রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ১১ মিনিট আগে

নেইমারকে যে পরামর্শ দিলেন ম্যারাডোনা

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

নেইমারকে যে পরামর্শ দিলেন ম্যারাডোনা

ফুটবল বিশ্বের অন্যতম উজ্জ্বল তারকা মেসি থাকতেও নকআউট পর্বেই বাড়ির পথ ধরেছে আর্জেন্টিনা। রোনালদোর মতো ঝড়ো গতির ফুটবলার থাকার পরও বিদায় নিয়েছে পর্তুগাল। অন্যদিকে ব্রাজিলকে টেনে নিয়ে যাচ্ছেন নেইমার। কখনো গোল করে, কখনো গোল করিয়ে। দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন তিনি। তবে এত কৃতিত্বের পরেও সমালোচিত হচ্ছেন এ ফুটবলার। রাশিয়া বিশ্বকাপে বারবার উঠে আসছে নেইমারের মাঠে পড়ে যাওয়ার বিষয়টি। সোমবার মেক্সিকোর বিপক্ষে গোল করে, গোল করিয়ে যতই নায়কের মর্যাদা পান নেইমার, মাঠে তার ফাউল আদায়ের চেষ্টা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। এমন পরিস্থিতিতে নেইমারকে পরামর্শ দিলেন আর্জেন্টাইন গ্রেট দিয়েগো ম্যারাডোনা।

ম্যারাডোনার পরামর্শ, 'অহেতুক ডাইভ নয়। বদলাও মানসিকতা!'

আরও পড়ুন: নেইমারকে ভাঁড় বললেন মেক্সিকান কোচ

আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির বলেন, ‘নেইমার এখন তারকা ফুটবলার। ওকে জানতে হবে যে এই যুগে অহেতুক ডাইভিংয়ের শাস্তি হলুদ কার্ড। ভিএআর চালু হয়েছে। কোস্টারিকার বিপক্ষে এরই মধ্যে সে হলুদ কার্ড দেখেছে। ওর মাথার মধ্যে থাকা চিপ এবার বদলাতে হবে।’

মেক্সিকো ম্যাচ জিতে ব্রাজিল কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার পর নেইমারকে এমন পরামর্শই দিলেন ম্যারাডোনা।

আরও পড়ুন: আর্জেন্টিনার গোলকিপার বিশ্ব ধ্বংসকারী: ম্যারাডোনা 

যদিও ব্রাজিল সমর্থকরা বলছেন, মূলত ব্রাজিলবিরোধীরাই সমালোচনা করছেন, তবে ম্যাচ চলাকালীন নেইমারের পড়ে যাওয়া নিয়ে ধারাভাষ্যকারের হাসাহাসি ও মেক্সিকোর বিপক্ষে ম্যাচে নেইমার পড়ে গেলে রেফারির হাসি- সব মিলিয়ে বিতর্ক বেশ জমে উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ছড়িয়ে পড়েছে নেইমারের নানা ব্যাঙ্গাত্মক কার্টুন ও ভিডিও।

বিশ্বজুড়ে সাবেক তারকাদের অনেকেই বল পায়ে নেইমারের প্রশংসা যেমন করছেন, তেমনই সমালোচনা করেছেন তার পড়ে গিয়ে রেফারির দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টার। অনেকেই বলছেন যে, ব্রাজিল দলগতভাবেই অনেক শক্তিশালী। নেইমারের আচরণে অহেতুক ব্রাজিলের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। গ্যারি লিনেকার, অ্যালান শিয়েরাররা টুইটে কড়া সমালোচনা করেছেন। শিয়েরার বলেছেন, ‘নেইমার, এবার বন্ধ করও এসব। আমরা বিরক্ত হয়ে উঠেছি।’

আরও পড়ুন: ভবিষ্যদ্বাণী করা সেই অক্টোপাস দিয়ে তৈরি হলো খাবার

তবে যতই সমালোচনা হোক, নেইমার কিন্তু ক্রমশ ছন্দে ফিরছেন। পরিসংখ্যান বলছে, তিনি বিশ্বকাপে গোলের উদ্দেশে সর্বোচ্চ ২৩ শট মেরেছেন। এর মধ্যে ১২টি ছিল লক্ষ্যে। তিনি সবচেয়ে বেশি ১৬টি গোলের সম্ভাবনা তৈরিও করেছেন। সবচেয়ে বেশি ৪০টি ড্রিবলের চেষ্টা করেছেন। একইসঙ্গে সবচেয়ে বেশি ২৩ বার ফাউলের শিকার হয়েছেন।
 
দুই আসর মিলিয়ে বিশ্বকাপে ছয়টি গোল করে ফেলেছেন নেইমার। যার জন্য প্রয়োজন হয়েছে ৩৮ বার গোল করার চেষ্টা। লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিশ্বকাপে ছয়টি গোল করতে লেগেছিল যথাক্রমে ৬৭ ও ৭৪ শট। সূত্র: ওয়েবসাইট।

মন্তব্য