মগজ বদলায় কিন্তু ডিএনএ বদলায় না
মগজ বদলায় কিন্তু ডিএনএ বদলায় না

মগজ বদলায় কিন্তু ডিএনএ বদলায় না

Other

প্রত‍্যেকটা আমেরিকান আমাকে দেখে প্রথমে বলবে আমি ভারতীয়। যদি বলি, না, আমি ভারতীয় না। তখন একটু ভ্রু কুঁচকায়। তারপর বলে, তাহলে পাকিস্তানি! যদি বলি, না, পাকিস্তানি না।

তখন বলে - ইউ আর ফ্রম বাংলাড‍্যাশ! ইংরেজি ভাষায় দ-এর কোন উচ্চারণ নেই। তাই ইংরেজী ভাষার মানুষরা আমাদের মতো দ-উচ্চারণ করতে পারে না। আরবের মানুষ যেমন পারে না প-এর উচ্চারণ করতে। আরবীতে প-উচ্চারণের কোন বর্ণ নেই।  

আপনার হয়তো মনে হতে পারে, এটা আমেরিকানদের দূর্বলতা। আসলে বিষয়টা তা না। আপনি কোন ইউরোপিয়ানদের দেখে বলতে পারবেন না - সে কি ইটালিয়ান, নাকি ফ্রেঞ্চ, নাকি জার্মান। যদি আপনি ভাষা বুঝেন বা অনেকদিন ইউরোপে থাকেন তাহলে হয়তো সম্ভব! 

কোরিয়ান, চাইনিজ, জাপানিজ দেখে আমাদের পক্ষে আলাদা করা কঠিন।

আরও পড়ুন

  সন্তান জন্মের এক বছর পর গোপনেই বিয়ে সারলেন বরিস জনসন

  ‘সিরিয়াকে শক্তিশালী করতে সব রকম সহযোগিতা দেবে ইরান’

  সিলেটে ভূমিকম্পে হেলে পড়ল দুটি ৬ তলা ভবন

  ভারতে করোনায় একদিনে ৩ হজার ৬১৭ জনের মৃত্যু

 

পুরো পৃথিবীর মানুষরা এখনো মোটা দাগে কয়েকটা শ্রেণীতেই ভাগ করা। সেটা আপনি গায়ের রঙ, কিংবা উচ্চতা, কিংবা নাক ও মুখের অবয়ব দিয়ে ক্লাসিফাই করতে পারবেন। কয়েকটা নৃ-গোষ্ঠির মধ‍্যেই অন্তর্ভুক্ত। মানুষ সহস্র সহস্র বছর ধরেই এই নৃ-সংরক্ষণ করে রেখেছে। তাদের হয়তো ধর্ম বদলেছে, ভাষা বদলেছে কিন্তু চেহারা, আকার, গায়ের রঙ বদলায়নি।  

মানুষের জিন ও ডিএনএ কতোটা সংরক্ষণশীল - চিন্তা করুন! এ যেনো - মগজ বদলায় কিন্তু ডিএনএ বদলায় না! 

news24bd.tv আহমেদ