। তবে ওইদিন ওই আদালতের বিচারকের অসুস্থতার কারণে ছুটিতে থাকায় ভারপ্রাপ্ত বিচারক আল মামুন রায়ের তারিখ পিছিয়ে দেন। তার আগে গত ৩ অক্টোবর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়। 

আরও পড়ুন:


যশোরে ৫ শিশুকে বলাৎকার! যুবক গ্রেফতার

বাড়িতে ঢুকে যুবলীগকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা


মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ২০১৭ সালের ২৮ মার্চ রাত ৯টা থেকে পরদিন সকাল ১০টা পর্যন্ত হোটেলে জন্মদিনের পার্টিতে দুই শিক্ষার্থীকে একাধিকবার ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই বছরের ৬ মে সাফাতসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে বনানী থানায় ধর্ষণ মামলা করা হয়।

তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ৭ জুন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের (ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার) পরিদর্শক ইসমত আরা এমি পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। 

news24bd.tv রিমু  

পরবর্তী খবর

ধর্ষণ মামলা : বাদী ও আসামিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ আদালতের

অনলাইন ডেস্ক

ধর্ষণ মামলা : বাদী ও আসামিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ আদালতের

বরগুনায় ধর্ষণ মামলার আসামী ও বাদীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে ট্রাইব্যুনালের বিচারক হাফিজুর রহমান এ আদেশ দেন।

বাদী ওই নারী ছাড়াও আরেক আসামি হলেন-বরগুনা সদর উপজেলার পদ্মা গ্রামের আবদুল গনি হাওলাদারের ছেলে ছগির হোসেন (৪২)।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ছগির পেশায় একজন আইনজীবীর সহকারী। ওই নারী (৩৫) আদালতে পাড়ায় আসা যাওয়ার সুবাদে ছগিরের সঙ্গে পরিচয় হয়। এক পর্যায়ে ছগির তার প্রতিপক্ষ জাহিদ নামের একজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দিয়ে তাকে ১০ লাখ টাকা আদায়ের লোভ দেখান। এ মামলায় তিনি ওই নারীকে বাদী হতে বলেন। কিন্তু ওই নারী রাজি হচ্ছিলেন না। পরে তাকে ২০ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন দেওয়ার কথা বললে তিনি মামলার বাদী হতে রাজি হয়ে যান।

চলতি বছরের ২৩ মার্চ ওই নারী ছগিরের সঙ্গে দেখা করতে আসেন। ছগির তাকে বলেন ধর্ষণ মামলা করতে হলে ধর্ষণের আলামত দরকার। এ কথা বলে তিনি ওই নারীকে ধর্ষণ করেন। পরে ওই নারী থানায় গিয়ে জাহিদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করতে গেলে পুলিশের জেরার মুখে পড়েন এবং সব ঘটনা স্বীকার করেন। পরে ওই নারী ছগিরকে আসামি করে মামলা করেন এবং পুলিশ ছগিরকে গ্রেফতার করে।

আরও পড়ুন:

মা কালী সেজে জনগণকে তাক লাগালেন রিখিয়া

আরিয়ানের জামিন শুনানি আজ, টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব

ওই নারী মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ছগিরের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করেন। বিচারক বিস্তারিত শুনে বাদী ওই নারী এবং ছগিরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

শিক্ষিকাকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের অভিযোগে প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

শিক্ষিকাকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের অভিযোগে প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার

স্কুলের প্রধান শিক্ষক কর্তৃক সহকারী শিক্ষিকাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে তার ভিডিও ধারণের অভিযোগ উঠে। সেই অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্ত সেই প্রধান শিক্ষকে।

গাজীপুর সদর উপজেলায় সৃজনশীল স্কুল অ্যান্ড কলেজের এমডি ও প্রধান শিক্ষক সাদেকুল ইসলাম সেলিমকে গ্রেফতার করেছে জয়দেবপুর থানা পুলিশ। সোমবার দিবাগত রাতে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থানার ওয়ার্শী ইউনিয়ন ফাইভ এলাকায় তার শ্বশুরবাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

জয়দেবপুর থানার ওসি মাহাতাব উদ্দিন জানান, সহকারী শিক্ষিকাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের আসামি প্রধান শিক্ষক সাদেকুল ইসলাম সেলিমকে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়। আজ দুপুরে আসামিকে গাজীপুর জেলা আদালতে পাঠানো হয়। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আরও পড়ুন:

মা কালী সেজে জনগণকে তাক লাগালেন রিখিয়া

আরিয়ানের জামিন শুনানি আজ, টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব


 

উল্লেখ্য, ২৭ জুন সহকারী শিক্ষিকাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে তার ভিডিও ধারণ করে। পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে প্রতিষ্ঠানের এমডি ও প্রধান শিক্ষক সাদেকুল ইসলাম সেলিম। এরপর ওই শিক্ষিকা বাদী হয়ে জয়দেবপুর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর