সুনামগঞ্জের ছাতক-দোয়ারাবাজার সড়কে

অতিরিক্ত পাথর বোঝাই ট্রাকের চাপে বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

অতিরিক্ত পাথর বোঝাই ট্রাকের চাপে বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

সুনামগঞ্জের ছাতক-দোয়ারাবাজার সড়কে অতিরিক্ত পাথর বোঝাই ট্রাকের চাপে সড়ক ও জনপথ বিভাগের বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। শনিবার দুপুরে দোয়ারাবাজার উপজেলা সদরের নইনগাঁও গ্রামের মাঝে নোয়াজের খালের ১০০ ফুট বেইলী ব্রিজে এই ঘটনা ঘটে। 

স্থানীয়রা জানান, দোয়ারাবাজার উপজেলা সদরের নোয়াজের খালের বেইলী ব্রিজটি দীর্ঘদিন ধরেই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। সওজ এর পক্ষ থেকে এই ব্রিজে তিন টনের বেশি মালামাল পরিবহন নিষেধ রয়েছে এবং এই ব্রিজের পাশেই নতুন একটি ব্রিজ নির্মাণাধীন রয়েছে। 


৭৬ জন সৌদি নাগরিকের উপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

গাড়িতে অগ্নিকান্ড, রেকর্ড সংখ্যক গাড়ি উঠিয়ে নিচ্ছে হুন্দাই

সানি লিওনের জায়গা নিলেন আবিরা! (ভিডিও)

অন্য পুরুষের সাথে সম্পর্ক নিয়ে সন্দেহ, স্ত্রীকে খুন


আজ শনিবার দুপুরে পাথর বোঝাই ওই ট্রাকটি সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ থেকে দোয়ারাবাজার হয়ে ছাতকে যাচ্ছিল। কিন্তু ট্রাকে অতিরিক্ত পাথর বোঝাই থাকায় ব্রিজটি ভেঙ্গে খালে পড়ে গেছে।

এ সময় ট্রাকের চালক ও দুইজন সহকারি সামান্য আহত হয়েছে। তারা স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। গুরুত্বপূর্ন বেইলী ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় ছাতক-দোয়ারাবাজার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ব্রিজের দুই দিকে যানবাহন আটকা পড়েছে। 

সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের ছাতক-দোয়ারাবাজার এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এসএম সাইফুল ইসলাম জানান, নইনগাঁও বেইলী ব্রিজটি ঝুঁকিপূর্ণ। অতিরিক্ত পাথর বোঝাই ট্রাকের চাপে ভেঙ্গে গেছে। 

তিন টনের বেশি যানবাহন চলাচলে নিষেধ থাকলেও রাতের আধারে অন্তত ৪০ টন ওজনের পাথর বোঝাই ট্রাক উঠায় সেটি ভেঙ্গে পড়েছে। ব্রিজটি দ্রুত মেরামত করে যোগাযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে লোক পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

৯ ঘণ্টা রিক্সা চালিয়ে সাত মাসের সন্তানকে নিয়ে হাসপাতালে বাবা

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

৯ ঘণ্টা রিক্সা চালিয়ে সাত মাসের সন্তানকে নিয়ে হাসপাতালে বাবা

সাত মাস বয়সী শিশু কন্যা জান্নাত গত মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়লে রাতেই বাবা তারেক ইসলাম ঠাকুরগাঁও সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করান। একদিন চিকিৎসা দিয়েই  উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশু জান্নাতকে রংপুরে রেফার্ড করেন চিকিৎসক।

কিন্তু চলমান কঠোর লকডাউন পরিস্থিতিতে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া টাকা জোগাড় করতে না পেরে দিশেহারা হয়ে পড়েন রিক্সাচালক বাবা।

চারদিন ধরে কোনো উপায় না পেয়ে অবশেষে গতকাল নিজে রিক্সা চালিয়ে সন্তানকে নিয়ে রংপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পৌঁছান তিনি।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) সকাল ৬টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে  প্রায় ১১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে বিকাল সোয়া তিনটায় রংপুরে পৌঁছান।

তারেক ইসলাম ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার দক্ষিণ সালন্দর গ্রামের রামবাবুর গোডাউন এলাকার আনোয়ার হোসেনের বড় ছেলে।


সুরা আরাফ ও সুরা আনফালের বাংলা অনুবাদ

নারী ফুটবল দলে করোনার হানা

নিখোঁজের ১১২ দিন পর সেপটিক ট্যাঙ্কে মিলল নারীর লাশ


জানা যায়, তারেক ইসলাম রিক্সা চালানোর পাশাপাশি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  ওয়াজ মাহফিলে সাউন্ড সিস্টেম অপারেটর হিসেবে কাজ করতেন। কিন্তু কোভিড ১৯ ও কঠোর লকডাউন শুরুর পর থেকে অনুষ্ঠান না থাকায় তার বাড়তি আয়ের পথ বন্ধ হয়ে যায়। লকডাউন পরিস্থিতিতে রিক্সা  চালাতে না পেরে অসহনীয় কষ্ট নেমে এসেছে পরিবারটির উপর।

তারেক ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে হাসপাতাল থেকে বাচ্চাকে নিয়ে বাড়িতে যাই। কিন্তু বাড়িতে আসার পর বাচ্চার অবস্থা দেখে আমি চিন্তিত হয়ে পড়ি। কিন্তু লকডাউনের কারণে আমার অবস্থা এতটাই খারাপ যে আগামীকাল কী খেয়ে বেঁচে থাকব সেই ব্যবস্থাও আমার নেই। এ অবস্থায় আমি কীভাবে শিশু বাচ্চাকে নিয়ে এত দূরের রাস্তা যাব ভেবে পাচ্ছিলাম না। যখন অ্যাম্বুলেন্সের টাকা জোগাড় করতে পারলাম না। তখন এক মাত্র শিশুকন্যাকে বাঁচানোর জন্য রিক্সা চালিয়ে রংপুরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিই।

তিনি আরও বলেন, রংপুর মেডিকেল কলেজের শিশু ওয়ার্ডে শিশু জান্নাতকে ভর্তি করা হলে চিকিৎসক দেখার পর প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র লিখে দেন। অপারেশন করতে হতে পারে বলে জানান  চিকিৎসক। কিন্তু অপারেশন করার মতো টাকা আমার কাছে নেই। এমনকি চিকিৎসকের লিখে দেওয়া প্রাথমিক পর্যায়ের ওষুধ, স্যালাইন, ইঞ্জেকশন ক্রয়ের জন্য কোনো টাকাও আমার নেই। এখন আমি কী করব আল্লাহ ছাড়া কোনো উপায় দেখছি না বলে জানান তিনি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রাস্তায় অসহনীয় যানজট, তার ওপরে ঘরমুখো মানুষের বাড়তি চাপ

অনলাইন ডেস্ক

রাস্তায় অসহনীয় যানজট, তার ওপরে ঘরমুখো মানুষের বাড়তি চাপ

করোনা নিয়ন্ত্রণে আগামিকাল থেকে ৭ দিনের কঠোর লকডাউনের ঘোষণা করেছে সরকার। এমন ঘোষণার পর থেকেই যে যেভাবে পারে ছুটছেন গ্রামের উদ্দেশে। লকডাউনের আগের দিন হওয়ায় বাস, ব্যক্তিগত গাড়ি, সিএনজি, মোটরসাইলের কারণে ঢাকার রাস্তায় অসহনীয় যানজট।

ট্রাক অথবা পিকআপে করে গ্রামে ছুটছেন অসংখ্য মানুষ। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাড়তি ভাড়া দিয়ে ট্রাকে গাদাগাদি করেই ফিরছেন তারা। স্বাস্থ্যবিধি মানারতো বালাই নেই। কারও মাস্ক আছে তো কারও নেই। যা ইচ্ছে তাই অবস্থা। মনে হচ্ছে করোনা বলে তাদের কোন শব্দই জানা নেই।

কর্তব্যরত ট্রাফিক ‍পুলিশরাও যেন নির্বিকার। তারা বলছেন, লকডউনে খেটে খাওয়া মানুষের কাজকর্ম থাকবে না। অনেকের অফিস বন্ধ। তাই অনেকেই ঢাকা ছেড়ে বাড়ি যাচ্ছেন। এ কারণে অন্যান্য সময়ের তুলনায় গত দুই দিনে গাড়ির চাপ বেশি।

আরও পড়ুন


ভিডিও ফুটেজ দেখে তাণ্ডবকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে: কাদের

দৌলতদিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় ৫ শতাধিক যান

আনুশকার জন্যে নায়ক হলেন ইরফানের ছেলে (ভিডিও)

শিমুলিয়া ঘাটে ঘরমুখো মানুষদের উপচে পড়া ভিড়


এদিকে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী তোলার কথা থাকলেও কিছু গণপরিবহনে যাত্রীরা দাঁড়িয়ে আছেন। ভাড়াও নেয়া হচ্ছে বেশি। আবার অনেকে গাড়ির জন্য ঘণ্টাব্যাপী অপেক্ষা করে অবশেষে পায়ে হেঁটেই গন্তব্যের উদ্দেশে ছুটেছেন।

ট্রাফিক পুলিশের এক কর্মকর্তা বলছেন, ঢাকার উত্তর-পশ্চিম অংশের গাবতলী পর্যন্ত ডিএমপি ট্রাফিক বিভাগের এলাকা। কিন্তু ডিএমপির এলাকার বাইরেও গাড়ির চাপ আছে। এ কারণে ডিএমপি থেকে ট্রাফিক পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবু চাপ সামলানো যাচ্ছে না।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দৌলতদিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় ৫ শতাধিক যান

অনলাইন ডেস্ক

দৌলতদিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় ৫ শতাধিক যান

কঠোর লকডাউনকে কেন্দ্র করে ঈদের মতো বাড়ি ফিরছে মানুষ। আর সেই প্রভাব পড়েছে সবখানেই। ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় শতশত যানবাহন। রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট থেকে শুরু করে গোয়ালন্দ ঘাট পর্যন্ত ট্রাকের দীর্ঘ সারি। নদী পারাপারের অপেক্ষায় কমপক্ষে ৫ শত ট্রাক। এমন পরিস্থিতিতে ভোগান্তিতে পড়েছেন যানবাহনের চালক ও সহকারীরা।

তবে যে কারণে এতো দুর্ভোগ সেই কারণটাই সবার মাঝে উপেক্ষিত। ট্রাকের প্রায় চালক-সহকারী কারও মাঝেই নেই কোন সচেতনতা। কারও মুখেই নেই মাস্ক। কারও কাছে আবার একেবারেই মাস্কই নেই। তবে অপেক্ষায় থাকা চালকরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলছেন, কোন গণপরিবহন চলছে না তবুও কেন এতো ভোগান্তি।

দৌলতদিয়া-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কে গোয়ালন্দ মোড়ে প্রায় তিন কিলোমিটার এলাকা থেকে কল্যাণপুর বাজার পর্যন্ত প্রায় তিন শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক পদ্মা পারাপারের অপেক্ষায় আটকে আছে।

আরও পড়ুন


আনুশকার জন্যে নায়ক হলেন ইরফানের ছেলে (ভিডিও)

শিমুলিয়া ঘাটে ঘরমুখো মানুষদের উপচে পড়া ভিড়

‘যাদের কাছে জীবনের চেয়ে ধর্ম বড়, তাঁরা মেলায় গেছেন’

মামুনুল হকের শ্বশুরকে আ.লীগের কারণ দর্শানোর নোটিশ


খুলনা থেকে আসা ট্রাক চালক কুদ্দুস বলছেন, সোমবার ভোররাতে এখানে এসেছি। এখনো পারাপারের অপেক্ষায়। কখন পার হতে পারবো বুঝতে পারছি না। এখনতো ঈদ না কি কারণে এমন দুর্ভোগ।

দৌলতদিয়া কার্যালয়ের বিআইডব্লিউটিসি-এর মহাব্যবস্থাপক ফিরোজ শেখ বলেন, রাত থেকে ঘাট এলাকায় পণ্যবাহী ট্রাকের চাপ কিছুটা বেড়েছে। বর্তমান দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৭টি ফেরি চলাচল করছে। খুব দ্রুতই নদী পার হতে পারবে এসব ট্রাক বলে জানান এই কর্মকর্তা।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় ফেরি ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ

শফিকুল ইসলাম শামীম, রাজবাড়ী

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় ফেরি ও লঞ্চ  চলাচল বন্ধ

ঝড় বৃষ্টির কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি ও লঞ্চ  চলাচল বন্ধ।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নৌ পথে আগের মতোই গাদাগাদি করে যাত্রী পরিবহন, অথচ ভাড়া বৃদ্ধি

রাহাত খান, বরিশাল :

নৌ পথে আগের মতোই গাদাগাদি করে যাত্রী পরিবহন, অথচ ভাড়া বৃদ্ধি

করোনা সংক্রামন রোধে ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের শর্তে নৌ পথে ৬০ ভাগ ভাড়া বৃদ্ধি করেছে সরকার। সরকারের এই নির্দেশনা উপেক্ষা করে আগের মতোই দাগাদাগি করে যাত্রী পরিবহন করছে বরিশালের অভ্যন্তরীন ও দূরপাল্লা রুটের লঞ্চগুলো। তবে ভাড়া আদায় করছে বর্ধিত হারে। এতে ক্ষুব্ধ যাত্রীরা। তারা আগের ভাড়া বহাল রাখার দাবি জানিয়েছেন। 

করোনা সংক্রামনের হারে শীর্ষে বরিশাল। বিগত ২৪ ঘন্টায় ভর্তি হওয়া ৭ জন সহ শের-ই বাংলা মেডিকেলের করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১শ’ ১২ জন রোগী। এর মধ্যে করোনা পজেটিভ রোগী ২৪ জন। এর আগের ২৪ ঘন্টায় অর্থাৎ বৃহস্পতিবার ২৬ জন করোনা পজেটিভ সহ চিকিৎসাধীন ছিলেন ১০৫ জন রোগী। করোনা ওয়ার্ডের ১০টি আইসিইউ বেডে রোগী চিকিৎসাধীন। এখনও আইসিইউ সেবা পাওয়ার অপেক্ষায় আছেন অন্তত ২০জন রোগী। 


সময়মতো করোনা টেস্টের ফলাফল না পাওয়ায় এয়ারপোর্টে ভোগান্তি

পশু কোরবানির ৫৯০ ছুরি দুই মাদ্রাসা থেকে জব্দ

মিরপুর চিড়িয়াখানাও বন্ধ ঘোষণা

রংপুরে সব ধরনের মেলা ও সিনেমা হল বন্ধ


বিগত ২৪ ঘন্টায় (প্রতিদিন রাত ৯টায় রিপোর্ট পাওয়া যায়) শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে ১৮৪ জনের নমূনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৭ জনের। শনাক্তের হার ১৪.৬৭ ভাগ। এর আগের (বুধবার) গত ২৪ ঘন্টায় পিসিআর ল্যাবে ১৮১ জনের নমূনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪০ জনের। শনাক্তের হার ছিল ২২.০৯ ভাগ। 

এ অবস্থায় করোনা সংক্রামন রোধে গণপরিবহনে ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের শর্তে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে গণপরিবহনে ভাড়া বেড়েছে ৬০ ভাগ। যাত্রী পরিবহন আগের মতো থাকলেও বর্ধিত ভাড়া আদায় করছেন বরিশালের বিভিন্ন লঞ্চ কর্তৃপক্ষ। এতে ক্ষুব্ধ লঞ্চ যাত্রীরা। তারা আগের ভাড়া বহাল রাখার দাবি জানিয়েছেন। 

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর